Latest News

অসম-বাংলা সীমান্তে হাতির হানা, নষ্ট ক্ষেতের ফসল, এলাকায় চাঞ্চল্য

দ্য ওয়াল ব্যুরো, কোচবিহার: পশ্চিমবঙ্গের সীমান্ত লাগোয়া জেলাগুলির মধ্যে পশ্চিমের বাঁকুড়া, পুরুলিয়া কিংবা উত্তরের ডুয়ার্স সংলগ্ন এলাকায় হাতির হানা প্রায় নিত্যদিনের ঘটনা। প্রায়ই জঙ্গল থেকে লোকালয়ে এসে উৎপাত চালায় হাতির দল। নষ্ট হয় বিঘের পর বিঘে ফসল। অনেক সময় অতর্কিতে হাতির পালের সামনে চলে এলে প্রাণহানির ঘটনাও ঘটে। কিন্তু অসম-বাংলা সীমান্তে হাতির হানার ঘটনা খুব একটা দেখা যায় না। তাই এই ঘটনা ঘটতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।

রবিবার সকালে আচমকায় কোচবিহার জেলায় অসম-বাংলা সীমান্ত লাগোয়া পাকড়িগুড়িতে হানা দেয় হাতির দল। সেখানে জাতীয় সড়কের ধারে ক্ষেতের মধ্যে নেমে পড়ে হাতির দল। সাত সকালে এমন ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়। সাধারণত এই ধরনের ঘটনা দেখে সেখানকার লোকেরা অভ্যস্ত নন। তাই প্রথমের দিকে হতবাক হয়ে যান তাঁরা।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, জঙ্গলের মধ্যে হাতি থাকলেও সেই এলাকায় লোকালয়ে তা খুব একটা বের হয় না। তাই হঠাৎ করে এই ধরনের ঘটনা দেখে সবাই অবাক হয়ে গিয়েছিলেন। অনেকে তো রীতিমতো ভয়ও পেয়ে যান। কেউ কেউ আবার অতি উৎসাহে কাছে গিয়ে হাতির দলের ছবি ও ভিডিও তোলার চেষ্টা করেন।

সঙ্গে সঙ্গে খবর দেওয়া হয় বন দফতরে। খবর পেয়েই সেখানে এসে পৌঁছন বন দফতরের আধিকারিকরা। তাঁরা জানিয়েছেন, প্রাথমিকভাবে দেখে মনে হচ্ছে পাশের ভলকার জঙ্গল থেকে হাতির দল লোকালয়ে বেরিয়ে পড়ে। তারপরে ক্ষেত্রে মধ্যে ঢুকে পড়ে তারা। হাতির দলকে তাড়িয়ে ফের জঙ্গলের মধ্যে ফিরিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন তাঁরা।

হাতির দলের খবর পেয়ে সেখানে এসে উপস্থিত হন স্থানীয় প্রশাসনের আধিকারিকরাও। তাঁরা জানিয়েছেন, হাতির হানায় ক্ষেতের অনেকটা ফসল নষ্ট হয়েছে। তবে ভাগ্য ভাল তারা কোনও বাড়িতে হানা দেয়নি। বা হাতির হানায় কোনও মানুষের কোনও ক্ষতি হয়নি। ঠিক কী কারণে জঙ্গল থেকে হাতির দল বেরিয়ে এল সেটাই ভাবছেন তাঁরা। জঙ্গলের আশেপাশে নিরাপত্তা বাড়ানোর চিন্তাভাবনা করছেন তাঁরা। কোনও ভাবে লোকালয়ের চারদিকে কাঁটাতারের বেড়া দেওয়া যায় কিনা সেকথাও ভাবছেন তাঁরা।

You might also like