Latest News

শিক্ষিকার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার বারুইপুরে, স্বামীকে গ্রেফতার করল পুলিশ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: এক স্কুল শিক্ষিকার ঝুলন্ত দেহ উদ্ধারের ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়াল বারুইপুরে। মৃতার নাম প্রিয়াঙ্কা মিদ্দ্যে চক্রবর্তী (৩৩)। বারুইপুরের একটি বেসরকারি ইংরাজি মাধ্যম স্কুলের শিক্ষিকা হিসেবে কর্মরত ছিলেন তিনি।

প্রিয়াঙ্কার স্বামীর বিরুদ্ধে মেরে ঝুলিয়ে দেওয়ার অভিযোগ তুলেছেন তাঁর আত্মীয়রা। অভিযুক্ত স্বামী আশীষ চক্রবর্তীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

বছর দেড়েক আগে বারুইপুরপুর শহরের সুবুদ্ধিপুর বেলতলা এলাকার যুবক আশীষ চক্রবর্তীর সঙ্গে বিয়ে হয় প্রিয়াঙ্কার। আশিষবাবু পেশায় রাজ্য সরকারি কর্মচারী। মৃতার বাপের বাড়ির লোকজনের অভিযোগ, বিয়ের পর প্রতিবেশি অপর এক যুবতীর সাথে বিবাহ বহিঃর্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন আশীষ। পরে সেই সম্পর্কের কথা জানতে পেরেই প্রতিবাদ করেন প্রিয়াঙ্কা। অভিযোগ, তারপর থেকেই অকথ্য অত্যাচার শুরু হয় প্রিয়াঙ্কার উপর।

বিষয়টি নিয়ে দুই পরিবার বেশ কয়েকবার সমাধানের চেষ্টা করে। কিন্তু সমস্যা সমাধান হয়নি। প্রিয়াঙ্কার বাড়ির লোকজন সংবাদমাধ্যমে বলেছেন, তার পরেও আশীষ বিবাহবহির্ভূত সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসেনি।

শুক্রবার সন্ধ্যায় শ্বশুর বাড়িতে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় প্রিয়াঙ্কা মিদ্দ্যে চক্রবর্তীর দেহ পাওয়া যায়। মৃতার বাপের বাড়ির অভিযোগ, তাঁদের মেয়েকে খুন করা হয়েছে। দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে পুলিশ। প্রশাসনের বক্তব্য, ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পরেই নিশ্চিত হওয়া যাবে এটা খুন না আত্মহত্যা। তবে মৃতার স্বামীকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

প্রতিবেশীদের বক্তব্য, বিয়ের কয়েক মাস পর থেকেই অশান্তি শুরু হয় প্রিয়াঙ্কা ও আশীষের মধ্যে। যে তরুণীর সঙ্গে আশীষের সম্পর্ক ছিল বলে অভিযোগ তাঁর কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

You might also like