Latest News

বর্ধমানে বিজেপি কার্যালয়ে আগুন, পাল্টা ভাঙচুর তৃণমূলের পার্টি অফিসে, কোন্দল চরমে

দ্য ওয়াল ব্যুরো, পূর্ব বর্ধমান: ফের একবার পার্টি অফিসে আগুন লাগানোর ঘটনায় কোন্দল শুরু হল তৃণমূল-বিজেপির মধ্যে। বিজেপির পার্টি অফিসে আগুন ধরিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে শাসক দলের বিরুদ্ধে। উল্টে বিজেপির বিরুদ্ধে দলীয় অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। এই ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের বর্ধমান শহরের শালবাগানে। রবিবার সকালে শালবাগানে বিজেপির একটি মণ্ডল কার্যালয়ে আগুন জ্বলতে দেখেন স্থানীয় বিজেপি কর্মীরা। দলীয় কার্যালয়ে আগুন লাগার ঘটনায় পথ অবরোধ করেন তাঁরা। তাঁদের অভিযোগ, তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা এই আগুন ধরিয়েছে।

বর্ধমান শহরের শালবাগান থেকে নীলপুর বাজারে যাওয়ার পথে রাস্তার পাশেই সম্প্রতি একটি বিজেপির দলীয় কার্যালয় উদ্বোধন হয়। এটি দলের ১২ নম্বর ওয়ার্ডের ও শহরের ১৩ নম্বর মণ্ডল কার্যালয়। বিজেপির অভিযোগ, গতকাল গভীর রাতে তৃণমূল আশ্রিত দুস্কৃতীরা কার্যালয়ে আগুন ধরায়। এই আগুনে পুড়ে যায় চেয়ার, টেবিল, ফ্লেক্স ও কিছু আসবাবপত্র। এর প্রতিবাদে দলীয় কর্মীরা ওই রাস্তা অবরোধ করেন। তাঁদের দাবি, দোষীদের শাস্তি দিতে হবে। বিজেপি কর্মী পিঙ্কি সাহা জানান, এর বিহিত না হওয়া অবধি অবরোধ চলবে।

অন্যদিকে তৃণমূল নেতা অনন্ত পাল বিজেপির তোলা অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি বলেন, তদন্ত হোক। দোষীরা শাস্তি পাক। তাঁরা এই ধরনের রাজনীতিতে বিশ্বাস করেন না বলেই জানিয়েছেন অনন্তবাবু।

অন্যদিকে বিজেপি অফিসে আগুন লাগার পরে তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় কার্যালয়ে হামলার অভিযোগ ওঠে। এদিন সকালে বর্ধমান শহরের পাশে জাতীয় সড়কের ধারে তৃণমূলের দলীয় কার্যালয়ে ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে। তৃণমূল যুব জেলা সভাপতি রাসবিহারী হালদার জানান, এদিন সকালে দলীয় অফিসের দরজা জানলার কাঁচ ভাঙা দেখেন তাঁরা। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একটি ফ্লেক্স পুড়িয়ে দেওয়া হয়। একটি শহিদ বেদীর রড নষ্ট করা হয়। তাঁর অভিযোগ, বিজেপির লোক নেই। তাই বাইরে থেকে লোক এনে ঝামেলা করছে। এর প্রতিবাদে তাঁরা নামছেন।

অন্যদিকে বিজেপির জেলা যুব সভাপতি শুভম নিয়োগী এই অভিযোগ উড়িয়ে বলেছেন তাঁরা এসবে যুক্ত নন। তৃণমূলের অনেক গোষ্ঠী আছে। এছাড়া দাদার অনুগামীরাও আছেন। তাদেরই কারও কাজ হতে পারে।

এই বিষয়ে রাজ্য তৃণমূল কংগ্রেসের মুখপাত্র দেবু টুডু বলেন অশান্তি পাকানোর জন্য বিজেপি এসব করছে। তাদের দলীয় কার্যালয়ে হামলা ও ভাঙচুর করা হয়েছে। সবই সাধারণ মানুষ দেখছেন। বিজেপির দলীয় কার্যালয়ে আগুন লাগানোর বিষয়ে তিনি বলেন বিজেপির দলের কোন শৃঙ্খলা নাই। যে যেখানে পাচ্ছে পার্টি অফিস খুলছে। ওরাই জানে কে আগুন ধরিয়েছে।

এর জবাবে বিজেপির জেলা সভাপতি সন্দীপ নন্দী বলেন, পার্টি অফিসে আগুন দিয়ে বিজেপিকে আটকানো যাবে না। মানুষ ঠিক করে নিয়েছেন আগামী দিনে কি হতে চলেছে। তাই তো শাসকদল এসব করছে। তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় কার্যালয়ে হামলা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, দাদা দিদির অনুগামীদের মধ্যে ঝামেলা চলছে। হয়তো ওই গণ্ডগোলের জেরেই ভাঙচুর। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বর্ধমান থানার পুলিশ।

You might also like