Latest News

ভিড় ট্রেন থেকে কেউ পড়ে গেলে সেটা বড় খবর? প্রশ্ন মুখ্যমন্ত্রীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ভিড় ট্রেন থেকে পরে মৃত্যুর ঘটনা নিয়ে মুখ খুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সাংবাদিকদের প্রতি উগরে দিলেন ক্ষোভ। নেতিবাচক খবর দেখানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি।

এদিন সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী ডানকুনিতে ট্রেন থেকে পড়ে মৃত্যুর প্রসঙ্গ তোলেন। বলেন, ট্রেনের ভিড়ে একজন পড়ে গেল, সেটা কি বড় খবর? আপনারা সেটা বড় করে দেখাবেন না মানুষকে বলবেন ভিড় এড়িয়ে চলুন? একটু ‘পজিটিভিটি’ তো দেখাবেন, যাতে কোভিড পজিটিভিটি কমানো যায়। ট্রেন থেকে পড়ে যাওয়ার ওই ঘটনাকে বড় করে খবরে কেন দেখানো হয়েছে প্রশ্ন তোলেন মুখ্যমন্ত্রী।

কোভিড পরিস্থিতিতে লোকাল ট্রেন নিয়ে বিধি বেঁধে দিয়েছে নবান্ন। ট্রেনে ৫০ শতাংশ যাত্রী ওঠার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। ট্রেন চলছে রাত ১০টা পর্যন্ত। যদিও প্রথম দিন ট্রেনের সময়সীমা ছিল সন্ধ্যা ৭টা। আর তাতে থিকথিকে ভিড়ের ভয়াবহ ছবি দেখেছিল সারা রাজ্য। সেদিনও বারুইপুর স্টেশনে ভিড়ের ঠেলায় একজন ট্রেন থেকে পড়ে আহত হয়েছিলেন।

বিধিনিষেধ জারির পরদিন সকালে ডানকুনির কাছে ভিড় ট্রেন থেকে পড়ে গিয়েছিলেন আরও এক ব্যক্তি। পরে হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়। এই ঘটনা নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠেছিল চারদিকে। সরকারের ট্রেন নিয়ে বিধিকেই কাঠগড়ায় তুলেছিলেন অনেকে। এদিন তা নিয়ে সাংবাদিকদের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করলেন মুখ্যমন্ত্রী। বললেন ‘ইতিবাচক’ খবর পরিবেশন করতে হবে। ট্রেন থেকে পড়ে যাওয়ার খবর বড় করে না দেখিয়ে প্রচারের আলো ফেলতে হবে কোভিড সচেতনতায়। ভিড় এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিতে হবে মানুষকে।

মুখ্যমন্ত্রীর এই মন্তব্যের পর স্বভাবতই চর্চা শুরু হয়েছে। নানা মহলে প্রশ্ন উঠেছে তবে কি ভিড় ট্রেন থেকে পড়ে গিয়ে মৃত্যুর ঘটনাকে গুরুত্বহীন করে দেখাতে চাইছেন মুখ্যমন্ত্রী? কেন তিনি ভিড় এড়িয়ে চলার দিকেই গুরুত্ব দিতে বললেন, তবে কি যে প্রাণ গেল তা তিনি ছোট করে দেখতে চাইছেন। পর্যবেক্ষকদের একাংশ দাবি করছেন, ভিড় এড়িয়ে চলার জন্য বাড়াতে হবে ট্রেনের সংখ্যা। কারণ কোভিডের জন্য অফিস-কাছারি বন্ধ হয়নি। রোজ ট্রেনেই যাতায়াত করতে হচ্ছে বহু মানুষকে। ফলে ভিড় হচ্ছে।

এদিন মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ট্রেন বন্ধ করলেও তো অনেক কথা হয়। তখন আপনারা বলবেন কেন বন্ধ করা হল? বন্ধ না করলেও কথা। তাহলে করবোটা কী?

You might also like