Latest News

তৃণমূলের সাংগঠনিক কাজে পিকের টিমের ভূমিকা কি কমছে! বড় ইঙ্গিত মমতার

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বৃহস্পতিবার দলের সাংসদদের নিয়ে বৈঠকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, বাংলায় সরকারের পাশাপাশি সংগঠনও তিনিই দেখবেন। শেষ কথা বলবেন তিনিই। আর কেউ না।

শুক্রবার জানা গিয়েছে, এই বার্তা দেওয়ার আগেই জেলা সভাপতিদের কাছে আরও একটি তাৎপর্যপূর্ণ নির্দেশ গিয়েছে রাজ্য থেকে। তা হল, আসন্ন পুরভোটের জন্য প্রার্থী তালিকা তৈরি করে জেলা সভাপতিরা যেন রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সীর কাছে জমা দেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই নির্দেশ নিয়েই জোর আলোচনা শুরু হয়েছে দলের একাংশের মধ্যে।

প্রশ্ন উঠতে পারে কেন?

দলের এক প্রবীণ নেতার কথায় এই নির্দেশ অর্থবহ। প্রথমত, এর অর্থ হল প্রার্থী বাছাই তথা সাংগঠনিক কাজে আই-প্যাকের ভূমিকা কমছে। তার থেকেও বড় বিষয় হল, পুরভোটের প্রার্থী বাছাই কলকাতা থেকে হচ্ছে না। জেলার নেতাদের উপরেই সেই ভার ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

বাংলায় বিধানসভা ভোটের কমবেশি এক বছর আগে থেকে তৃণমূলের প্রচার ও প্রার্থী বাছাইয়ের কাজে প্রশান্ত কিশোরের সংস্থা আই প্যাকের ভূমিকা ক্রমশই বাড়তে থাকে। আই প্যাক যখন দায়িত্ব নেয়, তখন কোভিড পরিস্থিতি ছিল না। ঠিক হয়েছিল, বিধানসভা ভোটের আগে পুরভোট ও তার পর বিধানসভা ভোট—এই দুই নির্বাচনেই প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য সমীক্ষার কাজ ও প্রচারের কৌশল নির্ধারণ করবে তারা। কিন্তু কোভিডের কারণে পুরভোট তখন হয়নি। ঠিক হয়, পুরভোট বিধানসভা নির্বাচনের পর হবে। সূত্রের খবর, দলীয় স্তরে পরে এও ঠিক হয় যেহেতু পুরভোটের সমীক্ষা, প্রচার ইত্যাদি নিয়েও আই-প্যাকের সঙ্গে আগাম চুক্তি হয়েছিল, তাই সেই পর্যন্ত তারা দায়িত্ব পালন করে যাবে। সেই অনুযায়ী আই-প্যাকের প্রতিনিধিরা প্রার্থী বাছাইয়ের জন্য সমীক্ষা চালাচ্ছিল বলে খবর।

কিন্তু এরই মধ্যে জানা গিয়েছে যে, জেলা সভাপতিদের প্রার্থী তালিকা পেশ করতে বলা হয়েছে। অর্থাৎ এর আগে যে কাঠামোয় চলছিল দল, সেই পুরনো কাঠামোয় ফেরার ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে বলে অনেকে মনে করছেন। তাঁদের মতে, আগে মনে করা হয়েছিল যে পুরভোটে প্রচুর রদবদলের সম্ভাবনা রয়েছে। অনেক বর্তমান কাউন্সিলরের টিকিট কাটা হতে পারে। কিন্তু পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে মনে করা হচ্ছে, তা আর হয়তো হবে না। আসন সংরক্ষিত না হয়ে গেলে বা ইতিমধ্যে দল ছেড়ে বিজেপিতে না গেলে বেশিরভাগ বর্তমান কাউন্সিলরই শেষমেশ হয়তো টিকিট পাবেন।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকাসুখপাঠ

You might also like