Latest News

পুরভোট পিছনোর নির্দেশ দেয়নি হাইকোর্ট, কমিশনের বিরুদ্ধে অবমাননার মামলা খারিজ

দ্য ওয়াল ব্যুরো:  স্বস্তি পেল নির্বাচন কমিশন। কলকাতা হাইকোর্টে নির্বাচন কমিশনের বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া আদালত অবমাননার মামলা খারিজ করল প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ।

বুধবার এই মামলার শুনানি ছিল প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে। আদালত তার রায়ে জানিয়েছে, চার পুরনিগমের ভোট পিছনোর পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল কমিশনকে। আদালত কোনও নির্দেশ জারি করেনি। তাই কমিশন ইচ্ছাকৃতভাবে ভোট পিছোয়নি বা আদালতের নির্দেশ অমান্য করেছে এমনটা বলা যায় না।

রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি বিচার করে বিধাননগর, আসানসোল, চন্দননগর ও শিলিগুড়ি, এই চার পুরনিগমের ভোট চার থেকে ছয় সপ্তাহ পিছিয়ে দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছিল হাইকোর্ট। তবে কমিশন তিন সপ্তাহ পরে ভোটের দিনক্ষণ ঠিক করে। আদালতের নির্দেশ অমান্য করা হয়েছে এই দাবি জানিয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয় হাইকোর্টে। তবে আদালতের বক্তব্য, চার থেকে ছয় সপ্তাহ ভোট পিছিয়ে দেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছিল নির্বাচন কমিশনকে। বিষয়টা ভাবনাচিন্তা করে দেখতে বলা হয়েছিল। তিন সপ্তাহ দিন পিছিয়ে আদালত অবমাননা করেনি কমিশন।

ওই চার পুরনিগমের নির্বাচন রয়েছে আগামী ১২ ফেব্রুয়ারি।  প্রসঙ্গত, রাজ্যের চার পুরসভা আসানসোল, শিলিগুড়ি, বিধাননগর, এবং চন্দননগরে ভোট ২২ জানুয়ারি হওয়ার কথা ছিল। ভোট স্থগিত রাখার আর্জি জানিয়ে আদালতে জনস্বার্থ মামলা করেছিলেন সমাজকর্মী বিমল ভট্টাচার্য। তাঁর বক্তব্য ছিল করোনার পরিস্থিতির মধ্যে ভোট, ভোটের প্রচার এবং সভা হলে সংক্রমণ বাড়বে।

তবে নির্বাচন কমিশন সে সময় জানিয়েছিল, নির্বাচন প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছে। মনোনয়ন জমা দেওয়া এবং তথ্য খতিয়ে দেখার (স্ক্রুটিনি) কাজও শেষ হয়ে গিয়েছে। এই অবস্থায় নির্বাচন বাতিলের কথা ভাবছে না কমিশন। কোভিডের জন্য রোড শো, মিছিলের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। সভার ক্ষেত্রেও কড়া নির্দেশ রয়েছে। কিন্তু ভোট বাতিল করা হবে কিনা বা পিছিয়ে দেওয়া সম্ভব কিনা সে নিয়ে কমিশন কিছু জানানয়নি।

You might also like