Latest News

মুকুলের ফোন বিজেপি সাংসদ-বিধায়কদের, তৎপর গেরুয়া শিবির

দ্য ওয়াল ব্যুরো: শুক্রবার তৃণমূলে ফিরেছেন মুকুল রায়। তার মধ্যেই খবর, রাজ্যের একজন বিজেপি সাংসদ ও অন্তত দশ জন গেরুয়া শিবিরের বিধায়ককে ফোন করেছেন মুকুলবাবু। বার্তা একটাই, তৃণমূলে আসুন। বিজেপিতে কিচ্ছু হবে না।

মুকুল রায়ের ফোনের খবরে তৎপর বিজেপি-ও। গেরুয়া শিবিরের দাবি, মুকুল রায়ের ফোনের খবর মুরলীধর সেন লেন পর্যন্ত পৌঁছে গিয়েছে। এ নিয়ে বিজেপির মুখ্যসচেতক মনোজ টিগ্গা বলেন, “মুকুল রায় যে আমাদের কয়েক জন বিধায়ককে ফোন করেছেন, সে কথা আমরা জানতে পেরেছি। এ বিষয়ে যা করার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী করবেন।’’

এখন প্রশ্ন হল মুকুলবাবু কাদের ফোন করেছিলেন?

সূত্রের খবর, উত্তরবঙ্গের এক বিজেপি সাংসদকে ফোন করেছেন তিনি। তাছাড়া হুগলি, উত্তর চব্বিশ পরগনা, পুরুলিয়া, দক্ষিণ দিনাজপুর মিলিয়ে দশ বিধায়কের কাছে ফোন গিয়েছে।

গৌতম দেবকে হারানো ডাবগ্রাম-ফুলবাড়ির বিজেপি বিধায়ক শিখা চট্টোপাধ্যায়কেও ফোন করেছিলেন মুকুল।
তাঁর কথায়, ‘‘আমাকে মুকুলদা ফোন করে কোনও প্রস্তাব দেননি। মুকুলদার জন্য রাজনীতিতে এতদূর আসতে পেরেছি, এটা ঠিকই, কিন্তু তিনি দলবদল করলেও আমি বিজেপি ছাড়ব না। তাঁর সঙ্গে এমনিই কথা হয়েছে।’’

সূত্রের খবর, রাজ্য বিজেপি নেতাদের অন্তত চার জন বিধায়ক ফোন করে জানিয়েছেন মুকুল রায় তাঁদের ফোন করেছিলেন। বিজেপির এখন উদ্বেগের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে, যাঁদের কাছে ফোন গেছিল অথচ তাঁরা জানালেন না, তাঁরা কারা।

বিজেপি নেতৃত্বের বক্তব্য, যাঁরা তৃণমূলে যাবেন তাঁদের বিধায়ক পদ খারিজ হবে। পাল্টা তৃণমূল বলছে, জোড়া ফুলের টিকিটে জিতে শিশির অধিকারী, সুনীল মণ্ডলের সাংসদ পদ যদি খারিজ না হয় তাহলে বিধায়ক পদ খারিজ হবে কেন?

সব মিলিয়ে মুকুলের এই ফোন নিয়ে নতুন করে আন্দোলিত বঙ্গ রাজনীতি।

You might also like