Latest News

আবারও পরিত্রাতা দেব, নেপালের পরে জম্মু-কাশ্মীর থেকে বাংলার শ্রমিকদের ঘরে ফেরাচ্ছেন সাংসদ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ‘শরণাগত দীনার্ত পরিত্রাণ পরায়ণে’ … আরও এক বার শ্রমিকদের বিপদ থেকে পরিত্রাণ করলেন অভিনেতা দেব। অনেকেই বলছেন, সাংসদ দীপক অধিকারী বারবার প্রমাণ করেছেন, তাঁর ‘দেব’ নাম সার্থক। সকলে বলছেন, আদর্শ সাংসদের ভূমিকা ঠিক এমনটাই হওয়া উচিত।

নেপালের পরে এবার জম্মুতে আটকে পড়া ৩৯ জন বাংলার পরিযায়ী শ্রমিককে রাজ্যে ফেরানোর ব্যবস্থা করলেন দেব। তিনি আগেই ভরসা দিয়েছিলেন, জম্মুতে আটক পড়া বাংলার  শ্রমিকদের ঘরে ফেরানোর জন্য সবরকম চেষ্টা করছেন তিনি। কথা দিয়ে কথা রাখলেন। সোমবার দেবের সংসদীয় এলাকা ঘাটালের দাসপুরের ৩৯ জন মানুষকে নিয়ে জম্মু থেকে একটি বাস ইতিমধ্যেই রওনা দিয়েছে পশ্চিমবাংলার উদ্দেশ্যে। এই শ্রমিকদের মধ্যে রয়েছেন কিছু মহিলা এবং শিশুও। সকলেই দাসপুরের বাসিন্দা। দেবের প্রতি তাঁরা কৃতজ্ঞ।

দেব জানান, নেপাল সীমান্ত থেকে বাংলার পরিযায়ীদের ফেরত আনার পর, অনেকেই তাঁর সাথে যোগাযোগ করেন নিজেদের ঘরে ফেরত আসার আর্জি নিয়ে। সেইমতো বন্দোবস্ত করেন তিনি। এবার দেশ ছেড়ে সুদূর দুবাই থেকেও বাংলার বহু পরিযায়ী শ্রমিক ঘরে ফেরার জন্য আর্জি জানিয়েছেন। দেব তাঁদেরও ফেরত আনার আশ্বাস দেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেবের পাশে সর্বতোভাবে দাঁড়িয়েছেন এই পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফেরানোর প্রক্রিয়ায়।

বলিউডে যখন পরিযায়ী শ্রমিকদের পাশে পরিত্রাতা হয়ে দাঁড়িয়েছেন সোনু সুদ, তেমনই এবার বাংলার শ্রমিকদের পাশেও এবার দেব। নেপাল ও জম্মুতে লকডাউনে আটকে পড়া শ্রমিকদের রাজ্যে ফেরানোর কাজে হাত দিয়েছেন তিনি।

জানা গেছে ঘাটালের বহু মানুষ স্বর্ণকারের কাজ করার জন্য দেশের বিভিন্ন রাজ্যে এমনকি বাইরের দেশেও কাজ করতে যান। জম্মুতেও আটকে ছিলেন এইরকমই ৩৯ জন শ্রমিক। তাঁরা এর আগে নিজেদের উদ্যোগে বাস ভাড়া করে বাংলায় ফিরতেও চেয়েছিলেন, কিন্তু তাঁদের আটকে দেওয়া হয়। এই আটকে থাকা পরিযায়ী শ্রমিকদের খবর পেয়ে, শীঘ্রই তাঁদের জন্য ব্যবস্থা নেন দেব। শ্রমিকরা নিজ উদ্যোগে বাস ভাড়া করার চেষ্টা করলেও, তাঁদের কাছে পর্যাপ্ত টাকা, খাদ্য, এমনকি পানীয় জলটুকু ছিল না। দেব নিজের উদ্যোগেই বাচ্চাদের জন্য দুধ ও পানীয় জল পাঠিয়ে দেন। বড়দের খাবারেরও ব্যবস্থা করেন। সে সব নিয়ে বাংলার উদ্দেশ্যে রওনা হওয়া বাসে উঠেছেন শ্রমিকরা। ঘাটাল ছাড়াও বাঁকুড়া, পুরুলিয়া ও আশপাশের জেলার পরিয়ায়ী শ্রমিকরা রয়েছেন এই দলে।


মঙ্গলবার এ রাজ্যে পৌঁছনোর পর এই শ্রমিকদের করোনা সংক্রমণ হয়েছে কিনা পরীক্ষা করা হবে ঘাটাল মহকুমা হাসপাতালে। আপাতত ঘাটালেই থাকবেন সকলে। যাঁরা ঘাটালবাসী নন, তাঁদেরও থাকা-খাওয়া ও যাবতীয় স্বাস্থ্য পরীক্ষার ব্যবস্থা করা হবে ঘাটালেই। করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট আসার পর, শ্রমিকদের একে-একে নিজের বাড়িতে ফেরত পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে। এই গোটা পরিকল্পনার সামগ্রিক দায়িত্ব নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছেন দেব। ভিন্ রাজ্য থেকে ফিরে নিয়ম মেনে তাঁরা যেন ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকেন, সেই বিষয়টির দিকেও নজর রাখছেন দেব।

দেব জানান, “নেপালের থেকে জম্মুর পরিযায়ী শ্রমিকদের ফেরানো অনেক বেশি মুশকিলের ছিল। চার দিন ধরে আমি অনুমতি পাওয়ার জন্য চেষ্টা করে অবশেষে সফল হয়েছি।” দেব বারবার বলে এসেছেন, এই দুঃসময়ে কে কোন রাজনৈতিক দল, কে কোন রাজনৈতিক রং– সেটা বিচার করার সময় নেই। সবাই একসঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে মানুষকে একটু শান্তি, স্বস্তি ও আস্থা দিতে হবে। দেব নিজের কাজ দিয়ে সেটাই প্রমাণ করে চলেছেন।

প্রসঙ্গত, কয়েক দিন আগে টুইটেও এই বিষয়ে সরব হয়েছিলেন তিনি। দাবি করেছিলেন, পরিযায়ী শ্রমিকদের জীবন নিয়ে অনেকেই ভাবিত নন। এও বলেছিলেন, দেশ কিংবা রাজ্য মাটির কাছাকাছি থাকা মানুষদের শ্রম ছাড়া সভ্যতা অচল।

শুধু মুখে বলা নয়, এবার সেই শ্রমিকদের জন্য নিজেই সক্রিয় ভূমিকা পালন করছেন অভিনেতা ও সাংসদ দেব। সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশংসা উপচে পড়েছে। একইসঙ্গে অনেকেই বলছেন, এটাই এখজন সাংসদের দায়িত্ব, সেটাই পালন করছেন দেব। প্রশাসনের সমস্ত মানুষ যদি এমনটা হতেন, তাহলে অনেক সুন্দর হতো সবকিছু।

আজকের শ্রমিকদের ফেরানো চূড়ান্ত হওয়ার পরে ফের টুইট করেছেন দেব।

You might also like