Latest News

Magrahat Murder: মগরাহাট-কাণ্ডে অভিযুক্ত জানে আলমের পক্ষে দাঁড়াতে রাজি নন কোনও আইনজীবী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: মগরাহাট জোড়া খুনের ঘটনায় (Magrahat Murder) গ্রেফতার হয়েছে এলাকার কুখ্যাত অপরাধী জানে আলম। আদালতে তোলা হয়েছে তাকে। কিন্তু ডায়মন্ড হারবার এসিজেএম আদালতের আইনজীবীরা জানালেন, তাঁরা কেউই জানে আলমের পক্ষে দাঁড়াবেন না। ডায়মন্ড হারবারের ক্রিমিনাল কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সুদীপ চক্রবর্তী এ কথা জানিয়েছেন। জানা গেছে, এই প্রথম নয়, জানে আলমের বিরুদ্ধে আগেও একাধিক মামলা রয়েছে বিভিন্ন এলাকায়।

খুনের ঘটনার পর থেকেই মূল অভিযুক্ত জানে আলমের শাস্তির দাবিতে প্রতিবাদ-বিক্ষোভে অশান্ত হয়ে ওঠে মাগুরপুকুর। অভিযুক্তের বিরুদ্ধে কঠোরতম শাস্তির দাবি করা হয়। মাগুরপুকুর থেকে আমড়াতলার তিন কিলোমিটার দীর্ঘ রাস্তা ছিল অবরুদ্ধ। গাছের গুঁড়ি ফেলে পথ অবরোধ করা হয়। জানে আলমের দুটি গাড়িতেও আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়। অবশেষে পুলিশ এসে পরিস্থিতি সামাল দেয়। পথঘাট ফাঁকা করে দেয়। মাগুরপুকুর এলাকার সমস্ত দোকান ও আড়ত বন্ধ রাখা হয়। কোথাও যাতে জমায়েত না হয় তারও ব্যবস্থা করে ডায়মন্ড হারবার জেলা পুলিশ। বসানো হয় পুলিশ পিকেটও।

এর পরে জোড়া খুনের আতঙ্ক কাটিয়ে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরছে মগরাহাটের মাগুরপুকুর এলাকা। চারশো পরিবার-সহ হাজার দুয়েক মানুষের বাস মাগুরপুকুরে। তাঁদের উপার্জন নির্ভর করে মাছ চাষ ও কলা বাগানের উপর। তাঁরা জানাচ্ছেন, মাগুরপুকুরে জানে আলমের সম্রাজ্য ভাঙনের পথে এখন।

জানে আলমের হাতে খুন হওয়া বরুণ চক্রবর্তী ও মলয় মাখাল– দু’জনেই এলাকাবাসীর কাছে জনপ্রিয় ছিলেন। তাই তাঁদের মৃত্যু সকলের কাছেই বেদনাদায়ক। জানে আলমের ফাঁসির দাবিও উঠেছে। জানে আলমের মতো দ্বিতীয় কোনও শক্তি যেন এলাকার শান্তি নষ্ট না করতে পারে, পুলিশের কাছে সেই আবেদনই করেছেন এলাকাবাসী।

‘হাঁসখালির মেয়েটি কি রেপ হয়েছে, না প্রেগন্যান্ট ছিল, লাভ অ্যাফেয়ার্স তো ছিলই’: মুখ্যমন্ত্রী

You might also like