Latest News

সীমাহীন সুবিধাবাদী, সপরিবারে শুধু নিতেই জানে, শুভেন্দুকে তীব্র আক্রমণ কুণালের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কুণাল ঘোষ যেন শুভেন্দু অধিকারীকে আক্রমণ করা রুটিন করে ফেলেছেন।

মুকুল রায়কে পিএসি চেয়ারম্যান ঘোষণা করার পর বিজেপি গতকালই জানিয়ে দিয়েছিল তারা আর কোনও কমিটির চেয়ারম্যান পদ নেবে না। তারপরই শনিবার কুণাল তোপ দাগলেন শুভেন্দুর বিরুদ্ধে। শুধু শুভেন্দু নন। কুণালের নিশানায় গোটা অধিকারী পরিবারই।

বিরোধী দলনেতাকে ইংরাজিতে বলে লিডার অফ অপজিশন। যার শর্ট ফর্ম এলওপি। এদিন কুণাল টুইটে লিখেছেন, “LOP= limitless opportunist. সস্তা রাজনীতির জন্য বিজেপির কয়েকজনকে বিধানসভা কমিটির চেয়ারম্যান পদ ছাড়তে বাধ্য করা হল। আর তুমি নিজে পদ আঁকড়ে বসে।”

এখানেই থামেননি রাজ্যসভার প্রাক্তন সাংসদ। তিনি লিখেছেন, “প্রতিবাদের দম থাকলে নতুন বিধায়কদের বঞ্চিত না করে নিজে ইস্তফা দিলে বুঝতাম!! সপরিবারে শুধু নিতেই জানে। ওর রাজনীতির জন্য ত্যাগ করবে অন্যরা।”

ভোট পর্ব থেকেই কুণাল শুভেন্দুর বিরুদ্ধে আক্রমণের মহড়া শুরু করে দিয়েছিলেন। আর পাল্টা প্রতিক্রিয়ায় শুভেন্দু বলতেন, “যে চিট ফান্ড মামলায় সাড়ে তিন বছর জেল খেটেছে তার কথার জবাব দেব না।”

কয়েকদিন আগেই কুণাল সলিসিটর জেনারেল তুষার মেটার বাড়ি চলে গিয়েছিলেন। কিন্তু আগে সাক্ষাতের সময় না থাকায় তাঁকে ঢুকতে দেয়নি নিরাপত্তারক্ষীরা। সেই সময়ে কুণাল বলেছিলেন, প্রমাণ করে দিলাম আগে থেকে কথা বলেই শুভেন্দু এই বাড়িতে এসেছিলেন। হঠাত্‍ করে দরজার সামনে গাড়ির হর্ন বাজাল আর দরজা খুলে গেল গল্পটা তেমন নয়।

তুষার-শুভেন্দু বৈঠক নিয়ে তৃণমূল রাষ্ট্রপতির কাছ পর্যন্ত গিয়েছে। সিসিটিভি ফুটেজ প্রকাশের দাবি করে উপর্যুপরি টুইট করেছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। শাসকদলের বক্তব্য, কেন্দ্রের সলিসিটর জেনারেল সিবিআইয়ের আইনজীবী। তিনি কী ভাবে নারদ মামলায় অভিযুক্তের সঙ্গে বৈঠক করেন।

তবে পর্যবেক্ষকদের অনেকের মতে, এদিনের টুইটে কুণাল আসলে বিজেপি বিধায়কদের মধ্যে শুভেন্দুকে খাটো করতে চেয়েছেন। বোঝাতে চেয়েছেন, বিজেপি বিধায়কদের বঞ্চিত করেছেন বিরোধী দলনেতা। অথচ নিজে পদ আঁকড়ে রয়েছেন।

You might also like