Latest News

তৃণমূলের ঘরে মিষ্টি খেলেন দিলীপ, খড়্গপুরে রাজনৈতিক সৌজন্যের নজির

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের বাড়ি গিয়ে মিষ্টি খেলেন দিলীপ ঘোষ। না, এর মধ্যে কোন‌ও রাজনীতি নেই। খড়্গপুর সদরের প্রাক্তন বিধায়ক তথা খড়্গপুর পুরসভা প্রশাসক মণ্ডলীর প্রধান প্রদীপ সরকারের মাতৃ বিয়োগ হয় সপ্তাহখানেক আগে। মঙ্গলবার তাঁর মায়ের পারলৌকিক ক্রিয়ার অনুষ্ঠান ছিল। সেই অনুষ্ঠানেই সমবেদনা জানাতে আসেন বিজেপির জাতীয় সহ সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

দিলীপ ঘোষ ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে খড়গপুর সদর কেন্দ্র থেকে নির্বাচিত হন। ২০১৯ এর লোকসভা নির্বাচনে তিনি মেদিনীপুর কেন্দ্র থেকে জয়ী হলে খড়্গপুর সদর কেন্দ্রে উপনির্বাচন হয়। সেই উপনির্বাচনে বিজেপিকে হারিয়ে জয়ী হয়েছিলেন তৃণমূলের প্রদীপ সরকার।

সেদিক থেকে দেখতে গেলে দিলীপ ঘোষ ও প্রদীপ সরকার পরস্পরের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী। এবারের বিধানসভা নির্বাচনেও তৃণমূল প্রদীপবাবুকে প্রার্থী করেছিল। যদিও বিজেপি প্রার্থী অভিনেতা হিরণের কাছে তিনি পরাজিত হন।

দিলীপ ঘোষ জানান তিনি এই মুহূর্তে খড়্গপুরে আছেন। তাই প্রদীপবাবুর মাতৃবিয়োগের কথা জানতে পেরে তিনি দেখা করতে আসেন। তিনি বলেন, “প্রদীপদা এখানকার এমএলএ ছিলেন, একসঙ্গে রাজনীতি করেছি আমরা। আজ ওঁর মা চলে গেছেন, কঠিন সময়। আমি ছিলাম খড়্গপুরে, তাই খবর পেয়ে এলাম। শ্রদ্ধা জানিয়ে গেলাম।”

দিলীপ ঘোষের এই আসা যথেষ্ট ইতিবাচকভাবে দেখছেন প্রদীপবাবু। এই প্রসঙ্গে তিনি খড়্গপুরের রাজনৈতিক সৌজন্যের ঐতিহ্যের কথা তুলে ধরেন। বলেন, “খড়্গপুর সবসময় সৌজন্যের রাজনীতি দেখিয়েছেন। যখন জ্ঞানসিং মারা যান, তখন মুখ্যমন্ত্রী কলকাতা থেকে ওঁর জন্য চিকিৎসার ব্যবস্থা করেছিলেন, গান স্যালুটের ব্যবস্থা করেছিলেন। রাজনৈতিক মতপার্থক্য থাকতে পারে। কিন্তু সৌজন্যের রাজনীতি বহাল রাখাই খড়্গপুরের রীতি। উনি (দিলীপ ঘোষ) আমাদের বাড়িতে এসেছেন, সে জন্য আমি ধন্যবাদ জানিয়েছি।”

মিনি ইন্ডিয়া বলে পরিচিত খড়্গপুরে রাজনৈতিক পালাবদল অত্যন্ত সুপরিচিত ঘটনা। তবে সেখানে রাজনৈতিক নেতা-নেত্রীদের মধ্যে সৌজন্যের কখনও ঘাটতি দেখা যায়নি। এ দিনের ঘটনায় সেটা আরও একবার স্পষ্ট হয়ে গেল।

You might also like