Latest News

হাইওয়েতে নবাবি চালে চলছে গরু, পিছনে সাইকেলের বেল বাজতেই রক্তারক্তি জামালপুরে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নবাবি চালে হাইওয়ে (Highway) দিয়ে চলছিল দু’টি গরু (Cow)। সঙ্গে ছিলেন তার মালিকও। পিছনে আসছিল সাইকেল। সাইড চাওয়ার জন্য গরুটির পিছনে বেল বাজান আরোহী। দুঃস্বপ্নেও ভাবেননি, সামান্য বেল বাজানোর এমন মাসুল দিতে হবে! বেল শুনেই মেজাজ চটে গিয়ে বেপরোয়া হামলা (Attack) চালাল এক গরু। মারাত্মক ভাবে জখম করল সাইকেল আরোহীকে। পূর্ব বর্ধমানের জামালপুর (Jamalpur) মেমারি-তারকেশ্বর রাজ্য সড়কের এই ঘটনায় জামালপুর গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি সাইকেল আরোহী।

জানা গেছে, গরুর হামলা ও গুঁতোয় জখম ওই সাইকেল আরোহীর নাম অজয় দুর্লভ। বছর তেইশের ওই যুবকের বাড়ি জামালপুর ১ গ্রাম পঞ্চায়েতের হাড়ালা গ্রামে। পেশায় তিনি দিন মজুর। অজয় জানিয়েছেন, আজ, রবিবার, বেলা ১০টা নাগাদ তিনি সাইকেলে চেপে বাড়ি থেকে বেরিয়ছিলেন জামালপুর যাবেন বলে।

হাইওয়ে দিয়ে যাওয়ার সময়ে এক ব্যবসায়ী বিশাল দেহী একটি বলদ গরু এবং আরও একটি গরু সঙ্গে নিয়ে মেমারি-তারকেশ্বর রোড ধরে হেঁটে খানিক দূরের সেলিমাবাদ গ্রামের দিকে যাচ্ছিলেন। অজয়ের দাবি, বলদ গরুটি এদিক-ওদিক করতে করতে গোটা রাজ্য সড়ক পথ ধরে নবাবি মেজাজে হাঁটছিল। সাইকেল নিয়ে ওভারটেক করতে পারছিলেন না তিনি। তাই বলদ গরুটিকে পাশ কাটিয়ে তিনি যাতে হাড়ালা মোড় থেকে জামালপুরের দিকে যেতে পারেন, সে জন্য গরুটির সামনে সাইকেলের বেল বাজিয়ে ছিলেন। তাতেই মেজাজ হারিয়ে বিশালদেহী ওই বলদ গরুটি তাঁর উপর চড়াও হয়।

অজয় জানিয়েছেন, আচমকা তাঁকে এলোপাথাড়ি গুঁতোতে শুরু করে গরুটি। গুঁতিয়ে তাঁকে সাইকেল থেকে রাস্তার উপরে ফেলে দেয়। পড়ে যাওয়ার পরেও গুঁতানো বন্ধ হয়নি তার। অজয় জানান, গরুর গুঁতোয় তাঁর ডান হাত ও মাথায় গুরুতর চোট লাগে। ঘটনাস্থলে থাকা লোকজন কোনওরকমে গরুটির কাছ থেকে সরান তাঁকে।

রক্তাক্ত অবস্থায় অজয়কে উদ্ধার করে জামালপুর গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যান স্থানীয়রাই। সেখানে অজয়ের ডান হাতের ক্ষতয় ৬টি এবং মাথায় ৪টি সেলাই করেন চিকিৎসকরা। অজয়ের দাবি, ওই গরুর মালিক-ব্যবসায়ী অবশ্য এই ঘটনার জন্য শুধু দুঃখ প্রকাশ করেই দায় সেরেছেন।

তবে এটি কেবলই বিচ্ছিন্ন একটি ঘটনা নয়। হাড়ালা গ্রামের বাসিন্দারা দাবি করেছেন, দিনের বেলায় গরু নিয়ে ব্যবসায়ীদের এই পথ ধরে যাতায়াত বন্ধ করুক প্রশাসন। নয়তো এমন ঘটনার হাত থেকে পথচারীদের রেহাই মিলবে না।এদিন গরুর হামলা সত্ত্বেও অজয় দুর্লভ বরাতজোরে প্রাণে বেঁচে গিয়েছেন। স্কুলের কোনও বাচ্চা ছেলে-মেয়ে যদি এমন হামলার মুখে পড়ত, তাহলে হয়তো প্রাণেই বাঁচানো যেত না!

জমা জলে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে মৃত্যু শিশুর! হরিদেবপুরে শোকের ছায়া, উস্কে গেল দমদমের স্মৃতি

You might also like