Latest News

মূল্যবৃদ্ধি রোধের ব্যর্থতা ঢাকতেও মোদীর হাতিয়ার নেহরু

দ্য ওয়াল ব্যুরো : কোভিডের তৃতীয় ওয়েভের (Third Wave) সময় দেশ জুড়ে বেড়েছে জিনিসপত্রের দাম। কিন্তু সোমবার সংসদের বাজেট অধিবেশনে (Budget Session) মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে কংগ্রেসকে বিঁধলেন প্রধানমন্ত্রী। এক্ষেত্রে ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরুকে (Jawaharlal Nehru) উদ্ধৃত করেন তিনি। তাঁর কথায়, “প্রথম প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, যদি কোরিয়ায় কিছু ঘটে, এখানে জিনিসপত্রের দামের ওপরে তার প্রভাব বাড়ে। একবার ভেবে দেখুন, মূল্যবৃদ্ধি কী সাংঘাতিক সমস্যা।”

পরে তিনি বলেন, কোভিড অতিমহামারী সত্ত্বেও বর্তমানে মুদ্রাস্ফীতি ৫.২ শতাংশে বেঁধে রাখা গিয়েছে। কিন্তু ইউপিএ-র আমলে মুদ্রাস্ফীতি হয়েছিল ১০ শতাংশ।

বিরোধীদের দোষারোপ করে মোদী বলেন, দেশ জুড়ে কোভিড ছড়িয়ে পড়ার জন্য তারাই দায়ী। পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য যে সমস্যা সৃষ্টি হয়েছিল, তার জন্যও দায়ী বিরোধীরাই। তাঁর কথায়, “বিরোধীরা ইতিবাচক কিছু করেনি। তারা কখনই মানুষকে বলেনি, কোভিড রুখতে গেলে কী ধরনের সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।” মহারাষ্ট্রে ও দিল্লিতে বিরোধী দলের সরকারের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনারাই শ্রমিকদের সমস্যায় ফেলেছেন।

কংগ্রেস সম্পর্কে তিনি বলেন, তারা সব সীমা লঙ্ঘন করেছে। তাঁর কথায়, “কোভিডের প্রথম ওয়েভের সময় আমরা লকডাউন করেছিলাম। হু বলেছিল, যে যেখানে আছেন, সেখানেই থাকুন। কিন্তু মুম্বই রেলওয়েতে কংগ্রেস পরিযায়ী শ্রমিকদের রেলের টিকিট দিয়েছিল। তারা চাইছিল, শ্রমিকরা দেশের বিভিন্ন প্রান্তে যান ও কোভিড ছড়িয়ে পড়ুক।”

দিল্লি সরকারের সমালোচনা করে মোদী বলেন, তারা পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ি ফেরার জন্য বাসের ব্যবস্থা করেছিল। উত্তরপ্রদেশে ও আরও কয়েকটি প্রদেশে প্রথমদিকে করোনা সংক্রমণ খুব তীব্র হয়নি। কিন্তু বিরোধীদের জন্য পরবর্তীকালে সংক্রমণ ব্যাপক বেড়ে যায়।

মোদী বলেন, কেউ কেউ ভেবেছিল, অতিমহামারীর ফলে আমার ভাবমূর্তি নষ্ট হবে। তিনি বিরোধীদের উদ্দেশে প্রশ্ন তোলেন, “এই দেশ কি আপনাদের নয়? দেশের মানুষের দুঃখ বা আনন্দ কি আপনাদেরও দুঃখ বা আনন্দ নয়?”

You might also like