Latest News

কোভিড আক্রান্ত এনামুল, ১৪ দিন হোম আইসোলেশনে থেকে হাজিরার নির্দেশ সিবিআইয়ের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: কোভিড টেস্টে পজিটিভ রিপোর্ট এল গরু-পাচার কাণ্ডে মূল অভিযুক্ত ও ধৃত এনামুলের। আজ সকালে নিজাম প্যালেসে সিবিআইয়ের দফতরে হাজিরা দেওয়ার সময়েই এনামুল দাবি করেছিল, তার করোনা হয়েছে। তবে সে কোনও রিপোর্ট দেখাতে পারেনি নিজের কোভিড হওয়ার সপক্ষে। সিবিআই অবশ্য এনামুলের মুখের কথা না শুনে তাকে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে নিয়ে গিয়ে টেস্ট করায়। কয়েক ঘণ্টা পরেই হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, কোভিড পজিটিভ এনামুল।

সূত্রের খবর, এখনও পর্যন্ত লিখিত রিপোর্ট না এলেও মৌখিক ভাবে জানা গিয়েছে হাসপাতালের সূত্রে। হেভিওয়েট কেস বলে বিবেচনা করে আগাম রিপোর্ট জানানো হয়েছে। লিখিত রিপোর্ট তৈরি করতে আর খানিকটা সময় লাগবে।

এনামুল কোভিড পজিটিভ জানার পরেই সিবিআই জানিয়েছে, ১৪ দিনের জন্য হোম আইসোলেশনে থাকতে হবে এনামুলকে। নজরদারিতেই থাকবে সে। ১৪ দিন পরে আগামী ২৪ নভেম্বর তাকে সিবিআই দফতরে ফের হাজিরা দিতে হবে, কোভিড রিপোর্ট নেগেটিভ এলে তবেই। সূত্রের খবর, কোভিড পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ হলেই এনামুলকে গ্রেফতার করে হেফাজতে নিতে পারে সিবিআই।

গরু পাচার কাণ্ডে দিল্লিতে এনামুল হককে গ্রেফতার করা হয়েছিল। বাংলায় আনার কথা থাকলেও তাকে আনা হয়নি। দিল্লির বিশেষ সিবিআই আদালত আজ ৯ নভেম্বর সোমবার বেলা ১২টা পর্যন্ত তার অন্তর্বর্তী জামিন মঞ্জুর করে। তবে তার পাশাপাশি এনামুলকে নির্দেশ দেওয়া হয় যে এই সময়ের মধ্যে তাকে কলকাতার সিবিআই দফতরে আত্মসমর্পণ করতে হবে।

এর পরে আজ বেলা পৌনে এগারোটা নাগাদ নিজাম প্যালেসে সিবিআইয়ের অফিসে আসে এনামুল। তবে নিজাম প্যালেসে ঢোকার আগে একপ্রস্থ বাহানা করে সে। বিল্ডিংয়ের নীচে গাড়িতে বসেই সিবিআই অফিসারদের কাছে ফোনে সে দাবি করে, তার করোনা হয়েছে। তাই সে সিবিআই দফতরের ভিতরে যেতে পারবে না।

এনামুলের দাবি শুনে তার কোভিড রিপোর্ট দেখতে চান সিবিআই কর্তারা। কিন্তু তখন রিপোর্ট দেখাতে পারেনি এনামুল। বেশিক্ষণ এসব টালবাহানা, জারিজুরি খাটেনি। শেষ পর্যন্ত নিজাম প্যালেসে ঢুকতেই হয় তাকে। একপ্রকার বাধ্য হয়ে সিবিআই দফতরে যায় সে। কিন্তু জেরা করার আগেই তার দাবি অনুযায়ী কোভিড টেস্ট করানোর সিদ্ধান্ত হয়। তাতেই রেজাল্ট আসে পজিটিভ।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার দিনভর গরু পাচারের তদন্তে কলকাতার একাধিক জায়গায় তল্লাশি চালিয়েছিল সিবিআই। বিএসএফ কর্তা সতীশ কুমারের সূত্র ধরেই এনামুলকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে খবর। সতীশ কুমারের সল্টলেকের বাড়ি এবং মানিকতলার এক ব্যবসায়ীর ফ্ল্যাটে তল্লাশি চালিয়েছিলেন সিবিআই গোয়েন্দারা। এরপর শুক্রবার দিল্লিতে গ্রেফতার করা হয় এনামুল হককে।

শুক্রবার গ্রেফতারের পর শনিবার এনামুলকে কলকাতায় এনে তল্লাশি চালানোর পরিকল্পনা ছিল সিবিআইয়ের। কিন্তু ট্রানজিট রিমান্ডের জন্য এনামুলকে আদালতে তোলার পর সিবিআইয়ের সব পরিকল্পনা ভেস্তে যায়। এনামুলের আইনজীবীরা তার অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে জামিনের আবেদন করেন। এর পর এনামুলকে শর্ত সাপেক্ষে অন্তর্বর্তী জামিন দেয় দিল্লির বিশেষ সিবিআই আদালত।

এবার তো কোভিডের কবলে আক্রান্ত হল সে, দেখা যাক পরবর্তী ধাপের তদন্ত কীভাবে এগোয়।

You might also like