Latest News

পান্ডবেশ্বরে বোমা ফেটে মৃত্যু, জখম আরও ২, যুযুধান পক্ষের মধ্যে রাজনৈতিক উত্তেজনা

দ্য ওয়াল ব্যুরো, পশ্চিম বর্ধমান: ভোটের আগেই বোমাবাজিতে উত্তপ্ত পশ্চিম বর্ধমান। বুধবার গভীর রাতে পান্ডবেশ্বরের জামবাঁধ এলাকায় বোমা তৈরি করার সময় তা ফেটে গিয়ে তিনজন জখম হয়। তাদের মধ্যে ৩৯ বছরের সরবন চৌধুরী নাম একজনের মৃত্যু হয়েছে। বাকি দু’জন বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। রাতের এই ঘটনা নিয়ে বৃহস্পতিবার রাজনৈতিক চাপানউতোর শুরু হয়েছে দুই যুযুধান পক্ষের মধ্যে।

সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া প্রাক্তন বিধায়ক জিতেন্দ্র তিওয়ারি দাবি, ”তাঁকে খুনের ছক কোষছে তৃণমূল এবং পান্ডবেশ্বরে সন্ত্রাস জিইয়ে রাখতে বোমা মজুত করতে শুরু করেছে তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা। গত পাঁচ বছরে পান্ডবেশ্বর শান্তই ছিল। কিন্তু নতুন করে ফের তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে। তাঁদের সাহায্য করছেন পঞ্চায়েত প্রধান ও তৃণমূল প্রার্থী।” তাই রাজ্য সরকারের কাছে এই সন্ত্রাস বন্ধ করার জন্য আবেদন জানিয়েছেন জিতেন্দ্র।

ওয়াকিবহালমহল বলছে, ভোটে পান্ডবেশ্বরে জিতেন্দ্র ও তৃণমূল প্রার্থী নরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তীর মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হতে চলেছে। জিতেন্দ্র তিওয়ারি তৃণমূলের বিধায়ক থাকার সময় থেকে নরেন্দ্রনাথের সঙ্গে তাঁর দ্বন্দ্বের কথা সকলেই জানতেন। তবে একুশে ভোট আসার আগে দলবদল করে জিতেন্দ্র বিজেপিতে যোগ দেন। ফলত নরেন্দ্রনাথকেই ভোটের লড়াইয়ে প্রার্থী করে তৃণমূল। এদিকে বিজেপি প্রার্থী করে জিতেন্দ্রকে।

তবে ঘটনাটিকে তৃণমূল শুধু আদি ও নব্য বিজেপির লড়াই বলেই ব্যাখ্যা করছে। তৃণমূলের বীর বাহাদুর সিং পঞ্চায়েত প্রধানের বলেছেন, ”জিতেন্দ্র তিওয়ারি যা বলছেন, তা সম্পূর্ণ ভুল। এই ঘটনা বিজেপির আদি-নব্যর মধ্যে লড়াইয়ের জের। দুই গোষ্ঠীকর্মীদের মধ্যে ঝামেলার ফলে তারাই বোমা বাঁধার কাজ করছিল। এটা বিজেপির ব্যক্তিগত ঝামেলা। রাতে কিছু জিতেন্দ্রর অনুগামী কিছু যুবক বিজেপিতে যোগদান গিয়েছিল। কিন্তু তাদের সেখানে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। ফলে তারা ফিরে এসে বোমা বাঁধতে শুরু করে ছিল। তাতে বোঝাই যাচ্ছে এটা শুধুই আদি-নব্যের লড়াই। যার মৃত্যু হয়েছে, সে জিতেন্দ্র তিওয়ারির খুব কাছের লোক ছিল।”

অন্যদিকে সংযুক্ত ফ্রন্টের কর্মী জানান, ”পান্ডবেশ্বর এলাকায় বিজেপি ও তৃণমূলের পায়ের নীচে মাটি সরে গেছে। তাই তারা সন্ত্রাস করার জন্য বোমা তৈরি করে সন্ত্রাস ছড়াতে মেতে উঠেছে।”

 

You might also like