Latest News

ভাটপাড়া সংঘর্ষ: অর্জুন-অমিত ফোনে কথা, ব্যারাকপুরের সাংসদের বিরুদ্ধে এফআইআর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর স্ট্যাচুতে মালা পড়ানো নিয়ে রবিবার রণক্ষেত্রের চেহারা নিয়েছিল ভাটপাড়া। বোমা, গুলি, মারামারি—সে যেন যুদ্ধক্ষেত্রের ছবি! তারপর গোটা ঘটনার বিবরণ জানিয়ে লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লাকে চিঠি লিখেছিলেন ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং। তারপর সোমবার অর্জুনের সঙ্গে ফোনে কথা বললেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। জানা গিয়েছে, দু’জনের মধ্যে প্রায় ১৫ মিনিট কথা হয়েছে।

শাহকে অর্জুন জানিয়েছে, গতকাল তাঁকে মেরে ফেলার জন্যই ওই হামলা চালানো হয়েছিল। তাঁর দেহরক্ষীরা না থাকলে গতকাল ওখানে কী হতো বলা মুশকিল।

অন্যদিকে অর্জুন এবং তাঁর বিধায়ক পুত্র পবন সিংয়ের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছে তৃণমূল। পাল্টা এফআইআর দায়ের করেছেন অর্জুনও। তাতে পুরপ্রশাসক গোপাল রাউতসহ পাঁচ জনের নাম রয়েছে।

নেতাজি জয়ন্তীর সকালে বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং বনাম ভাটপাড়ার পুরপ্রশাসক গোপাল রাউতের বাহিনীর সম্মুখ সমর চলেছিল ভাটপাড়ার রাস্তায়। তৃণমূলের দাবি, তাদের আগে থেকেই কর্মসূচি ছিল গোপাল রাউত এসে জাতীয় পতাকা তুলবেন এবং নেতাজির মূর্তিতে মালা দেবেন। কিন্তু তৃণমূল পৌঁছনোর আগেই সেখানে পৌঁছে যান অর্জুন। ছিলেন তাঁর ছেলে তথা ভাটপাড়ার বিধায়ক পবন সিংও।

শাসকদলের বক্তব্য, অশান্তি করবে বলেই অর্জুন বাহিনী এই পরিকল্পনা করেছিল। পাল্টা অর্জুন শিবিরের দাবি, নেতাজির উপর দখল কায়েম করতে চাইছে তৃণমূল।

ভাটপাড়ার বর্তমান পুরপ্রশাসক গোপাল রাউত একসময় ছিলেন অর্জুন সিংয়ের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ। কিন্তু অর্জুন গেরুয়া শিবিরে যোগ দেওয়ার পর, সাংসদ হওয়ার পর এই এলাকার রাজনৈতিক সমীকরণটাই বদলে গিয়েছে। এলাকার দখল কার হাতে থাকবে তা নিয়ে সংঘাত কার্যত রুটিনে পরিণত হয়েছে। তা ছাড়া ভাটপাড়ায় যে কোনও ঘটনা হলেই যে ভাবে অস্ত্র বেরিয়ে পড়ে তাতে অনেকেরই বক্তব্য, বারুদের স্তূপের উপর রয়েছে এই এলাকা। গত কয়েক বছরে একাধিকবার ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার বদলেও ভাটপাড়াকে শান্ত করা যায়নি।

You might also like