Latest News

আজ কলকাতায় তিন জন চিকিৎসকের মৃত্যু কোভিডে! করোনা-যোদ্ধাদের প্রয়াণে শোকের ছায়া

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রাজ্যের চিকিৎসক মহলে বড়সড় ধাক্কার দিন আজ। একই দিনে কোভিডে আক্রান্ত হয়ে মারা গেলেন তিন-তিন জন চিকিৎসক! করোনা-যোদ্ধাদের এই প্রয়াণে চিকিৎসক মহলে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

ওয়েস্ট বেঙ্গল ডক্টর্স ফোরামের তরফে জানানো হয়েছে, আজ, সোমবার করোনা সংক্রমণ প্রাণ কেড়ে নিয়েছে ডক্টর প্রদীপ ভট্টাচার্য, ডক্টর বিশ্বজিৎ মণ্ডল এবং ডক্টর তপন সিনহার। এ ছাড়াও আজ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন প্রখ্যাত চিকিৎসক হিমাদ্রি সেনগুপ্তও। তবে তিনি করোনায় সংক্রামিত ছিলেন না বলেই জানা গেছে।

সূত্রের খবর, শ্যামনগরের বাসিন্দা, ভাটপাড়া অঞ্চলের ডাক্তার প্রদীপ ভট্টাচার্য খুবই জনপ্রিয় ছিলেন এলাকায়। তিনি কোনও হাসপাতালের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন না, ব্যক্তিগত ভাবে রোগী দেখতেন। এলাকাবাসী বিপদে-আপদে প্রায়ই পাশে পেয়েছেন তাঁকে। পঞ্চাশের কোঠায় বয়স ছিল ডাক্তারবাবুর। দিন কয়েক আগে কোভিড উপসর্গ দেখা দেয় তাঁর। পরীক্ষায় রিপোর্ট পজিটিভ এলে মেডিকা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

প্রদীপবাবু এলাকাবাসীর মধ্যে এতই জনপ্রিয় ছিলেন, যে তাঁর চিকিৎসার খরচ জোগানোর জন্য এলাকাবাসীরা চাঁদা দিয়ে টাকাও তুলেছিলেন। কিন্তু শেষরক্ষা হল না। আজ মারা গেছেন তিনি।

ব্যারাকপুরের আর এক চিকিৎসক, ডক্টর বিশ্বজিৎ মণ্ডলও আজ মারা গেলেন কোভিডে। তিনি জনপ্রিয় চক্ষুবিশেষজ্ঞ ছিলেন। দিন কয়েক আগে ফর্টিস হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাঁকে, করোনা সংক্রমণ নিয়ে। তবে চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছিলেন না তিনি। শেষে ভেন্টিলেটর সাপোর্ট দেওয়া হয় তাঁকে, তবু বাঁচানো যায়নি। আজ মারা গেছেন তিনিও।

কোঠারি হাসপাতালের সঙ্গে যুক্ত সিনিয়র শল্যচিকিৎসক তপন সিনহাও আজ হার মানলেন কোভিড যুদ্ধে। ৬৩ বছর বয়সি এই কার্ডিওলজিস্ট চিকিৎসক অ্যাপোলো হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন বেশ কিছু দিন ধরেই। অবশেষে আজ কোভিড প্রাণ কেড়ে নিল তাঁর।

You might also like