Latest News

দোকানে ঢুকে পর পর গুলি, চন্দ্রকোনায় চাঞ্চল্য

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দুষ্কৃতীদের গুলিতে গুরুতর জখম হলেন এক ব্যক্তি। শনিবার সন্ধেয় ঘটনাটা ঘটেছে চন্দ্রকোনা টাউনের বওড়া গ্রামে। ঘটনায় এখনও পর্যন্ত একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মূল অভিযুক্ত পলাতক।

স্থানীয়দের কথায়, রাত তখন ৮টা। নিজের দোকানেই বসেছিলেন সৌমিত্র রানা ওরফে সন্তু। দোকানের সামনে এসে দাঁড়ায় একটি মারুতি গাড়ি। তার থেকে নামে জনা চার-পাঁচ ব্যক্তি। প্রত্যেকের হাতেই আগ্নেয়াস্ত্র। দোকানে ঢুকেই তারা এলোপাথাড়ি গুলি চালাতে শুরু করে। রক্তাক্ত লুটিয়ে পড়েন সৌমিত্র। তাঁর চিৎকার শুনে ছুটে আসেন এলাকার বাসিন্দারা। আততায়ীদের একজনকে ধরেও ফেলেন তাঁরা। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় চন্দ্রকোনা টাউন থানার পুলিশ।

ক্ষীরপাই হাসপাতালে প্রথমে ভর্তি করা হয় সৌমিত্রকে। পুলিশ জানিয়েছে, তাঁর অবস্থার ক্রমেই অবনতি হচ্ছে। রাতের দিকে তাঁকে ঘাটাল হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়।

ঘাটালের জলসারার বাসিন্দা সৌমিত্র বওড়া এলাকায় সিমেন্টের মিস্ত্রির কাজ করতেন। পুলিশ জানিয়েছে, এই ঘটনার পিছনে পারিবারিক যোগ রয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীদের জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ জানতে পারে ঘটনার দিন যারা দোকানে ঢুকে গুলি চালিয়েছিল তাদের মধ্যে সৌমিত্রর এক শ্যালিকার স্বামী বর্ষা রানাও ছিল। তাকে দোকান থেকে বেরিয়ে গাড়িতে উঠতে দেখেছেন এলাকার অনেকেই। ধৃত ব্যক্তিকে জেরা করেও এই ব্যাপারে নিশ্চিত হয়েছে পুলিশ। ধৃতের নাম কার্তিক শাট। সে ঘাটালের গম্ভীর নগর এলাকার বাসিন্দা। পুলিশকে সে জানিয়েছে, গোটা ঘটনার ছক কষেছিল বর্ষাই। ঘটনার পরই সে এলাকা ছাড়া। তাকে খুঁজছে পুলিশ। বাকি অভিযুক্তদেরও খোঁজ শুরু হয়েছে।

 

You might also like