Latest News

লটারিতে কোটিপতি ভ্যানচালক দীপক, টিকিট নিয়ে সটান হাজির রায়গঞ্জ থানায়

দ্য ওয়াল ব্যুরো : ভুটভুটি বা মোটরভ্যান চালিয়ে জীবন চলছিল তাঁর। বাড়িতে স্ত্রী ও চার কন্যা সন্তান রয়েছে। কষ্টেসৃষ্টে কোনওক্রমে দিন গুজরান হচ্ছিল তাঁদের। উত্তর দিনাজপুর রায়গঞ্জের বড়ুয়া গ্রামের বাসিন্দা ভ্যানচালক দীপক দাস দিনবদলের আশায় মনে মনে চাইছিলেন কোনও আশ্চর্য ঘটনার। তবে কঠোর পরিশ্রমের যে বিকল্প নেই, এই সত্যও জানেন তিনি। তাই পরিবারের মুখে হাসি ফোটাতে অক্লান্ত পরিশ্রম করতেন তিনি। আচমকা ঘুরে গিয়েছে তাঁর জীবনের মোড়। লটারি কেটে রাতারাতি কোটিপতি হয়ে গিয়েছেন ভ্যানচালক দীপক।

জানা গিয়েছে, দীপক দাস যন্ত্রচালিত ভ্যান চালিয়ে সংসার চালালেও ভাগ্য ফেরাতে মাঝেমধ্যেই কিনতেন লটারির টিকিট। কখনওসখনও পাঁচশো, হাজার টাকাও পেয়েওছেন তিনি। প্রতিদিনের মতো রোজগারের আসায় মঙ্গলবারও ভুটভুটি ভ্যান নিয়ে বেরিয়েছিলেন ভ্যানচালক দীপক। সেদিন দুপুরেই রায়গঞ্জ শহরের অশোকপল্লি এলাকা থেকে একটি ছ’টাকার লটারির টিকিট কাটেন। কিন্তু সন্ধ্যায় রেজাল্ট মেলাতে গিয়ে একেবারে বার তাজ্জব বনে যান। তাঁর টিকিটের নম্বরে পাঁচশে-হাজার নয়, কোটি টাকার পুরস্কার মিলেছে। প্রথমে নিজের চোখকে বিশ্বাস করতে পারছিলেন না দীপক। বারবার মিলিয়ে তাঁর ধন্দ কাটে, বুঝতে পারেন জ্যাকপট জিতেছেন তিনি।

দীপক দাস জানিয়েছেন, দেড় বছর ধরে তিনি লটারির টিকিট কেনেন। এর আগেও টিকিট কেটে পাঁচশো বা হাজার কয়েক টাকা মিলেছে। মঙ্গলবার যে তাঁর ওপর ‘ভাগ্যলক্ষ্মী প্রসন্ন’ হবেন, ভাবতেও পারেননি। বাড়িতে স্ত্রী ছাড়াও চার কন্যা সন্তান রয়েছে তাঁর। মেয়েদের পড়াশোনা আর ভবিষ্যৎ নিয়ে বেজায় চিন্তায় থাকতেন সব সময়। লটারি পাওয়ায় এখন বেশ নিশ্চিন্ত তিনি। চার মেয়ের ভবিষ্যৎ আর একটা পাকা বাড়ি তৈরির স্বপ্ন এবার পূরণ হবে বলে খুশি ঝরে পড়ছে তাঁর চোখেমুখে। শুনেছেন অনেকে লটারিতে কেটিপতি হন। তাঁর নিজের জীবনেও যে এমন ঘটবে তা কোনওদিন কল্পনাতেও আনতে পারেননি।

দীপক দাসের লটারি পাওয়ার ঘটনায় খুশি প্রতিবেশীরাও। তাঁরা জানিয়েছেন, দীপক ভুটভুটি ভ্যান চালিয়ে কষ্টেসৃষ্টে কোনওক্রমে সংসার চালাতেন। তার ওপর তাঁর চারটি মেয়ে। ফলে গরিব মানুষের পক্ষে যেমন হয়, মেয়েদের ভবিষ্যৎ নিয়ে বাবা হিসেবে বেশ চিন্তিত থাকতেন। সংসারের হাল ফেরার আশায় মাঝেমধ্যে লটারি কাটতেন। লটারি একধরনের নেশা। দীপক অবশ্য বড় অংকের লটারি কাটতেন না। অল্প টাকার টিকিট কাটতেন। তাতে তিনি কোটি টাকা জেতায় প্রতিবেশীরা সকলেই আনন্দিত। মঙ্গলবার রাতে লটারির টিকিট নিয়ে সটান রায়গঞ্জ থানায় হাজির হন দীপক। কোটিপতি ভ্যানচালককে দেখতে ভিড় করেন শহরের অনেকেই। রাতে পুলিশি নিরাপত্তায় দীপককে তাঁর গ্রামের বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হয়।

You might also like