Latest News

সংস্কার শুরুর আগেই খাল বুজিয়ে তৈরি রাস্তা, হইচই চন্দ্রকোনায়

দ্য ওয়াল ব্যুরো, পশ্চিম মেদিনীপুর : এ যেন ছিল বিড়াল, হল রুমাল। দিন কয়েক আগেই আধবোজা কংসাবতী ক্যানাল বুজিয়ে শুরু হয়েছিল রাস্তা তৈরির কাজ। খাতায় কলমে বুধবার ক্যানালের সংস্কার কাজ শুরু হওয়ার আগে এই ঘটনা নিয়ে শোরগোল পড়ে গেল গোটা গ্রামে। গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান অবশ্য দাবি করেছেন, কিছুই জানা নেই তাঁর।

চন্দ্রকোনা ২ নম্বর ব্লকের কু্ঁয়াপুর গ্রাম। চাষের জলের জন্য এই গ্রামের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া খাল সংস্কারের দাবিতে সরব হয়েছিলেন এলাকার মানুষ। এলাকাবাসীর দাবি মেনে বরাদ্দ হয় ক্যানেল সংস্কারের টাকাও। বুধবার থেকেই সেই কাজ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু খাতায়-কলমে ক্যানেল থাকলেও বাস্তবে সেই ক্যানেলের এখন অস্তিত্বই নেই। সেখানে এখন মোরামের রাস্তা।

বিজেপির অভিযোগ, ক্যানেল সংস্কারের নামে খাল বুঝিয়ে রাস্তা তৈরি করেছে তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েত। ইতিমধ্যেই চন্দ্রকোনা ২ নম্বর ব্লকের বিডিওর কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে বিজেপি নেতৃত্ব। এলাকার বিজেপি নেতা যাদব সামন্ত বলেন, “এই ক্যানেলের জলের উপর নির্ভর করে দশটি গ্রামের মানুষ চাষবাস করত। হঠাৎ করে তৃণমূলের নেতারা তা বুজিয়ে দিল। নিশ্চয়ই তৃণমূল নেতাদের কোনও খারাপ উদ্দেশ্য আছে। আমরা চাই পুনরায় ক্যানেল খনন করা হোক। তা না হলে বৃহত্তর আন্দোলনে নামব।”

যদিও সম্পূর্ণ অভিযোগ অস্বীকার করে তৃণমূল পঞ্চায়েতের প্রধান শঙ্কর ঘোষ বলেন, “কে বা কারা ক্যানেল বুজিয়েছে আমার জানা নেই। আমি জানি বুধবার থেকে ক্যানেল সংস্কার শুরু হবে।”

চন্দ্রকোনা ২ নম্বর ব্লকের বিডিও শাশ্বতপ্রকাশ লাহিড়ী বলেন, “অভিযোগ পেয়েছি। ওখানে ক্যানেল বুজিয়ে রাস্তা তৈরি করা হয়েছে। অথচ একশো দিনের প্রকল্পে আগামীকাল থেকে ক্যানাল সংস্কারের কাজ শুরু হওয়ার কথা। পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। যে কাজের জন্য ব্যয় বরাদ্দ হয়েছে সে কাজই হবে। এটুকু বলতে পারি।”

You might also like