Latest News

‘শাড়ি টেনে খুলে দিল তৃণমূল’, সোনারপুরে হাউমাউ কান্না নির্দল মহিলা প্রার্থীর

দ্য ওয়াল ব্যুরো

হাউমাউকরে কাঁদছেন এক মহিলা। একটি বুথের সামনে দাঁড়িয়ে চিৎকার করছেন। আর বলছেন, ‘ভিতরে তৃণমূলের (TMC) ১০০ ছেলে ঢুকে ভোট লুঠ করছে। আমরা প্রতিবাদ করতে গেছি বলে আমার শাড়ি টেনে খুলে দিল ওরা!’ রাগ, অপমান ঠিকরে বেরচ্ছে তাঁর গলা দিয়ে।

রাজপুর সোনারপুর পুরসভার (Sonarpur) ৩৫ নম্বর ওয়ার্ডের ৩৮৯ নম্বর বুথে নির্দল প্রার্থী মহুয়া দাসের শাড়ি খুলে নেওয়ার চেষ্টার অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। যদিও শাসকদল তাঁদের বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

আরও পড়ুনঃ Adhir Chowdhury: অধীরের গাড়ি আটকে নাড়ুগোপালের বিক্ষোভ, উত্তেজনা বহরমপুরে

ঘটনার খবর পেয়ে সংবাদ মাধ্যমের প্রতিদনিধিরা ঘটনাস্থলে এসে ছবি তুলতে গেলে তাঁদের মারধর করা হয়, ক্যামেরা কেড়ে নেওয়া হয়। সমস্ত ঘটনা পুলিশের সামনেই ঘটলেও পুলিশ কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি বলেই অভিযোগ নির্দল প্রার্থী মহুয়া দাসের।
মহুয়ার স্বামীর বক্তব্য, বুথের ভিতরে লাগানো সিসিটিভিগুলি অন্যদিকে ঘুরিয়ে দিয়ে ভোট লুঠ হচ্ছে। প্রিসাইডিং অফিসার, পুলিশ—কেউ কোনও ব্যবস্থা নিচ্ছে না। পুলিশ সিগারেট খেতে খেতে ঘুরছে। আর বুথের ভিতর ভোট লুঠ হয়ে যাচ্ছে। এই ভোট প্রহসন।

বাংলার ভোটে মহিলাদের লাঞ্ছিত হওয়ার ঘটনা কম নেই। ২০১৩-র পঞ্চায়েত ভোটে হুগলির গোঘাটের রাস্তায় প্রাক্তন ফরওয়ার্ড ব্লক বিধায়ক বিশ্বনাথ কারকের স্ত্রীকে একই ভাবে রাস্তায় ফেলে শাড়ি খুলে নেওয়ার ফুটেজ দেখা গিয়েছিল সংবাদমাধ্যমে। সেবারও অভিযোগ উঠেছিল শাসকদলের দিকেই। এদিনও সোনারপুরে কাঠগড়ায় সেই তৃণমূলই।

You might also like