Latest News

সিয়াচেনের বরফে জমে গিয়েছিলেন জওয়ান! ৩৮ বছর পর স্বাধীনতা দিবসে ফিরছে দেহ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ৩৮ বছর পর সিয়াচেনে (Siachen) বরফের মাঝখান থেকে উদ্ধার হল হারিয়ে যাওয়া সৈনিকের দেহ। সীমান্তে পাহারা দিতে গিয়ে নিখোঁজ হয়ে গিয়েছিলেন তিনি। ১৯৮৪ সালের পর থেকে আর খোঁজ মেলেনি। ভারতের ৭৫ তম স্বাধীনতার বর্ষপূর্তির আবহে হারানো সেই জওয়ানের (Jawan) খোঁজ পাওয়া গেল।

জানা গেছে, জওয়ানের নাম চন্দ্রশেখর হরবোলা। ১৯ কুমায়ুন রেজিমেন্টে কর্মরত ছিলেন তিনি। ১৯৮৪ সালে ইন্ডিয়ান আর্মির (Indian Army) ২০ জন জওয়ানের একটি দল সিয়াচেনে গিয়েছিল। পাকিস্তানের সঙ্গে যুদ্ধে যোগ দেওয়াই ছিল তাঁদের উদ্দেশ্য।

সীমান্তে পাহারা দেওয়ার সময় হঠাৎ আর্মির এই দলটি তুষারঝড়ের কবলে পড়ে। ভয়ঙ্কর সেই বরফের ঝড় চারদিক ঢেকে দেয় পুরু তুষারের চাদরে। ১৫ জন জওয়ানের দেহ অতিকষ্টে উদ্ধার করে গিয়েছিল। বাকি ৫ জন ছিলেন নিখোঁজ। হরবোলাও তাঁদের মধ্যে ছিলেন।

হরবোলার স্ত্রী শান্তি দেবী বর্তমানে কুমায়ুনের সরস্বতী বিহার কলোনিতে থাকেন। সোমবার, স্বাধীনতা দিবসের রাতে হরবোলার দেহ তাঁর কাছে এসে পৌঁছনোর কথা। তারপর পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় হরবোলার শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে।

শান্তি দেবী বলেন, ১৯৮৪ সালে যে বছর থেকে তাঁর স্বামীকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি, ততদিনে তাঁদের বিয়ের বয়স হয়েছিল ৯ বছর। তাঁদের দুই ছোট ছোট মেয়ে ছিল। এখন তারা বড় হয়ে গেছে।

দেশের কাজে প্রাণ দিয়েছেন স্বামী, তাই তাঁকে নিয়ে গর্ব করেন শান্তি দেবী। ৩৮ বছর আগের কোনও এক জানুয়ারি মাসে শেষবারের মতো বাড়ি এসেছিলেন হরবোলা। তাড়াতাড়ি ফিরবেন বলে কথাও দিয়ে গিয়েছিলেন। তাড়াতাড়ি হল না, তাঁর বাড়ি ফিরতে সময় লেগে গেল দীর্ঘ ৩৮ বছর। কফিনবন্দি হয়ে ঘরে ফিরবেন হরবোলা, চোখের জল মুছে তাই অপেক্ষার প্রহর গুনছেন শান্তি দেবী।

আরও পড়ুন: পতাকা তুলতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট! আসানসোলে বাড়ির ছাদেই মৃত্যু যুবকের

You might also like