Latest News

শহরে হাজির দেশ-বিদেশের তাবড় কার্ডিওলজিস্টরা, এ রাজ্যের চিকিৎসা নিয়ে কী বলছেন তাঁরা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ‘সোসাইটি ফর কার্ডিয়াক ইন্টারভেনশন’-এর (Society for cardiac intervention) উদ্যোগে হৃদরোগ বিশেষজ্ঞদের ১৪তম বার্ষিক সম্মেলন (annual conference) চলছে কলকাতায়। পূর্ব কলকাতায় (Kolkata) বাইপাসের ধারের একটি পাঁচতারা হোটেলে শনিবার ও রবিবার (৩ সেপ্টেম্বর ও ৪ সেপ্টেম্বর) এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন দেশ ও বিদেশের হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকেরা। করোনা পরবর্তী সময়ে হৃদরোগের চিকিৎসা থেকে শুরু করে বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হচ্ছে সম্মেলনে। শনিবার সম্মেলনের প্রথম দিন সেখানে উপস্থিত ছিলেন শহরের তাবড় তাবড় হৃদরোগ বিশেষজ্ঞরা। ছিলেন এসসিআই প্রেসিডেন্ট ডক্টর মনোতোষ পাঁজা, সম্মেলনের সাংগঠনিক সম্পাদক ডক্টর দিলীপ কুমার, আয়োজক কমিটির চেয়ারম্যান ডক্টর শুভানন রায়, সম্পাদক ডক্টর ডি পি সিনহা এবং কোষাধ্যক্ষ ডক্টর পি সি মণ্ডল।

Society for cardiac intervention

এদিন দ্য ওয়ালের প্রতিনিধিকে এই সম্মেলন সম্পর্কে কিছু কথা বলতে গিয়ে ডক্টর দিলীপ কুমার জানান, ‘এই সম্মেলনে গোটা দেশ থেকে কমপক্ষে দেড়শোর কাছাকাছি প্রতিনিধি হাজির হয়েছেন। এছাড়াও এসেছেন টেকনিশিয়ান, ফ্যাকাল্টি সদস্যরাও। ইউরোপ, আমেরিকার বিভিন্ন দেশ থেকেও হাজির হয়েছেন হৃদরোগ বিশেষজ্ঞরা। বর্তমানে হৃদরোগের চিকিৎসা ব্যবস্থা নিয়ে অডিও-ভিজ্যুয়াল আলোচনাও হয়েছে।’

Society for cardiac intervention

উল্লেখ্য, এই সময়ে দাঁড়িয়েও কলকাতা-সহ উত্তর পূর্বের বহু মানুষ চিকিৎসার জন্য দক্ষিণ ভারতে অথবা বিদেশে যায়। নিজেদের রাজ্যে বা ঘরের কাছে কি এই সুবিধা মিলছে না? এই প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, ‘আজ সম্মেলনে এই বিষয়টিও তুলে ধরেছিলেন বাইরে থেকে আগত ডাক্তাররা। তাঁরা বলছেন, এখানে এত ভাল কাজ হচ্ছে। তারপরেও কেন এই রাজ্য থেকে রোগীরা সাউথে কিংবা বিদেশে চিকিৎসা করাতে যাচ্ছে! এই বিষয়েই আমি সবাইকে বলতে চাই, আপনারা দক্ষিণ ভারতে যে ট্রিটমেন্ট পাচ্ছেন, সেই একই চিকিৎসা এখানেও মিলবে। শুধু আমাদের উপরে একটু ভরসা রাখতে হবে। রাজ্যের বাইরে যেতে হবে না।

কম ঘুমই কি বাড়াচ্ছে হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি? কী অনিয়ম হচ্ছে রোজকার জীবনে

কোভিডের পরে হৃদরোগের চিকিৎসায় কতটা পরিবর্তন এসেছে এবং তা কীভাবে সাধারণ মানুষের কাজে লাগছে, সেসব নিয়ে বিভিন্ন হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ নিজেদের কেস স্টাডি এখানে সবার সামনে তুলে ধরেন। মনে করা হচ্ছে, এর ফলে সেখানে উপস্থিত থাকা তরুণ কার্ডিওলজিস্টদের অনেক সুবিধা হবে। আধুনিক সময়ে কিছু নতুন প্রযুক্তি, যা রোগীদের ক্ষেত্রেও বেশ লাভদায়ক হতে চলেছে, সেগুলো নিয়েও আলোচনা হয় এই সম্মেলনে।

You might also like