Latest News

বাংলাদেশ: দুর্গাপুজোয় কর্মীদের সতর্ক থাকতে হবে, নির্দেশ হাসিনার, জানালেন আওয়ামি লিগ নেতা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বিগত বছরের তিক্ত অভিজ্ঞতা মনে রেখে বাংলাদেশে (Bangladesh) এবার দুর্গাপুজোর (Durgapuja) দিনগুলি বাড়তি সতর্কতার ব্যবস্থা করেছে শেখ হাসিনার (Sheikh Hasina) সরকার। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর দল আওয়ামী লিগও (Awami league) এবার পুজোর দিনগুলিতে শান্তি-সম্প্রীতি বজায় রাখতে বিশেষ উদ্যোগ নিচ্ছে। দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের আজ বলেন, আওয়ামী লিগের নেতা-কর্মী-সমর্থকদের বলা হয়েছে পুজোর সময় সতর্ক থাকতে।

আগামীকাল থেকে শুরু হতে যাওয়া চারদিনের দুর্গোৎসবে মন্দিরে, মণ্ডপে আওয়ামী লিগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের সতর্কভাবে পাহারা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী কাদের।

তিনি বলেন, সাম্প্রদায়িক শক্তি প্রকাশ্যে যতটা নিস্ক্রিয় ভেতরে ভেতরে ততটা সক্রিয় আছে। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের দুর্গাপুজা উপলক্ষে আগের বছরের বিভিন্ন ধরনের অনাকাঙ্খিত ঘটনার প্রেক্ষিতে এবার সরকার সতর্ক রয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি মন্দিরে, মণ্ডপে আওয়ামী লিগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের সতর্কভাবে পাহারা দিতে হবে। নেত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে নির্দেশ দিচ্ছি। ওবায়দুল কাদের আজ পূজা উদযাপন পরিষদের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন।

পুজোয় চাকরি প্রার্থীদের আন্দোলনে অনুমতি হাইকোর্টের, পুলিশকে ভর্ৎসনা বিচারপতির

প্রসঙ্গত, গত বছর বাংলাদেশের কুমিল্লায় একটি পুজো মণ্ডপে কোরান অবমাননার মিথ্যা অভিযোগ করে সাম্প্রদায়িক বিভেদ তৈরি করা হয়। তার জেরে বেশ কিছু পুজো মণ্ডপে অগ্নিসংযোগ, ভাঙচুর করা হয়। আক্রান্ত হয় মন্দির। হিন্দু সম্প্রদায়ের বেশ কিছু মানুষ হতাহত হন। সেই ঘটনার রেশ এসে পড়ে পশ্চিমবঙ্গে। প্রতিবাদে পথে নামে বিজেপি। বাংলাদেশ সরকার অবশ্য সঙ্গে সঙ্গেই দুষ্কৃতকারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়। যদিও সে দেশের গণমাধ্যম এবং সুশীল সমাজের একাংশের অভিযোগ, সরকারি পদক্ষেপে ফাঁক আছে।

এবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান দিন সাতেক আগে সাংবাদিক সম্মেলন করে জানিয়ে দেন, গতবারের তিক্ত অভিজ্ঞতার পুনরাবৃত্তি ঠেকাতে বেশ কিছু নতুন পদক্ষেপ করা হচ্ছে। প্রতিটি মণ্ডপে পুলিশের পাশাপাশি স্থানীয়দের স্বেচ্ছাসেবী বাহিনীকে ২৪ ঘণ্টা মণ্ডপ পাহারায় সজাগ থাকতে বলা হয়েছে। বলা হয়েছে, প্রতিটি মণ্ডরে সিসি ক্যামেরার নজরদারির ব্যবস্থা করতে। এছাড়া, সরকার জোর দিচ্ছে মোবাইল বাহিনীর উপর। যাতে ঘটনা-দুর্ঘটনা ঘটলে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে যায় নিরাপত্তা বাহিনী।

আওয়ামি লিগ নেতা বলেন, এই দুর্গাৎসবে সক্রিয়ভাবে দরকার হলে মন্দিরে মন্দিরে পাহারায় থাকার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পাশাপাশি নেতাকর্মীরা থাকবে, এটা আশা করি। সতর্ক ও সস্ক্রিয়ভাবে থেকে সব ধরনের উদ্বেগ দুর করার আহ্বান জানাচ্ছি। আপনারা আতঙ্কিত হবেন না, উদ্বিগ্ন হবেন না। আমরা আপনাদের পাশে আছি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লিগ মনে প্রাণে চিন্তা চেতনায় একটি অসাম্প্রদায়িক দল এবং আমাদের প্রায় প্রতিদিনের বক্তব্যে আমাদের অসাম্প্রদায়িক চেতনার যে বিষয়টি আমরা ধারন করি এবং সভা-সমাবেশে, বিক্ষোভে দৃঢ় কন্ঠে উচ্চারণে আমরা কখনও দিধাগ্রস্থ হই না।

কাদের বলেন, শেখ হাসিনার সরকারের ১৩ বছরের সময়কালের মধ্যে গতবার ব্যতিরেখে কোনও অনাকাঙ্খিত ঘটনা ঘটেনি। ১২ বছর কোনও দুর্গাপুজোয় সামান্যতম কোনও বিশৃঙ্খলা বলুন, সন্ত্রাস বলুন, কোনও ঘটনাই ঘটেনি। মাঝে মাঝে কিছু কিছু ঘটনা ঘটেছে। গতবার সতর্কতার একটু ঘাটতি ছিল। সাম্প্রদায়িক শক্তি, জঙ্গিবাদী শক্তি, তারা বাইরে তাদেরকে যতটা নিস্ক্রিয় মনে হয়, ভেতরে ভেতরে তারা তার চেয়ে সক্রিয়।

তিনি বলেন, আমরা পরিস্কারভাবে বলতে চাই, সনাতন ধর্মাবলম্বীরা তাদের সবচেয়ে বড় যে উৎসব, সেই উৎসবকে সামনে রেখে আতঙ্কে থাকবে, উদ্বিগ্ন থাকবে, এটা হতে পারে না।

ওবায়দুল কাদের বলেন, হিন্দু-মুসলমান-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান সবার ভোটেরই মূল্য সমান। আপনারও ভোটার, এদেশের নাগরিক আপনারা। দ্বিতীয়, তৃতীয় শ্রেণির নাগরিক, এটা কারোরই মনে করা উচিত না। কারও ভোটের মূল্য বেশি কারও ভোটের মূল্য কম নয়।

মন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনা আওয়ামী লিগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মৃণাল কান্তি দাস, সাংস্কৃতিক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক ড. সেলিম মাহমুদ, দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া সহ বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের নেতারা উপস্থিত ছিলে

You might also like