Latest News

Shashi Panja: নারী অধিকার নিয়ে কেরলে সিপিএম সরকারের অনুষ্ঠানে নজর কাড়লেন মমতার মন্ত্রী শশী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: স্বাধীনতার ৭৫ তম বর্ষ উপলক্ষে কেরলে (Kerala) অনুষ্ঠিত হয়ে গেল মহিলা আইন প্রণেতাদের দু’দিনের সর্বভারতীয় সম্মেলন। রাজধানী তিরুবনন্তপূরমে এই সম্মেলনের আয়োজক ছিল কেরলের সিপিএম সরকার। বৃহস্পতিবার সম্মেলনের উদ্বোধন করেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। শুক্রবার সম্মেলনে অন্যতম বক্তা ছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) সরকারের নারী ও শিশু কল্যাণ দফতরের মন্ত্রী ডা. শশী পাঁজা (Shashi Panja)। গত দশ বছর ওই দফতর সামলাচ্ছেন শশী। জানা গিয়েছে, সম্মেলনে তাঁর বক্তব্য খুবই প্রশংসিত হয়।

শশী দৃষ্টান্ত দিয়ে দেখান, কীভাবে চলতি আইন ও প্রশাসনিক ব্যবস্থার মধ্যে নারীর প্রতি বৈষম্য বিরাজ করছে। বলেন, সম কাজে সম মজুরির ন্যায্য দাবির ক্ষেত্রেও অনেক সময় বাধা হয়েছে আইনে অসমতা। দৃষ্টিভঙ্গিজনিত সমস্যাও এর পিছনে রেখাপাত করে বলে মনে করেন তিনি (Shashi Panja)।

শশী (Shashi Panja) বলেন, এই পরিস্থিতির পরিবর্তনে বড় ভূমিকা নিতে পারে সরকারের রাজনৈতিক স্বদিচ্ছা। প্রসঙ্গত, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দল ও সরকারে মহিলাদের প্রতিনিধিত্ব অনেকটাই নিশ্চিত করেছেন। সংসদ মহিলাদের জন্য এক তৃতীয়াংশ আসন সংরক্ষণে এখনও একমত হতে না পারলেও তৃণমূল লোকসভা ও বিধানসভায় সেই অনুপাত নিশ্চিত করেছে।

বাংলার নারী ও শিশু কল্যাণ মন্ত্রীর মতে, স্বাধীনতা পরবর্তী ৭৫ বছরে অনেক আইন তৈরি হয়েছে মহিলাদের অধিকার নিশ্চিত করার জন্য। কিন্তু সেগুলির মধ্যেও নানা ধরনের ফাঁকফোকর রয়েছে। আবার আইনের বর্তমান সুবিধাগুলির বিষয়ে মহিলারা ওয়াকিবহাল নন বলেও আক্ষেপ করেন শশী। বলেন, এই কারণেই, মজুরিতে বৈষম্য, নারী ভ্রূণ হত্যা, যৌন উৎপীড়নের মতো ঘটনা ঘটতে পারছে।

নারী অধিকার ও আইনি দুর্বলতা বিষয়ক ওই আলোচায় আর এক বক্তা ছিলেন কেরল হাইকোর্টের বিচারপতি অনু শিবরামন। তিনি বলেন, সমস্যা দুটি। এক. অপর্যাপ্ত আইন। দুই. বর্তমান আইনের দুর্বলতা। তাঁর মতে, অনেক সময়ই কিছু ঘটনার প্রেক্ষিতে আইন তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। ফলে গভীর বিচার বিশ্লেষণের সুযোগ থাকছে না।

দিদি বলেছেন, ঘুঘুর বাসায় ঢিল মারা চালিয়ে যাবি, বললেন সেই নির্মল

You might also like