Latest News

বন্ধন ব্যাঙ্কের নামে নামকরণ হল সল্টলেক সেক্টর ফাইভ মেট্রো স্টেশনের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: সেক্টর ফাইভ মেট্রো স্টেশনের নাম হল ‘বন্ধন ব্যাঙ্ক সল্টলেক সেক্টর ফাইভ মেট্রো স্টেশন’। ওই স্টেশনের সমস্ত বিজ্ঞাপনের সত্ত্বও অধিগ্রহণ করল বন্ধন ব্যাংক। সল্টলেক সেক্টর ফাইভ মেট্রো স্টেশনের ব্র্যান্ডিং রাইটসের জন্য বন্ধন ব্যাঙ্কের সঙ্গে কলকাতা মেট্রোর চুক্তি হয়েছে।

গত বছর নভেম্বর মাসে মেট্রো যাত্রীদের স্মার্ট কার্ডের ব্র্যান্ড করার মধ্যে দিয়ে কলকাতা মেট্রোর সঙ্গে যে সম্পর্ক শুরু হয়েছিল এই নতুন উদ্যোগের মাধ্যমে তা আরও জোরদার হল।

তথ্য বলছে, দিল্লি মেট্রোতে এমন ব্র্যান্ডিং চুক্তি আগেও ছিল, একেবারে গোড়া থেকেই রয়েছে। কলকাতার মূল মেট্রোতে এই নিয়ে আলোচনা চলছে এখনও। এমনটা করা গেলে রেলওয়ের রোজগারের পথ অনেকটাই প্রশস্ত হবে। তবে চুক্তি থাকলেও, কোনও বেসরকারি সংস্থাকে একটা গোটা স্টেশনের ব্র্যান্ডিং রাইটস দিয়ে দেওয়ার ঘটনা এই প্রথম ঘটল ভারতীয় রেলওয়ের ইতিহাসে।

সল্টলেক সেক্টর ফাইভেই বন্ধন ব্যাঙ্কের জন্ম হয়েছিল। ব্যাঙ্কের রেজিস্টার্ড অফিস আর হেড অফিসও সেক্টর ফাইভে। পাশাপাশি এই এলাকা কলকাতার প্রধান আইটি হাবও বটে। এখন লকডাউনের কারণে বন্ধ থাকলেও এমনিতে এই স্টেশনে প্রচুর যাত্রী সমাগম হয়। ভবিষ্যতে তা বাড়ার সম্ভাবনা আরও বেশি। কারণ হাওড়া ময়দান-নিউটাউন লাইন আর এয়ারপোর্ট-নিউ গড়িয়া লাইনের যাত্রীদের এই স্টেশনে গাড়ি বদলাতে হবে। সেক্টর ফাইভে বিরাট সংখ্যক পেশাদার, বাণিজ্যিক ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থাকায় এই মেট্রো স্টেশন শিগগির বয়স এবং সামাজিক অবস্থান নির্বিশেষে বহু মানুষের যাতায়াতের জায়গা হয়ে উঠবে বলে মনে করা হচ্ছে। সেক্ষেত্রে মেট্রোই তাঁদের পছন্দের যানবাহন হবে স্বাভাবিক ভাবেই।

কয়েক মাস আগে বন্ধন ব্যাঙ্কই প্রথম বিএফএসআই ব্র্যান্ড হিসাবে কলকাতা মেট্রোর সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছিল স্মার্ট কার্ডের ব্র্যান্ডিং-এর জন্য। কলকাতা মেট্রোর ইতিহাসে ওই চুক্তিও ছিল প্রথম। তার আগে কখনও এই ব়্যাপিড ট্রানজিট সিস্টেম কোনও বেসরকারি সংস্থার সাথে হাত মিলিয়ে বিপুল সংখ্যক ব্যবহারকারীকে একটা এক্সক্লুসিভ মাধ্যমে কাজে লাগায়নি।

এই চুক্তি নিয়ে বন্ধন ব্যাঙ্কের এমডি এবং সিইও, চন্দ্রশেখর ঘোষ বললেন, “কলকাতা মেট্রোর সঙ্গে যুক্ত হতে পেরে আমরা নিজেদের সৌভাগ্যবান মনে করছি। সেক্টর ফাইভের সঙ্গে বন্ধন ব্যাঙ্কের সবার প্রাণের যোগ। তাই আমরা খুশি যে ভারতীয় রেলওয়ে এই ধরনের প্রথম পার্টনারশিপের জন্য আমাদের বেছে নিয়েছে। কাজ শুরু করার সময় থেকেই বন্ধন ব্যাঙ্ক এই শহরের ভালবাসা পেয়েছে। এই যৌথ উদ্যোগ কলকাতার নাগরিকদের প্রতি এবং সেক্টর ফাইভের যাত্রীদের প্রতি আমাদের কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপনের আর একটা সুযোগ দিল।”

মেট্রো রেলওয়ের জেনারেল ম্যানেজার, মনোজ যোশী এ বিষয়ে মন্তব্য করেন, “মেট্রো রেলওয়ে অত্যন্ত আনন্দিত যে বন্ধন ব্যাঙ্কের মত একটা দেশীয় সংগঠন স্টেশন ব্র্যান্ডিং-এর এই নতুন উদ্যোগে আমাদের সঙ্গী হয়েছে। কলকাতায় বন্ধন ব্যাঙ্কের নাম ঘরে ঘরে। এই শহরের জন্য প্রথম, এমন আরো একটা উদ্যোগ নেওয়ার জন্য আমি ব্যাঙ্ককে অভিনন্দন জানাই।”

You might also like