Latest News

সায়নী ঘোষকে গ্রেফতার করল আগরতলা পুলিশ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: তৃণমূল নেত্রী ও অভিনেত্রী সায়নী ঘোষকে (sayoni ghosh) গ্রেফতার করা হল ত্রিপুরায়! আজ, রবিবার দুপুরে আগরতলা পুলিশ তাঁকে দীর্ঘ জেরা করার পরে গ্রেফতার করে।

রাত পোহালেই ত্রিপুরায় অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সফর। তার ঠিক ২৪ ঘণ্টা আগে এই গ্রেফতারি নিয়ে উত্তাল ত্রিপুরা। তৃণমূলের অভিযোগ, আগরতলা পূর্ব মহিলা থানা ঘিরে বিজেপি রীতিমতো তাণ্ডব চালিয়েছে। দুষ্কৃতীদের হামলায় রক্তাক্ত হয়েছেন একাধিক তৃণমূল কর্মী এবং নেতা।

এর পরে গ্রেফতারও করা হল সায়নীকে (sayoni ghosh)। অভিযোগটা ঠিক কী?

ঘটনার সূত্রপাত গতকাল সন্ধেয়। আগরতলার আশ্রম চৌমহনীতে একটি সভা ছিল বিজেপির। তাতে মূল বক্তা ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব। সেই সভার পরেই আগরতলা পূর্ব মহিলা থানায় পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করা হয়, মুখ্যমন্ত্রীর সভা চলাকালীন নাকি সায়নী ঘোষ একটি স্করপিও গাড়িতে করে দ্রুতগতিতে সভার দিকে এগিয়ে আসতে থাকেন। সেই গাড়িতে ‘দুষ্কৃতী’ ছিল বলেও দাবি করা হয় পুলিশের কাছে। আরও অভিযোগ, সায়নীর সেই গাড়ি থেকে ছোড়া হয়েছে ঢিল-পাথর, সভার উদ্দেশে করা হয়েছে গালাগেলি। এর পরে দ্রুত গতিতে চম্পটও দেয় গাড়িটি।

চুঁচুড়ার কুম্ভকর্ণ! পুলিশ এসে, তালা ভেঙে ঘুম ভাঙাল

এই ঘটনায় মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তা বিঘ্নিত হয়েছে বলে অভিযোগ দায়ের হলে, সেই ভিত্তিতেই মামলা রুজু করেছে পুলিশ। এর পরেই আজ রবিবার দুপুরে সায়নীকে ডাকা হয়েছিল থানায়। দীর্ঘ জেরার পরে গ্রেফতার করা হয় তাঁকে। এর পরেই টুইট করে ক্ষোভ উগরে দেন কুণাল সরকার। দাবি করেন, অন্যায় ভাবে গ্রেফতার করা হয়েছে সায়নীকে।

সায়নীকে থানায় ডাকার পর থেকেই তাঁর সঙ্গে থানায় রয়েছেন সুস্মিতা দেব, অর্পিতা ঘোষ ও কুণাল ঘোষ। সায়নীকে না ছাড়া পর্যন্ত তাঁরা থানাতেই থাকবেন বলে জানানো হয়েছে। এর মধ্যেই বিজেপির বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ উঠেছে থানায় ঢুকে হামলা চালানোর। থানার বাইরে লাঠি হাতে, হেলমেট পরে বিজেপির দুষ্কৃতীরা জমায়েত করেছে বলে দাবি তৃণমূলের।

স্থানীয় তৃণমূল নেতা সুবল ভৌমিকের দাবি, ‘‘পুলিশকে কাজে লাগিয়ে তৃণমূলের পথরোধ করার চেষ্টা করছে বিজেপি। নেতা কর্মীদের উপর ইটবৃষ্টি চলছে, পুলিশ নীরব দর্শক।’’

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা ‘সুখপাঠ’

You might also like