Latest News

সপ্তক আর ইমামি-ইস্টবেঙ্গলের মিডিয়া ম্যানেজার নন, তাঁর সঙ্গে সম্পর্ক নেই লাল-হলুদের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ইমামি ইস্টবেঙ্গলের (Emami Eastbengal) মিডিয়া ম্যানেজার (Media Manager) পদে আর নেই সপ্তক ঘোষ (Saptak Ghosh)। মিডিয়া ম্যানেজার পদে তাঁকে নিয়োগ করাকে কেন্দ্র করে লাল হলুদ সমর্থকরা ক্ষোভের জ্বালামুখ খুলে দিয়েছিলেন সোশ্যাল মিডিয়ায়।

ইমামি-ইস্টবেঙ্গল এ ব্যাপারে প্রকাশ্যে এখনও কিছু জানায়নি। তবে ক্লাব সূত্রে বলা হচ্ছে, সপ্তকের সঙ্গে আর কোনও সম্পর্ক নেই লাল হলুদের। এ ব্যাপারে সমর্থকদের আবেগকেই আগে রাখছে ইমামি-ইস্টবেঙ্গল। ক্লাব কর্তারা ঘরোয়া আলোচনায় স্পষ্ট করেই বলছেন, সপ্তক আর তাঁদের কেউ নন।

সপ্তক সংবাদসংস্থা পিটিআই-সহ বেশ কিছু সংস্থায় কাজ করেছেন সাংবাদিক ও ফ্রিলান্সার হিসেবে। কিন্তু তিনি ব্যক্তিগতভাবে মোহনবাগান সমর্থক। শুধু তা নয়, তিনি অতীতে সোশাল মিডিয়ায় ইস্টবেঙ্গল সম্পর্কে ধারাবাহিক তির্যক মন্তব্যও করতেন। সেই কারণে তাঁর নিয়োগের খবর রটতেই ক্ষোভের দাবানল তৈরি হয়। কিছু কিছু সমালোচনা শিষ্ঠাচারের মাত্রাও ছাড়ায়।

তিলোত্তমায় ঝুলন আবেগ, ইডেনে স্ট্যান্ড চাকদহ এক্সপ্রেসের নামে

ঘটনা হল, ইমামি-ইস্টবেঙ্গল সম্প্রতি মিডিয়া ম্যানেজার নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দিয়েছিল। মিরাকি নামের একটি পেশাদার সংস্থাকে দায়িত্ব দেওয়া হয় নিয়োগের জন্য। তারাই সপ্তকের আগুপিছু না দেখে তাঁকে নিয়োগ করেন বলে জানা গিয়েছে।

এ ঘটনার কার্যকারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে শনিবার ইস্টবেঙ্গলের এক ক্লাব কর্তা বলেন, মনোরঞ্জন ভট্টাচার্য যেবার সবুজ-মেরুন জার্সি গায়ে চাপিয়েছিলেন, সেবার লাল-হলুদের ঘরের ছেলেকে নিয়ে উদ্বেল হয়েছিল মোহন-জনতা। কারণ একটাই, ভাবটা এই ছিল যে ‘ওদের লোককে আমরা ঘরে তুলে নিয়েছি।’

তাঁর কথায়, খেলোয়াড় জীবনে কখনও মোহনবাগান ছাড়া অন্য ক্লাবের জার্সি গায়ে চাপাননি সুব্রত ভট্টাচার্য। কিন্তু বাগানের বাবলু ভট্টাচার্য যেবার ইস্টবেঙ্গলের কোচ হয়েছিলেন সেবার আকাশবাণীর সামনে থেকে ঘোড়ার গাড়িতে চেপে ক্লাব তাঁবু পর্যন্ত নিয়ে যাওয়া হয়েছিল সুব্রত ভট্টাচার্যকে। এক্ষেত্রেও কারণ ছিল সেই একই—ওদের লোককে আমরা তুলে নিয়েছি। কিন্তু মিডিয়া ম্যানেজার মানে তিনি একপ্রকার ক্লাব কর্তা। একজন আদ্যন্ত মোহনবাগান সাপোর্টার কখনওই ইস্টবেঙ্গলের ক্লাব কর্তা হতে পারেন না। মিডিয়া ম্যানেজার তো নয়ই। সমর্থকদের সেই আবেগকেই মর্যাদা দিয়ে সপ্তককে সরিয়ে দিয়েছে ইমামি ইস্টবেঙ্গল।

You might also like