Latest News

‘আমায় ফ্রেম করা হচ্ছে, গ্রেফতারও হতে পারি,’ আদালতে হলফনামা সমীর ওয়াংখেড়ের

দ্য ওযাল ব্যুরো: তাঁকে ভয় দেখানো হচ্ছে, তদন্ত নষ্ট করার চেষ্টা হচ্ছে– এমনটাই দাবি করলেন এনসিবি অফিসার সমীর ওয়াংখেড়ে (Sameer Wankhede)। আদালতে জমা দিলেন হলফনামাও। তাতে তিনি লিখেছেন, শাহরুখ খানের ছেলে আরিয়ান খানকে গ্রেফতার করার মাদক মামলায় ফ্রেম করার চেষ্টা করা হচ্ছে তাঁকে। তাঁকে গ্রেফতারও করা হতে পারে।

শুধু হলফনামাই নয়, নার্কোটিকস কনট্রোল ব্যুরোর জোনাল ডিরেক্টর সমীর ওয়াংখেড়ে মুম্বইয়ের পুলিশ কমিশনারকে লিখিত অভিযোগে জানিয়েছেন, “আমার নজরে একটি বিষয় এসেছে। আমার বিরুদ্ধে মিথ্যে রটানো হচ্ছে। কিছু অজ্ঞাত পরিচয় ব্যক্তি আমার বিরুদ্ধে এমন সব অভিযোগ আনছেন, তাতে আমি নিশ্চিত আমাকে ফ্রেম করা হবে।”

শাশুড়ি-বৌমার দ্বন্দ্ব নয়, তাঁদের সমপ্রেমে স্নান করিয়েছিলেন অপর্ণা সেন

এই প্রথম যে সমীর এমন দাবি করলেন তা নয়, দু’দিন আগেও খোদ এনসিবির তরফে আদালতে হলফনামা দায়ের করে অভিযোগ করা হয়, কখনও হুমকি দিয়ে, কখনও আবার সাক্ষীদের প্রভাবিত করে তদন্তের গতি নষ্ট করার চেষ্টা হচ্ছে। সেই হলফনামা গৃহীত হয়েছে আদালতে।

এর পরেই গতকাল অর্থাৎ রবিবার সমীর ওয়াংখেড়ের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ আনেন আরিয়ানের মাদক মামলার এক প্রত্যক্ষদর্শী কিরণ পি গোসাভি-র দেহরক্ষী প্রভাকর সৈল। ওই কিরণের সঙ্গেই আরিয়ানের একটি সেলফি ভাইরাল হয়। প্রথমে সকলেই মনে করে ওই ব্যক্তি এনসিবির আধিকারিক কিন্তু পরবর্তীকালে জানা যায় ঐ ব্যক্তি এনসিবির কেউ নন। আরিয়ানের খানের বিরুদ্ধে কথা বলার জন্য তাঁকে কোটি কোটি টাকার প্রস্তাব দেওয়া হচ্ছে বলে দাবি সৈলর। সমীর ওয়াংখেড়ের বিরুদ্ধে ৮ কোটি টাকা ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ এনেছেন তিনি। এদিকে গোটা ঘটনার পর থেকে খোঁজ নেই কিরণের।

প্রভাকর সৈল ওই সাক্ষীর আরও দাবি, তাঁকে দিয়ে একটি সাদা কাগজে সই করিয়ে নিয়েছে এনসিবি। প্রাণের ঝুঁকিতে রয়েছেন বলেও জানান তিনি। এই সব ক্ষেত্রেই অভিযোগের আঙুল উঠেছে সমীর ওয়াংখেড়ের দিকে।

সমীর ওয়াংখেড়ে অবশ্য এসব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে জানিয়েছেন, এনসিবি অফিসে অনেক সিসিটিভি আছে। এত সহজে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ তোলা সম্ভব নয়।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা ‘সুখপাঠ’

You might also like