Latest News

সল্টলেকের রাস্তা যেন শতছিদ্র মশারি, যান-যন্ত্রণায় জেরবার উপনগরী

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ঝাঁ চকচকে রাস্তা। মসৃণ রাস্তার ওপর দিয়ে ছুটে চলেছে গাড়ি। এমন দৃশ্য দেখতেই অভ্যস্ত সল্টলেকের (Salt Lake) বাসিন্দারা। কিন্তু বর্তমানে চিত্রটা ভিন্ন। রাস্তার মাঝে মাঝেই গর্তে ভর্তি হয়ে গেছে। শতছিদ্র মশারির দশা রাস্তার। ফলে সল্টলেকের একাধিক পিচ করা রাস্তা এখন বিপদের অশনি সঙ্কেত হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সল্টলেকের রাস্তায় ঘুরলেই চোখে পড়বে একাধিক খানা খন্দের চিত্র। করুনাময়ীর মতো ব্যস্ততম জায়গাতেও রাস্তার মাঝে গর্ত চোখে পড়ে। বাইক বা গাড়ি যেকোনো সময়েই বিপদের সম্মুখীন হতে পারে বলে আশঙ্কা এলাকাবাসীর।

রাস্তার পাশ দিয়ে হেঁটে যাওয়ারও উপায় থাকে না। গর্তে জমে থাকা জল বাঁচিয়ে যেতে গিয়ে বিপদের আশঙ্কা থাকে। এমনকি জমে থাকা জলের ওপর দিয়ে গাড়ি যাতায়াত করায় অসুবিধায় পড়ছেন পথচারীরা।

আরও পড়ুন: ‘হিন্দি রাষ্ট্র ভাষা’, এজেন্টের মন্তব্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড়ের মুখে ক্ষমা চাইল জোমাটো

সল্টলেকের জিডি ব্লকের বাসিন্দা দিলীপ দাস জানান, “সেক্টর ৩ এর প্রবেশের দুই প্রান্তই জল জমে থাকে। স্টেডিয়াম বা হায়াত দুই দিক থেকেই সল্টলেক সংযোগকারী রাস্তার অবস্থা বেহাল। বৃষ্টি হলেই জল জমে যাচ্ছে। করুনাময়ী, জিডি ব্লকের অবস্থা খুব খারাপ।” তিনি আরও জানান, “রাস্তাঘাটে চলতে গেলে বা গাড়ি নিয়ে যাতায়াত করতে অসুবিধা হচ্ছে খুব।”

গর্তে পড়ে যাতে কোনও বাইক আরোহীর বিপদ না হয় সেজন্য সতর্কতা অবলম্বন করা হয়েছে। যেসব জায়গার অবস্থা ভালো নয়, সেইসব জায়গা এড়িয়ে যাওয়ার সংকেত লাগিয়ে দিয়েছে ট্রাফিক। এতে কিছুটা হলেও বিপদ এড়ানো সম্ভব হবে।

পুজোর সময় বন্ধ থাকলেও এই গর্ত মেরামতির কাজ চলছে জোর কদমে। তবে বৃষ্টির জন্য কাজ থমকে গেছে কিছুটা এমনই জানালেন বিধাননগর পৌরসভার চেয়ারম্যান কৃষ্ণা চক্রবর্তী। তিনি বলেন, “সেক্টর-৫ আমাদের আওতায় পড়ে না। তবে বাকি অংশের কাজ চলছে। বৃষ্টির জন্য কাজে ব্যাঘাত ঘটছে ঠিকই। দ্রুত মেরামতির কাজ শেষ হয়ে যাবে।”

আশা করা যায় ফের চেনা রাস্তার চিত্র ফিরে আসবে সল্টলেকের বুকে। মসৃণ রাস্তার ওপর দিয়ে গাড়ি ছুটবে সহজেই। টানা বৃষ্টিতে এমনিতেই অবস্থা সঙ্গীন মানুষের। তারওপর রাস্তার বেহাল দশায় চিন্তার ভাঁজ পড়ছে এলাকাবাসীর কপালে।

পড়ুন দ্য ওয়ালের সাহিত্য পত্রিকা ‘সুখপাঠ’

You might also like