Latest News

বাংলাদেশের মেয়েদের রাজকীয় সংবর্ধনা, ফুলের পাপড়ি বিছানো পথে দেশে ফিরলেন সাবিনারা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ইতিহাস সৃষ্টি করে দেশে ফিরলেন বাংলাদেশের যুব মহিলা ফুটবলাররা (Bangladesh saff women’s Team)। তাঁরা বুধবার বেলা দেড়টার সময় ঢাকা বিমানবন্দরে (Dhaka Airport) পা রাখেন। তাঁদের পথে বিছানো ছিল ফুলের পাপড়ি। দেশে ফেরার পরে তাঁদের ঘিরে শুরু হয়ে যায় উৎসব, উচ্ছ্বাসের বিস্ফোরণ।

এইপ্রথম সাফ ফুটবলে (SAFF Football) জিতল বাংলাদেশ মহিলা দল। বিমানবন্দরে ভালবাসার আতিশয্যে সাবিনা খাতুন, সানজিদা আখতার, কৃষ্ণা রানীদের বেরতে বহু সময় লেগে গিয়েছে। তাঁদের বরণ করে নিতে বিমানবন্দরে ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেলসহ দপ্তরের বাকি শীর্ষ আধিকারিকরা।

সাবাশ বাংলাদেশ! মেয়েদের সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে জিতে ইতিহাস ওপার বাংলার

ফুটবলারদের ঘোরানো হবে ছাদখোলা বাসে। বিমানবন্দরে ছিল ব্যান্ডপার্টি, তাসা। সারাক্ষণ সেটি বাজানো হয়েছে। ছাদখোলা বাসে বিমানবন্দর থেকে মতিঝিলে বাফুফে কার্যালয়ে যাবেন ফুটবলাররা। তাদের সঙ্গে থাকবে মিডিয়া, নিরাপত্তা বাহিনী সহ হাজারো মানুষ। বাসের ছাদে দাঁড়িয়ে তারা দেখতে পাবেন রাস্তার দুই পাশের হাজার হাজার মানুষ করতালি দিয়ে স্বাগত জানিয়েছে ফুটবলারদের।

খেতাব জয়ের পরে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড এবং তমা গ্রুপ ৫০ লক্ষ টাকা করে মোট এক কোটি পুরস্কার অর্থমূল্য দিয়েছে মেয়েদের।

গত ১৯ সেপ্টেম্বর নেপালের কাঠমান্ডুর দশরথ রঙ্গশালা স্টেডিয়ামে নেপালকে হারিয়ে খেতাব পেয়েছেন ওপার বাংলার মেয়েরা। তাঁদের সাহস, খেলার প্রতি দায়বদ্ধতা সকলের নজর কেড়ে নিয়েছে। তাঁরা প্রেরণা হয়ে উঠেছেন দেশের সাধারণ মানুষের কাছে। পাঁচটি ম্যাচের সবেতেই জিতেছেন সাবিনারা। ২৪টি গোল দিয়ে একটি গোল হজম করেছে তারা।

এমন এক সময়ে সাবিনা, সানজিদারা দেশে খেতাব নিয়ে এলেন, যে সময়ে তাঁদের ওপরে ছিল নানা কঠোর ফতোয়া। মেয়েরা কেন হাফপ্যান্ট পরে ফুটবল খেলবেন, সেই নিয়েও কথা হয়েছে। জিতে ফিরে তাঁর জবাব দিলেন তাঁরা।

You might also like