Latest News

রূপা গঙ্গোপাধ্যায় কোথায়? ভোট-বাংলায় দেখাই যাচ্ছে না সাংসদকে

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর তাঁর ইনিংসটা মনে পড়ে? ক্রিস গেইলের মতো ঝোড়ো! কোমরে আঁচল গুঁজে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারের বিরুদ্ধে বিডিও অফিস, সরকারি দফতর, চৌরাস্তার মোড়ে বসে পড়তে দেখা যেত তাঁকে। অনেকে সেই সময় তাঁকে ‘বিজেপির দিদি’ বলতে শুরু করেছিলেন। কিন্তু একুশের ভোটের তাপমাত্রা যখন চড়চড় করে বাড়তে শুরু করে দিয়েছে তখন সেই রূপা গঙ্গোপাধ্যায়কে দেখাই যাচ্ছে না।

বিজেপির দলীয় কর্মসূচি, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর জনসভা, অমিত শাহ বা জগৎ প্রকাশ নাড্ডার কর্মসূচি– ভোট বাংলায় রূপা কই? এক মাত্র টুইটারে দেখা যাচ্ছে তাঁকে। মোদী-নাড্ডা-শাহর কথা টুইট করছেন তিনি।

এ ব্যাপারে জানার জন্য দ্য ওয়াল –এর তরফে তাঁকে ফোন করা হয়েছিল। কিন্তু তিনি ফোন ধরেননি। তাঁকে টেক্সট মেসেজও পাঠানো হয়েছে। কিন্তু তারও জবাব মেলেনি। তিনি জবাব দিলে এই প্রতিবেদনে আপডেট করা হবে।

গেরুয়া আকাশে রূপার যে উল্কাগতিতে উত্থান হয়েছিল তা বেশিদিন স্থায়ী হয়নি। অনেকে বলেন, লকেট চট্টোপাধ্যায়ের হাতে মহিলা মোর্চার ব্যাটন যাওয়ার পর রূপা ক্রমশ আড়ালে চলে যেতে থাকেন। তিনি যে রাজ্যসভার সাংসদ তাও অনেকের খেয়াল থাকে না।

তা ছাড়া মুরলীধর সেন লেনে কান পাতলে শোনা যায়, বঙ্গ বিজেপির যে গোষ্ঠী বিন্যাস রয়েছে তাতে রূপাদেবী রাহুল সিনহাদের দিকে। আবার লকেট চট্টোপাধ্যায়রা দিলীপ ঘোষ শিবিরের বলেই পরিচিত। অনেকের মতে, রাহুল সিনহা যে ভাবে বিজেপিতে কোণঠাসা, পদ হারিয়ে বসেছেন, রূপাও তেমন আবডালে চলে গিয়েছেন।

একটা সময় বামেদের তথা প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের অত্যন্ত সেনধন্য ছিলেন রূপা। শুধু অভিনয় নয়। রূপা ভাল গানও গান। তাঁর অ্যালবাম প্রকাশ করেছিলেন বুদ্ধবাবু। তখন তিনি মুখ্যমন্ত্রী। কিন্তু গেরুয়া শিবিরে যোগদানের পর ভোল পাল্টে ফেলেন রূপা। গলায় গুচ্ছ রুদ্রাক্ষের মালা –সহ ‘দ্রৌপদী’র স্টাইল স্টেটমেন্টই বদলে গিয়েছিল।

যদিও অনেকে বলেন, রূপা যে কায়দায় রাজনীতি করতে শুরু করেছিলেন তার মধ্যে সাবলীলতার চাইতে অতি নাটকীয়তা থাকত বেশি। কাজের চেয়ে বেশি দেখনদারি। মিডিয়ার নজর কাড়ার চেষ্টা। অনেকে এও বলেন, লকেট যতটা স্বাভাবিক কায়দায় রাজনীতি করেছেন, পাড়ুই থেকে পাণ্ডুয়া ছুটে বেরিয়েছেন তা রূপার মধ্যে দেখা যায়নি।

বেশ কয়েক মাস হল রূপাকে দেখা যাচ্ছে না। বছর খানেক আগে একটি ফোন কলের রেকর্ড ফাঁস হয়েছিল। হুহু করে ভাইরাল হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। অভিযোগ ছিল, ওই কল রেকর্ড এক বিজেপি নেতা ও তাঁর বান্ধবীর মধ্যের কথোপকথন। সেখানেও রূপা গঙ্গোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে নানাবিধ অভিযোগ উঠে এসেছিল। যদিও সেই রেকর্ডের সত্যতা দ্য ওয়াল যাচাই করেনি। তারপর থেকেই দেখা যায় রাজনীতির ময়দান থেকে ক্রমশ হারিয়ে যাচ্ছেন রূপা। ইদানিং তাঁর অনুপস্থিতি বেশি করে চোখে পড়ছে বলেই মত অনেকের।

You might also like