Latest News

লালুর সংসারে ফের অশান্তি, এবার নতুন দলও গড়তে পারেন বড় ছেলে তেজপ্রতাপ

দ্য ওয়াল ব্যুরো: দিন কয়েক আগে টুইটে ঘোষণা করেছিলেন বাবার সঙ্গে দেখা করে পদত্যাগ (RJD Clash) করব।

বাবা লালুপ্রসাদ যাদব (Lalu Prasad Yadav), পশুখাদ্য মামলার সব মামলাতেই জামিনে মুক্ত। তবে অসুস্থতার জন্য দিল্লির এইমসে চিকিৎসাধীন তিনি। সুস্থ হলে তাঁর পাটনা ফেরার কথা।

বস্তুত পুরো রাষ্ট্রীয় জনতা দল (RJD) পরিবার যখন তাঁর পাটনা ফেরার অপেক্ষায় তখন বড় ছেলে তেজপ্রতাপ যে কোনও দিন দিল্লি গিয়ে তাঁর সঙ্গে দেখা করতে পারেন।

কিন্তু পদত্যাগ বলতে কি দলত্যাগ বোঝাতে চাইছেন। নাকি, বিধায়ক পদ ছেড়ে দেবেন। স্পষ্ট করেননি তেজপ্রতাপ। কিন্তু বিহারের রাজনীতিতে জোর খবর, লালুপ্রসাদের পার্টি ২৫ তম বছরেই ভাঙতে চলেছে। আর ভাঙনের কারিগর স্বয়ং তাঁর বড় ছেলে।

জনশক্তি পরিষদ নামে একটি প্রতিষ্ঠানের নামে বেশ কিছুদিন ধরেই দলের বাইরে কাজ করছেন তেজপ্রতাপ। গত লোকসভা ভোটের আগে লালু-রাবড়ি মোর্চা গঠন করে হইচই ফেলে দিয়েছিলেন।

সাময়িক বিরতির পর আবার দল গড়ার উদ্যোগ শুরু হয়েছে। আরজেডির বেশ কয়েকজন বিক্ষুব্ধ নেতার সঙ্গে ঘন ঘন বৈঠক করছেন তিনি। তবে, জন সমর্থন কতটুকু মিলবে তা নিয়ে ঘোর সংশয় আছে সব মহলেই।

কেন বারে বারে ফোঁস করেন বিহারের প্রাক্তন স্বাস্থ্যমন্ত্রী তেজপ্রতাপ? তাঁর রাগের আসল কারণ, ছোট ভাই তেজস্বী। দুজনের মুখ দেখাদেখি বন্ধ। কারণ ছোট হয়েও তেজস্বী বেশি গুরুত্ব পাচ্ছে দলে, অভিযোগ লালু-রাবড়ির বড় ছেলের।

নীতীশ কুমারের সঙ্গে জোট থাকার সময় তেজস্বী ছিলেন উপ মুখ্যমন্ত্রী। এখন বিরোধী দলনেতা, দলেরও অন্যতম মুখ এবং বিহারে বিরোধী জোটের আহ্বায়ক তেজস্বী। সব মিলিয়ে দলেই রীতিমত কোণঠাসা তেজপ্রতাপ।

যাদব পরিবারের খবর, বড় ছেলেকে নিয়ে শুধু দলে নয়, বিরোধ আছে লালু প্রসাদ ও রাবড়ি দেবীর মধ্যেও। লালু তেজস্বীকে বাড়তি গুরুত্ব দিচ্ছেন, এমন অভিযোগ খোদ রাবড়ি দেবীর। আবার বড় ছেলের প্রতি রাবড়ির বাড়তি স্নেহ নিয়ে বাকি ছেলেমেয়েদের অসন্তোষ কারও অজানা নয়।

এরই মধ্যে তেজপ্রতাপ নিজের সরকারি বাংলো ছেড়ে মা রাবড়ি দেবীর বাড়িতে এসে উঠেছেন। সেটাও একটি সরকারি বাংলো। সেই বাংলোতেই এক অংশে থাকেন ছোট ছেলে তেজস্বীও।

রেকর্ড গরম, পাঁচ রাজ্যে তাপপ্রবাহের শঙ্কা, অনেক জায়গায় পারদ ছুঁয়েছে ৪৫ ডিগ্রি

You might also like