Latest News

ফিল্মি কায়দায় বাসকে ধাওয়া, ঘোলায় উদ্ধার ১৯০টি বিরল প্রজাতির কচ্ছপ!

দ্য ওয়াল ব্যুরো, উত্তর ২৪ পরগনা: পঞ্চমীর সাতসকালে উত্তর ২৪ পরগনার সোদপুর এলাকায় ঘোলা (Ghola) থানার বিলকান্দা মোড়ে উদ্ধার হল প্রচুর পরিমাণ বিরল প্রজাতির (rare species) কচ্ছপ (turtles)। মেদিনীপুর থেকে আসা একটি বাসের ভিতর থেকে কচ্ছপগুলি উদ্ধার করে বন্যপ্রাণী অপরাধ দমন শাখা। তবে বেশ কিছু কচ্ছপ মরে গিয়েছে।

চতুর্থীতে সারারাত ঠাকুর দেখার পর পঞ্চমীর সকালে সবাই যখন বাড়ি ফিরছে, তখনই ওই ব্যস্ত সময়ের ফাঁকতালে কচ্ছপ পাচারের পরিকল্পনা কষেছিল পাচারকারীরা। তবে সজাগ ছিল বন দফতরও। চতুর্থীর গভীর রাত থেকেই ফাঁদ পেতে বসেছিল তাঁরা। খবর ছিল, অন্ধ্র এবং ওড়িশা পার করে বাংলায় ঢুকে পড়েছে প্রচুর পরিমাণ বিরল প্রজাতির কচ্ছপ। সেগুলো বাসে করে সীমান্ত পার হবে পঞ্চমীর দিনেই। এই পাচার আটকাতে বদ্ধপরিকর ছিল বন্যপ্রাণী অপরাধ দমন শাখা।

চতুর্থীর রাত থেকেই শুরু হয় প্রস্তুতি। রাত তিনটে নাগাদ হাওড়ার সলপ থেকে শুরু হয় অভিযান। নন্দীগ্রাম-বারাসতগামী একটি বাসকে ধাওয়া শুরু করেন তদন্তকারী অফিসাররা। সকাল আটটা নাগাদ বাসটিকে ঘোলা থানার বিলকান্দা মোড়ে দাঁড় করায় অফিসাররা। এরপর বাসের পিছনের ডিকি খুলে দেখা যায় সেখানে একটি ব্যাগ রাখা। সন্দেহ হওয়ায় সেটিকে বের করা হয়। একইসঙ্গে রাস্তাতেই চলে জিজ্ঞাসাবাদ।

এরপর ব্যাগ খুলতেই দেখা যায় উপরে বিভিন্ন রকমের ফুল ভর্তি। সেগুলি সরাতেই নীচে জালের মধ্যে থাকা প্রচুর কচ্ছপ বেরিয়ে আসে। সঙ্গে সঙ্গে বাসটিকে আটক করা হয়। বেশ কয়েকজন পাচারকারী-সহ বাসের ড্রাইভার, খালাসি এবং কন্ডাক্টরকেও আটক করা হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদ করে বাসের পাশে থাকা ডিকি থেকে আরও দুটি ব্যাগ উদ্ধার করা হয়।

বন্যপ্রাণী অপরাধ দমন শাখা জানিয়েছে, মোট ১৭৬টি জীবিত এবং ১৪টি মৃত ‘ইন্ডিয়ান সফ্ট শেল’ প্রজাতির কচ্ছপ উদ্ধার হয়েছে। এগুলি সংরক্ষিত প্রজাতি অর্থাৎ শিডিউল ওয়ান প্রজাতির কচ্ছপ। বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইন, ১৯৭২ অনুযায়ী এদের ধরা, মারা এবং কেনাবেচা শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

উচ্চ প্রাথমিকে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তিতে তারিখ ‘বিভ্রাট’! ভুল স্বীকার করলেন এসএসসি-র চেয়ারম্যান

You might also like