Latest News

তিন কোটিরও বেশি ছোট-মাঝারি দোকানকে আনা হবে জিওমার্টের আওতায়, বিপ্লব আসবে ডিজিটাল ব্যবসায়: মুকেশ আম্বানি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: জিওমার্টের সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপ মিলে গেলে দেশজুড়ে ডিজিটাল ব্যবসায় বিপ্লব আসবে, বলেছেন রিল্যায়ান্স কর্তা মুকেশ আম্বানি। আগামীদিনে তিন কোটিরও বেশি ছোট ছোট, মাঝারি দোকানকে এই ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মের ছাতার তলায় নিয়ে আসা হবে বলে ঘোষণা করেছেন তিনি।

মুকেশ আম্বানির সংস্থা জিও প্ল্যাটফর্মস লিমিটেডে ৪৪ হাজার কোটি টাকার লগ্নি করেছেন ফেসবুকের মালিক মার্ক জুকারবার্গ। জিও প্ল্যাটফর্মের ৯.৯৯ শতাংশ মালিকানা কিনে নিয়েছে ফেসবুক। ফেসবুক-হোয়াটসঅ্যাপের সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধে নতুন ই-কমার্স ব্যবসার উদ্যোগ নিয়েছে রিল্যায়ান্স। দেশের ছোট ব্যবসায়ীদের ডিজিটাল মডেলের আওতায় আনতে রিল্যায়ান্স জিও-র নতুন ই-কমার্স প্ল্যাটফর্ম জিওমার্টকে হোয়াটসঅ্যাপের সঙ্গে জুড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মুকেশ আম্বানি। দেশের ছোট ও মাঝারি দোকান, মুদি, স্টেশনারি দোকান, হকার, ছোট ব্যবসায়ীদের এক ছাতার তলায় আনতে জিওমার্ট ও হোয়াটসঅ্যাপ মিলে তৈরি হচ্ছে নতুন ই-কমার্স মডেল। যার মাধ্যমে অনলাইনেই স্থানীয় দোকান বা বাজার থেকে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্র অর্ডার দেওয়া যাবে। দাম মেটানো যাবে হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমেই। সেই অর্ডার নিয়ে বাড়ির দরজায় পৌঁছে দেবে জিওমার্ট।

রিল্যায়ান্স জিও জানাচ্ছে, মুদির দোকান, ছোট ডিপার্টমেন্টাল স্টোর বা হকারদের অনলাইনে কেনাবেচা করার কোনও রাস্তা এতদিন ছিল না। লকডাউনে তাই এইসব ব্যবসায়ীরাই সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ। জিওমার্ট ও হোয়াটসঅ্যাপ এক হয়ে এই ছোট ব্যবসায়ীদের রোজগারের নতুন রাস্তা খুলে দেবে। দেশের একটা বড় অংশই মেসেজিং প্ল্যাটফর্ম হিসেবে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করে। এখন জিওমার্ট এইসব ছোট স্টোরগুলিকে হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে জুড়ে দেবে। জিনিসপত্র অর্ডার করতে হলে হোয়াটসঅ্যাপেই করা যাবে। পেমেন্টও করা যাবে হোয়াটসঅ্যাপেই। পেটিএমের মতো পেমেন্ট প্ল্যাটফর্ম যাঁদের সড়গড় নয়, তাঁরা সহজে হোয়াটসঅ্যাপেই টাকা মেটাতে পারবেন।

জিওমার্ট আর হোয়াটসঅ্যাপের জুটিতে সুবিধা দুটো। প্রথমত, ছোট ব্যবসায়ীরাও ডিজিটাল কেনাবেচায় অভ্যস্ত হবেন। লকডাউন বা ভবিষ্যতে এমন সঙ্কটের পরিস্থিতি এলে অনলাইনেই গ্রাহকরা জিনিসপত্রের অর্ডার দিতে পারবেন। ডিজিটাল ব্যবসার এক নতুন দিগন্ত খুলে যাবে দেশে। ছোট ব্যবসায়ীদের রুজি রোজগারে টান পড়বে না। দ্বিতীয়ত, সুবিধা রয়েছে গ্রাহকদেরও। বাড়ি বসেই সহজে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস চলে আসবে হাতে। জিওমার্ট যেহেতু রিল্যায়ান্স জিও-র প্ল্যাটফর্ম, কাজেই অফারও চলতে থাকবে বিভিন্ন সময়ে।

ভারতে খুচরো ব্যবসার বাজার দখলে ইতিমধ্যেই জায়গা করে নিয়েছে অ্যামাজন ও ফ্লিপকার্টের মতো সংস্থারা। সেই তালিকায় যোগ হয়েছে জিওমার্ট। রিল্যায়ান্স জানিয়েছে, হোয়াটসঅ্যাপের সঙ্গে মেলবন্ধনের ফলে খুব তাড়াতাড়ি ৩ কোটি ব্যবসায়ী সংস্থাকে এই অ্যাপের সঙ্গে যুক্ত করা যাবে। এর মাধ্যমে সরাসরি আর্থিক লেনদেন করা সম্ভব হবে। এই পদ্ধতিতে ছোট ব্যবসায়ীরা আরও বেশি সংখ্যক কাজের সুযোগ তৈরি করতে পারবেন। কর্মসংস্থানেরও নতুন দিগন্ত খুলে যাবে। সেইসঙ্গে চাষি, স্বাস্থ্য পরিষেবা, মহিলা ও যুব সমাজের উন্নতিতে সাহায্য করবে এই নতুন ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম।

You might also like