Latest News

কোচিং সেন্টারের মিথ্যা প্রতিশ্রুতি বন্ধে নিয়ন্ত্রণ বিধি চালু রাজস্থানে, কী ভাবছে বাংলা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ডাক্তারি-ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের পরীক্ষায় সাফল্যের ১০০ শতাংশ গ্যারান্টি। হাতের মুঠোর সরকারি চাকরি। প্রাইভেট কোচিং সেন্টারের এমন বিজ্ঞাপন চোখে পড়ে সব রাজ্যেই। কাঙ্খিত সাফল্য না পেয়ে অনেকেই প্রতারণার অভিযোগ করে থাকেন কোচিং সেন্টারের বিরুদ্ধে। ব্যর্থ হয়ে পড়ুয়ার আত্মহত্যার ঘটনাও বাড়ছে। এমন পরিস্থিতিতে কোচিং সেন্টারের মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দেওয়া আটকাতে এবং নিয়মের শৃঙ্খলা পরাতে নয়া বিধি চালু করল রাজস্থান সরকার (Regulation on coaching centres to stop false promises )।

প্রতি বছর সারা দেশ থেকে কয়েক লাখ শিক্ষার্থী (Students) উন্নত ভবিষ্যৎ গড়ার লক্ষ্যে রাজস্থানের কোটায় যায়। কোটার দেখাদেখি রাজস্থানের (Rajasthan) অন্যান্য শহরেও এখন শুরু হয়েছে প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার (Exam) প্রস্তুতি নেওয়ার কোচিং সেন্টার (Coaching Centre)। সেগুলি নিজেদের মধ্যে প্রতিযোগিতায় নেমে হামেশাই মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে থাকে। তাতে প্রতারিত হয়ে অনেক শিক্ষার্থী আত্মহত্যার পথ বেছে নেয়। সেই কারণেই অশোক গেহলট সরকার কোচিং গাইডলাইন ২০২২ জারি করেছে।

রাজস্থান সরকারের বক্তব্য, এই নির্দেশিকার ফলে কোচিং ইনস্টিটিউটে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা মানসিক চাপমুক্ত ও নিরাপদ পরিবেশ পাবে। নির্দেশিকা সম্পর্কে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল রাজ্য জুড়ে একটি কোচিং মনিটরিং কমিটি গঠন করা হবে। এতে পুলিশ-প্রশাসনের পাশাপাশি অভিভাবক ও চিকিৎসকরাও যুক্ত থাকবেন।

এর পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের অভিযোগের জন্য একটি অনলাইন পোর্টাল তৈরি করা হবে। যেটি মনিটরিং করবে মুখ্যমন্ত্রীর অফিস। কোচিং শিক্ষার্থীদের নানা পরিষেবা প্রদানের বিষয়টিও এই বিধিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

এ রাজ্যেও বেসরকারি কোচিং সেন্টারগুলির বিরুদ্ধে একই ধরনের অভিযোগ রয়েছে। কিন্তু বাংলায় বেসরকারি কোচিং সেন্টারের উপর নজরদারিতে কোনও রেগুলেটরি বডি কিংবা কোনও বিধি নেই। শিক্ষা দফতরের এক আধিকারিকের ব্যাখ্যা, রাজস্থান এবং দক্ষিণের রাজ্যগুলিতে বেসরকারি কোচিং সেন্টারের ব্যবসা ঘিরে যে ধরনের অনিয়মের অভিযোগ উঠছে বাংলায় তা তুলনায় কম।

কলকাতার একটি বেসরকারি কোচিং সেন্টারের কর্তা বলেন, এ রাজ্যে এখন একশোভাগ সাফল্যের কথা বলে বিজ্ঞাপন দেওয়া অনেকটা বন্ধ হয়েছে হাইকোর্টের একটি রায়ের পর। প্রতারণার একটি মামলায় উচ্চ আদালত এই ধরনের বিজ্ঞাপন দেওয়াতে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। তবে বিপুল টাকা দিয়ে ভর্তি হয়ে সাফল্য না মেলার ঘটনায় ক্রেতা সুরক্ষা আদালতে মামলা বাড়ছে। বেশ কিছু ক্ষেত্রে টাকা ফেরাতে হয়েছে কোচিং কোম্পানিকে।

রাজস্থানের বিধিতে বলা হয়েছে, কোচিং ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীরা প্রবেশিকা পরীক্ষায় ফেল করলে তাদের বিকল্প ব্যবস্থা করতে হবে সংশ্লিষ্ট সংস্থাকে। ইনস্টিটিউট ছাড়ার সময় প্রয়োজনে ফি ফেরতের বিধান রাখা হয়েছে বিধিতে।

রাষ্ট্রপতির রূপ নিয়ে কথা, মমতার মন্ত্রীর গ্রেফতার চাইলেন সৌমিত্র, ক্ষমা চাইলেন অখিল

You might also like