Latest News

‘নাগরিকদের অনুরোধ’, এবার খেলরত্ন পুরস্কার থেকে রাজীবের নাম বাদ দিচ্ছেন মোদী

দ্য ওয়াল ব্যুরো : রাজীব গান্ধী খেল রত্ন পুরস্কারের নাম এবার থেকে হবে মেজর ধ্যান চাঁদ খেল রত্ন। শুক্রবার এমনই জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ওই পুরস্কারের পুরো নাম হবে ‘মেজর ধ্যান চাঁদ খেল রত্ন অ্যাওয়ার্ড ইন স্পোর্টস অ্যান্ড গেমস।’ প্রতি বছর কেন্দ্রীয় যুব ও ক্রীড়া দফতর ওই পুরস্কার দিয়ে থাকে। মন্ত্রকের নিযুক্ত একটি কমিটি পুরস্কার প্রাপকদের নাম স্থির করে। আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে অন্তত চার বছর ভাল পারফরম্যান্স দেখাতে পারলে কোনও খেলোয়াড়ের নাম ওই পুরস্কারের জন্য বিবেচিত হয়। পুরস্কার প্রাপককে দেওয়া হয় একটি পদক, সার্টিফিকেট ও নগদ ২৫ লক্ষ টাকা।

প্রয়াত প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী রাজীব গান্ধীর নামে ১৯৯১-৯২ সাল থেকে খেল রত্ন পুরস্কার দেওয়া শুরু হয়। তখন এক বছরের পারফরম্যান্স বিচার করে কোনও খেলোয়াড়কে এই পুরস্কার দেওয়া হত। অ্যাওয়ার্ড সিলেকশন কমিটির প্রস্তাব অনুযায়ী ২০১৫ সাল থেকে কোনও খেলোয়াড়ের চার বছরের পারফরম্যান্স বিচার করা হয়। পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন গ্রহণ করা হয় ৩০ এপ্রিল। কোনও খেলা থেকে দু’জনের বেশি খেলোয়াড়ের নাম গ্রহণ করা হয় না। ১২ সদস্যের সিলেকশন কমিটি বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা, যথা অলিম্পিক গেমস, প্যারা অলিম্পক গেমস ও কমনওয়েলথ গেমসে খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্স বিচার করে। কমিটি যাদের পুরস্কার পাওয়ার উপযুক্ত বলে মনে করে, তাদের নামগুলি যুব ও ক্রীড়া দফতরে পাঠায়। সেখান থেকে পুরস্কার প্রাপকদের নাম চূড়ান্ত অনুমোদন করা হয়।

প্রথমবার রাজীব খেল রত্ন পুরস্কার পান দাবাড়ু বিশ্বনাথন আনন্দ। ১৯৯১-৯২ সালের পারফরম্যান্সের জন্য তাঁকে ওই পুরস্কার দেওয়া হয়। ২০০১ সালে স্পোর্ট শুটার অভিনব বিন্দ্রা যখন খেল রত্ন পুরস্কার পান, তখন তাঁর বয়স ছিল ১৮ বছর। এপর্যন্ত তিনিই সর্বকনিষ্ঠ খেল রত্ন পুরস্কার প্রাপক।

খেল রত্ন পুরস্কার থেকে রাজীব গান্ধীর নাম বাদ দেওয়ায় রাজনীতির গন্ধ পাচ্ছেন অনেকে। পর্যবেক্ষকদের মতে, ধ্যান চাঁদ ভারত তথা বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠ ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব। তাঁর নামে সরকার কোনও পুরস্কার দিতেই পারে। কিন্তু একটি পুরস্কার থেকে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর নাম যেভাবে বাদ দেওয়া হল, তাতে অসম্মানিত বোধ করতে পারেন কংগ্রেসিরা। এই নিয়ে রাজনৈতিক লড়াই শুরু হতে পারে। এমনিতে পেগাসাস কেলেংকারি নিয়ে বিরোধীদের সঙ্গে সরকারের সম্পর্ক যথেষ্ট তিক্ত হয়ে উঠেছে। তার ওপরে খেল রত্ন পুরস্কার থেকে রাজীব গান্ধীর নাম বাদ দেওয়ায় তিক্ততা বাড়বে বলে অনেকে মনে করছেন।

You might also like