Latest News

নতজানু ব্যক্তিটিকে চিনতে পারছেন? আম জনতার সামনে মাথা নত করলেন কে?

দ্য ওয়াল ব্যুরো: অনুষ্ঠানের নির্ধারিত সময়ের থেকে অনেকটাই দেরি করে অনুষ্ঠানস্থলে পৌঁছান (Rajasthan Government Event)। আর তিনি না আসা পর্যন্ত অনুষ্ঠান শুরুও করা যাচ্ছিল না। অন্য অতিথিরা নির্দিষ্ট সময়ে পৌঁছে গিয়েছেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির কথা মাথায় রেখেই। দর্শকাসনে বসা লোকজনকে আসতে হয়েছে অনুষ্ঠান শুরুর অন্তত দু-আড়াই ঘণ্টা আগে। নিরাপত্তা বিধিতে তেমনই বলা ছিল। ফলে তাঁদের অনেকেই অধৈর্য হয়ে পড়েছেন।

শেষ পর্যন্ত তিনি এলেন। রাত তখন ১০’টা। মঞ্চে উঠে কোনও কথা না বলে প্রথমেই নতজানু হয়ে থাকলেন প্রায় মিনিটখানেক। আর তাঁর সম্মামে বাকিরা উঠে দাঁড়ালেন। তিনি এরপর বললেন, ‘প্রথমেই আপনাদের কাছে ক্ষমা চাইছি। এতক্ষণ আপনাদের অপেক্ষা করানোর জন্য। কিন্তু কথা দিচ্ছি, যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আবার এখানে আসব।’ আরও বললেন, ‘অনেক রাত হয়ে গিয়েছে। এখন আর ভাষণ দিচ্ছি না। পরে যখন আসব তখন বলা যাবে।’

তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)। গতকাল সন্ধ্যায় গুজরাত লাগোয়া রাজস্থানের আবুরোডে ছিল প্রধানমন্ত্রীর সরকারি অনুষ্ঠান। গত পরশু নিজের রাজ্যে দু’দিনের সফরে গিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। গতকাল দিনভর ছিল চূড়ান্ত ব্যস্ততা। সফরসূচি এভাবে সাজানো হয়েছিল, রাজস্থানের আবুরোডের অনুষ্ঠান সেরে দিল্লি উড়ে যাবেন। কিন্তু নানা কাজে, বিশেষ করে রোড-শো’তে অনেকটা সময় চলে যায়। তাছাড়া গুজরাত থেকে রাজস্থানে আসেন সড়ক পথে। তাতেও সময় যায় অনেকটা।

কিন্তু মঞ্চে উঠে প্রধানমন্ত্রী যে এভাবে নতজানু হয়ে অতিথি অভ্যাগতদের কাছে ক্ষমা চাইবেন কেউ কল্পনা করতে পারেনি। গতকালই দুপুরে প্রধানমন্ত্রী আরও এক নজির গড়েছেন। আমদাবাদ থেকে তাঁর কনভয় গান্ধীনগরে যাওয়ার পথে একটি অ্যাম্বুলেন্স চলে আসে। প্রধানমন্ত্রী তাঁর গাড়ির লুকিং গ্লাসে তা দেখতে পেয়ে কনভয় থামাতে বলেন। একপাশ দিয়ে অ্যাম্বুলেন্স চলে গেলে ফের রওনা দেয় কনভয়।

প্রধানমন্ত্রীর এমন আচরণ নিয়ে সমাজমাধ্যমে প্রশংসার পাশাপাশি টিপ্পনী, নিন্দা-মন্দও কম হয়নি। অনেকে বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে সব ভিভিআইপির শেখা উচিৎ অ্যাম্বুলেন্স-সহ জরুরি পরিষেবার গাড়িকে অগ্রাধিকার দিতে হবে। আবার অনেকেই বলছেন, গুজরাতের বিধানসভা ভোট শিয়রে। সেখানে বিজেপির আসল প্রার্থী নরেন্দ্র মোদী। ভোট না মেটা পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রী এমন অনেক ভালোমানুষি করবেন।

রাজস্থানের মঞ্চে নতজানু হয়ে ক্ষমা চাওয়ার মধ্যেও ভোট-রাজনীতির অঙ্ক দেখছেন কেউ কেউ। মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলটের বিদ্রোহ ঘিরে সেখানে কংগ্রেসে টালমাটাল শুরু হয়েছে। পরিস্থিতির সুযোগ নিতে ঝাঁপিয়ে পড়েছে বিজেপি। আগামী বছর সেখানে বিধানসভার ভোট। গুজরাতের ভোট মিটতেই রাজস্থান নিয়ে ঝাঁপাবেন প্রধানমন্ত্রী। তার আগের মরুরাজ্যের ভোটের মাটি খানিক ভিজিয়ে রাখলেন মোদী।

অ্যাম্বুলেন্সের জন্য নিজের কনভয় থামিয়ে দিলেন প্রধানমন্ত্রী, সোশ্যাল মিডিয়ায় সুখ্যাতি, সঙ্গে টিপ্পনীও

You might also like