Latest News

নতুন মন্ত্রীদের মধ্যে সবচেয়ে বড়লোক প্রদীপ, তুলনায় গরিব বিপ্লব, কার কত সম্পত্তি

দ্য ওয়াল ব্যুরো: বুধবার বিকেলে রাজভবনে আট জন নতুন মুখ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মন্ত্রিসভায় (Mamata Banerjee Cabinet) মন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন। তাঁদের মধ্যে ৫ জন পূর্ণমন্ত্রী। ২ জন প্রতিমন্ত্রী এবং ১ জন স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী। একনজরে দেখে নেওয়া যাক নতুন মন্ত্রীদের সম্পত্তির হিসাব (Property Details of new ministers)—

প্রদীপ মজুমদার

নতুন মন্ত্রীদের মধ্যে সম্পত্তির অঙ্কে সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছেন প্রদীপ মজুমদার। ২০২১ সালের বিধানসভা ভোটে প্রদীপ মজুমদার জিতেছিলেন দুর্গাপুর পশ্চিম কেন্দ্র থেকে। সেই সময়ে নির্বাচন কমিশনে যে হলফনামা প্রদীপবাবু জমা দিয়েছিলেন সেই অনুযায়ী তাঁর ও তাঁর স্ত্রীর স্থাবর, অস্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ ১৮ কোটি ১৪ লক্ষ ২৭ হাজার ৫৩১ টাকা। ধার রয়েছে ১৮ লক্ষ ৮৭ হাজার ৯৬ টাকা।

বর্ধমানে কৃষি জমি রয়েছে প্রদীপবাবুর। যার অর্থমূল্য ৯০ লক্ষ টাকা। চিনার পার্কে বাড়ি রয়েছে তাঁর। যার মূল্য দেড় কোটি টাকা। কলকাতায় মোহনবাগান লেন সহ বিভিন্ন জায়গায় তাঁর ও তাঁর স্ত্রীর নামে পাঁচটি বাড়ি রয়েছে।

বাবুল সুপ্রিয়

সম্পত্তির বিচারে নতুন মন্ত্রীদের মধ্যে প্রদীপ মজুমদারের পরেই রয়েছেন সুপ্রিয় বড়াল ওরফে বাবুল। সুব্রত মুখোপাধ্যায়ের প্রয়াণের পর বালিগঞ্জের উপনির্বাচনে বাবুল তৃণমূলের টিকিটে লড়ে জয়ী হন। সেই সময়ে নির্বাচন কমিশনে যে হলফনামা বাবুল জমা দিয়েছিলেন তাতে দেখা যাচ্ছে বাবুলের স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ ৮ কোটি পাঁচ লক্ষ এক হাজার ২৭৭ টাকা।

বাবুলের ৪৪ লক্ষ টাকার বীমা করা রয়েছে। যার মধ্যে বেশিরভাগই এলআইসি-র। বাবুলের গাড়ির শখ সর্বজনবিদিত। বালিগঞ্জের ভোটের দিনও নিজে গাড়ি চালিয়ে বিভিন্ন মহল্লা ঘুরেছিলেন বাবুল। হলফনামা অনুযায়ী চারটি চারচাকা গাড়ি রয়েছে। তার মধ্যে একটি অডি এবং একটি মার্সিডিজ বেঞ্জ। সেইসঙ্গে একটি রয়্যাল এনফিল্ড রয়েছে তাঁর। কয়েক বছর আগে বাবুলের বাবা তাঁকে সেটি উপহার দিয়েছিলেন বলে জানা যায়। বাবুলের লোন রয়েছে এক কোটি ৩০ লক্ষ টাকার সামান্য কিছু বেশি।

মমতা চার মন্ত্রীকে কেন বাদ দিলেন ক্যাবিনেট থেকে?

উদয়ন গুহ

একদা বাম নেতা তথা দিনহাটার উপনির্বাচনে তৃণমূলের টিকিটে রেকর্ড ভোটে জেতা উদয়ন গুহর স্থাবর অস্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ ৫ কোটি ৩২ লক্ষ ৭৪ হাজার ৪৯২ টাকা। সাড়ে তিন লক্ষ টাকার মতো ধার রয়েছে প্রয়াত কমল গুহর ছেলের।

গাড়ি বাড়ি বলতে উদয়ন গুহর একটি বোলেরো গাড়ি রয়েছে। সেই সঙ্গে সল্টলেক ও দিনহাটায় তাঁর বাড়ি রয়েছে বলে হলফনামায় জানিয়েছেন তিনি।

সত্যজিৎ বর্মন

উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদের এই তফসিলি বিধায়ক এদিন মন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছেন। নির্বাচন কমিশনে দাখিল করা হলফনামা অনুযায়ী সত্যজিতের স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ ৩ কোটি ২৪ লক্ষ ৪৩ হাজার ৯৯৩ টাকা। ধার রয়েছে প্রায় ৮১ লক্ষ টাকা।

রায়গঞ্জের বাসিন্দা সত্যজিতের চারটি চারচাকা গাড়ি রয়েছে। যার মধ্যে একটি মহিন্দ্রা থর। একটি বুলেট অর্থাৎ রয়্যাল এনফিল্ডও রয়েছে তরুণ এই মন্ত্রীর।

পার্থ ভৌমিক

সম্পত্তির নিরিখে সত্যজিতের পরেই রয়েছেন নৈহাটির বিধায়ক পার্থ ভৌমিক। তাঁর স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির মোট অঙ্ক ২ কোটি ৫৯ লক্ষ ৫৪ হাজার ৭৮ টাকা। ধার রয়েছে সাড়ে ৬৩ লক্ষ টাকার মতো। এছাড়া গাড়ি-বাড়ি উল্লেখযোগ্য নেই পার্থর। নৈহাটির পৈতৃক বাড়িতেই থাকেন।

তাজমুল হোসেন

মালদহের হরিশচন্দ্রপুরের বিধায়ক তাজমুলের স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ ৬৮ লক্ষ ৭৯ হাজার ৭৪৪ টাকা। বাজারে কোনও ধারও নেই তাজমুলের। একটি স্করপিও এবং হোন্ডা সাইন মোটর সাইকেল রয়েছে তাঁর।

স্নেহাশিস চক্রবর্তী

হুগলির জাঙ্গিপাড়ার তিন বারের বিধায়ক স্নেহাশিস। কোন্নগরের ভূমিপুত্র সেই ১৯৯৮ সাল থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল করেন। একটা সময় আকবর আলি খন্দকার যখন শ্রীরামপুরের সাংসদ সেই সময়ে স্নেহাশিস ছিলেন আকবরের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ। সেই তিনি আজ মন্ত্রী হয়েছেন। একুশের নির্বাচনের সময়ে নির্বাচন কমিশনে যে হলফনামা জমা দিয়েছিলেন সেই অনুযায়ী তাঁর স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তির পরিমাণ ৪৭ লক্ষ ৮০ হাজার ২৫৫ টাকা। লোন রয়েছে ২ লক্ষ ১১ হাজার ৮৫৯ টাকা। ২০১৭-তে কেনা একটি চারচাকা রয়েছে স্নেহাশিসের। বছর দুয়েক আগে একটি বাইক কিনেছিলেন তিনি।

বিপ্লব রায়চৌধুরী

নতুন আটজন মন্ত্রীর মধ্যে সম্পত্তির নিরিখে সবচেয়ে গরিব পাঁশকুড়া পূর্বের বিধায়ক বিপ্লব রায়চৌধুরী। অকৃতদার মানুষটি শুধু রাজনীতিই করেন। তাঁর স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি মিলিয়ে মোট অঙ্ক ৩৫ লক্ষ ৮১ হাজার টাকা। মাত্র চার গ্রাম সোনা রয়েছে তাঁর। তাজমুল হোসেনের মতো বিপ্লববাবুরও বাজারে কোনও দেনা নেই। একটাই বীমা করা রয়েছে, যার অঙ্ক ২ লক্ষ ৯৫ হাজার টাকা।

শিল্পে শশী, বাবুল তথ্য প্রযুক্তি ও পর্যটনে, ববির দফতর কমল, মমতা রদবদলে আর যা করলেন

You might also like