Latest News

ঢাকার সংস্কার হওয়া কালীমন্দিরের উদ্বোধন রাষ্ট্রপতি কোবিন্দের, ৭১-এ ধ্বংস করেছিল পাক সেনা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: নবরূপে সংস্কার (renovation) হওয়ার পর শুক্রবার ঢাকার (dhaka) ঐতিহ্যমন্ডিত কালী মন্দিরের (kali temple) শুভ উদ্বোধন (inauguration) করলেন বাংলাদেশ সফরে (bangladesh visit) যাওয়া রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ (president kovind)। সেখানে পুজোও দেন তিনি ও তাঁর স্ত্রী সবিতা কোবিন্দ। ৫০ বছর আগে ১৯৭১-এ এই মন্দির ধ্বংস  করেছিল পাকিস্তানি সেনাবাহিনী (pakistani army)। আগুন ধরিয়ে দিয়েছিল মন্দিরে যাতে প্রচুর ভক্ত ও মন্দির  চত্বরে বসবাসকারী অনেকেও পুড়ে মারা গিয়েছিলেন। ‘অপারেশন সার্চলাইট ১৯৭১’ সাংকেতিক নামে অভিযান চালিয়ে কালীমন্দিরের  কোনও অস্তিত্ব রাখেনি পাকিস্তানি সেনা। তারপর অবশ্য ভারত সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়। মন্দির পুনর্নির্মাণ শুরু হয়।

বাংলাদশের মুক্তিযুদ্ধের ৫০ বছর পূর্তি চলছে গত কয়েকদিন ধরে। সেই উপলক্ষ্যে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি এম আবদুল হামিদের আমন্ত্রণে মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীনতাপ্রাপ্তির সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন অনুষ্ঠানে হাজির থাকতে পড়শী দেশ সফরে  গিয়েছেন কোবিন্দ। কালীমন্দিরের শুভ উদ্বোধন করে মন্দিরকে ভারত, বাংলাদেশের মানুষের সাংস্কৃতিক ও আত্মিক বন্ধনের প্রতীক (symbol) বলে উল্লেখ করেন তিনি।

সেখানকার ভারতীয় সম্প্রদায়ের উদ্দেশে রাষ্ট্রপতি ভাষণে বলেন, আজ সকালে আমি ঐতিহাসিক রমনা কালীমন্দিরে গিয়েছিলাম। পুনর্গঠন, সংস্কার হওয়া  মন্দিরের শুভ উদ্বোধন করার সৌভাগ্য হয়েছে আমার। আমি এটাকে মা কালীর আশীর্বাদ বলে দেখছি। আমায় বলা হয়েছে, ভারত ও বাংলাদেশের সরকার ও জনগণ মুক্তিযুদ্ধের কালে পাকিস্তানি বাহিনীর হাতে ধ্বংস হওয়া মন্দির পুনরুদ্ধারে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। আমার বাংলাদেশ সফরের শুভ পরিণতি এটা, মন্তব্য করেন  কোবিন্দ।

গত অক্টোবরে বাংলাদেশে দুর্গাপুজোর মন্ডপে কোরান রেখে ধর্ম অবমাননার ঘটনাকে কেন্দ্র করে অশান্তি ছড়িয়েছিল। সেই প্রেক্ষাপটে কালীমন্দিরের শুভ উদ্বোধনে ধর্মীয় সম্প্রীতির বার্তা ফুটে উঠল।

 

You might also like