Latest News

প্রশান্ত কিশোর আগেই আমার সঙ্গে দেখা করেছিলেন, বললেন গোয়ার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী

দ্য ওয়াল ব্যুরো : চলতি সপ্তাহেই তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন গোয়ার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী (Ex Chief Minister Of Goa) তথা কংগ্রেস নেতা লুইজিনহো ফেলেইরো। বৃহস্পতিবার তিনি এক সাক্ষাৎকারে বলেন, তৃণমূলের ভোটকৌশলী প্রশান্ত কিশোর ও আই প্যাকের টিম আগেই তাঁর সঙ্গে দেখা করেছিল।

এদিন তাঁকে প্রশ্ন করা হয়, তৃণমূলে যোগ দেওয়ার আগে কি আপনার সঙ্গে প্রশান্ত কিশোরের কথা হয়েছিল? তিনি বলেন, “নিশ্চয় কথা হয়েছিল।” পরে তিনি বলেন, “প্রশান্ত কিশোর পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির বিরুদ্ধে কঠিন লড়াইয়ে তৃণমূলকে জিততে সাহায্য করেছেন”।

প্রশান্ত কিশোরের সঙ্গে তাঁর কী কথা হয়েছিল জানতে চাইলে ফেলেইরো বলেন, “তিনি আমাকে তৃণমূলে যোগ দিতে বলেননি। কিন্তু তিনি বলেছিলেন, গোয়ার মানুষ বিজেপির ওপরে অসন্তুষ্ট হয়েছেন। রাজ্যে খনি থেকে আকরিক উত্তোলন বন্ধ হয়ে গিয়েছে। অর্থনীতির অবস্থা খারাপ। চাকরি নেই। গোয়ার মানুষ বিকল্প চান। এই পরিস্থিতিতে একমাত্র বিকল্প হলেন দিদি।” পরে প্রশান্ত কিশোর বলেছিলেন, “দিদির ওপরে চাপ সৃষ্টির চেষ্টা করছে কেন্দ্রীয় সরকার। তাঁর বিরুদ্ধে নানা সরকারি সংস্থাকে কাজে লাগানো হয়েছে। এই মুহূর্তে দেশে দিদির মতো নেত্রী চাই”।

বৃহস্পতিবার এক সাংবাদিক বৈঠকে ফেলেইরো বলেন, “আমি আগে কখনও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করিনি। তাঁরা হলেন মহান নেতা। তাঁরা কেবল তৃণমূলের নেতা নন। তাঁরা জাতীয় স্তরের নেতা। কিন্তু আমি আগে তাঁদের সঙ্গে দেখা করিনি।” পরে গোয়ার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আমি আই-প্যাকের সঙ্গে দেখা করেছিলাম। তৃণমূলে যোগ দেওয়ার আগে প্রশান্ত কিশোরের সঙ্গে আমার কথা হয়েছিল।”

এক প্রশ্নের জবাবে ফেলেইরো বলেন, “কংগ্রেস ত্যাগ করা আমার পক্ষে অত্যন্ত কঠিন সিদ্ধান্ত ছিল। কিন্তু গোয়া তথা দেশের স্বার্থের কথা বিবেচনা করে আমি সেই সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। বিজেপিকে হারানোই আমার লক্ষ্য। আমি এখনও আই-প্যাকের থেকে সাহায্য পাব বলে আশা করি।”

কিছুদিন আগেই শোনা গিয়েছিল, প্রশান্ত কিশোর ও তাঁর আই-প্যাক আগামী লোকসভা ভোটের আগে কংগ্রেসের হয়ে কাজ করবে। কিন্তু ফেলেইরোর কথা শুনে অনেকের ধারণা হয়েছে, তিনি কংগ্রেস নেতাদের সঙ্গে দেখা করে দল ছাড়তে বলছেন। সম্প্রতি তৃণমূল নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “কংগ্রেসের আর আরাম কেদারায় বসে রাজনীতি করা উচিত নয়। কেবল সোশ্যাল মিডিয়াতেও রাজনীতি করা উচিত নয়। তাদের পথে নামতে হবে।”

তৃণমূলে যোগ দিয়ে ফেলেইরো বলেন, গোয়ায় আগামী বিধানসভা নির্বাচনে তাঁরা ৪০ টি আসনে প্রার্থী দেবেন।

You might also like