Latest News

রবিবার সর্বদলীয় বৈঠকে মোদী, আলোচনা হবে কৃষি আইন প্রত্যাহার নিয়ে

দ্য ওয়াল ব্যুরো : কৃষি আইন বাতিল, ফসলের ন্যূনতম সহায়ক মূল্য (MSP) নিয়ে আইন করার দাবি এবং গোয়েন্দা সংস্থার কর্তাদের কার্যকালের মেয়াদ বাড়ানো। আগামী রবিবার সর্বদলীয় বৈঠকে আলোচনা হবে মূলত এই বিষয়গুলি নিয়ে। সংসদের শীতকালীন অধিবেশনের আগে বসছে ওই বৈঠক। তাতে সভাপতিত্ব করবেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

২৮ নভেম্বর বেলা ১১ টায় সর্বদলীয় বৈঠক হবে। সেদিনই সন্ধ্যায় সংসদীয় এক্সিকিউটিভ মিটিং করবে বিজেপি। সেখানেও মোদী উপস্থিত থাকবেন বলে জানা গিয়েছে।

শীতকালীন অধিবেশনের ঠিক আগেই কৃষি আইনগুলি বাতিল করার মতো গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিয়েছেন মোদী। আগামী বুধবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা কৃষি আইন বাতিলের প্রস্তাব অনুমোদন করবে বলে জানা গিয়েছে। বিরোধীরা সম্ভবত ফসলের ন্যূনতম মূল্য নিয়ে সরকারকে চেপে ধরার চেষ্টা করবেন। তৃণমূল কংগ্রেস ত্রিপুরায় হিংসার প্রসঙ্গও তুলবে বলে পর্যবেক্ষকদের ধারণা। সোমবার ওই ইস্যুতে তৃণমূলের সাংসদরা নর্থ ব্লকে ধরনায় বসেন। ত্রিপুরায় তৃণমূল কর্মীদের ওপরে পুলিশের ‘অত্যাচারের’ ইস্যু নিয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছিলেন তাঁরা। কিন্তু তাঁদের দেখা করতে দেওয়া হয়নি।

তৃণমূলের পক্ষ থেকে পরে টুইট করে বলা হয়, অমিত শাহের সঙ্গে আমাদের দেখা করতে দেওয়া হল না কেন? দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মানুষের নিরাপত্তা নিয়ে আদৌ চিন্তিত নন কেন? অমিত শাহকে সম্বোধন করে বলা হয়েছে, আমরা এই প্রশ্নের জবাব চাই। আমরা চাই, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অবিলম্বে ত্রিপুরার ঘটনায় হস্তক্ষেপ করুন।

কৃষি আইন প্রত্যাহারের পরে বিরোধীরা একবাক্যে বলেছে, কৃষক আন্দোলনের কাছে পরাজয় স্বীকার করল মোদী সরকার। শনিবার উত্তরপ্রদেশের মহোবায় এক জনসভায় প্রধানমন্ত্রী পালটা আক্রমণ করেন বিরোধীদের। তাঁর বক্তব্য, কোনও কোনও পার্টির রাজনীতির মূল কথাই হল, কৃষকদের সমস্যার মধ্যে আটকে রাখ। রাজনীতিতে ‘পরিবারতন্ত্রেরও’ সমালোচনা করেন মোদী। তিনি বলেন, যে দলগুলি কোনও পরিবারের কুক্ষিগত হয়ে আছে, তারা কৃষকদের সমস্যার সমাধান করতে চায় না।

এরপরেই মোদী বলেন, বিরোধীরা মানুষের সমস্যা নিয়ে রাজনীতি করে। বিজেপি করে সমাধানের রাজনীতি। তাঁর কথায়, “পরিবারতান্ত্রিক দলগুলি চায়, কৃষকরা সমস্যার মধ্যে থাকুন। তারা কৃষকদের জন্য অনেক কিছু ঘোষণা করে ঠিকই, কিন্তু বাস্তবে কৃষকরা কানাকড়িও পান না।” মোদীর দাবি, “আমাদের সরকার কিষাণ সম্মান নিধি প্রকল্পে কৃষকদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে সরাসরি ১ কোটি ৬২ লক্ষ টাকা পাঠিয়েছে।”

You might also like