Latest News

মুখ্যমন্ত্রী যোগীর নিরাপত্তায় আজও থাকে ব্যক্তিগত রিভলবার, রাইফেল

দ্য ওয়াল ব্যুরো: তিনি গেরুয়া বসনধারী। মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার আগে ছিলেন গোরখপুরের গোরক্ষনাথ মন্দিরের মোহন্ত। আর মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর ২৪ ঘণ্টা থাকেন জেড-প্লাস সিকিউরিটির ঘোরাটোপে। উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ তবু হাতছাড়া করতে নারাজ ব্যক্তিগত দুটি আগ্নেয়াস্ত্র। একটি রিভলবার, আর একটি রাইফেল। মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর গেরুয়া বসন যেমন ত্যাগ করেননি, তেমনই সঙ্গছাড়া করেননি আগ্নেয়াস্ত্র দুটি। গেরুয়াবসনধারী মুখ্যমন্ত্রী যথেষ্ট বিত্তশালী। ব্যাংক ব্যালান্স মন্দ নয় সাধু-মুখ্যমন্ত্রীর।

এবারই প্রথম বিধানসভা ভোটে লড়াই করবেন যোগী। প্রার্থী হয়েছেন নিজের এলাকা গোরখপুর শহর কেন্দ্রে। মনোনয়ন পত্রে উল্লেখ করেছেন দুটি আগ্নেয়াস্ত্রের কথা। তাতে আছে আরও এক চমক। সরকারিভাবে তিনি শুধুই আদিত্যনাথ। মনোনয়নপত্রে নামের ডগায় ‘যোগী’ উল্লেখ করেননি।

মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, তাঁর এখন ব্যাংকে গচ্ছিত অর্থের পরিমান ১ কোটি ৫৪ লাখ টাকা। ২০১৭-তে বিধান পরিষদের ভোটের সময় জানিয়েছিলেন ব্যাংকে আছে ৯৬ কোটি। অর্থাৎ পাঁচ বছরের মুখ্যমন্ত্রীত্বে আয় বেড়েছে ৫৮ লাখ।

কোথা থেকে এই আয়? মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে যোগীর মাস মাইনে তিন লাখ ৬৫ হাজার টাকা। কেটে কুটে হাতে পান দু লাখ ৫৫ হাজারের কাছাকাছি। এছাড়া যোগী বহু বছর এমপি ছিলেন। তখন মোটা টাকা ভাতা পেয়েছেন। লোকসভা ভোটের সময় হলফনামায় তিনটি গাড়ির কথাও উল্লেখ করেছিলেন যোগী—টাটা সাফারি, ফরচুনার, ইনোভা। এবারের হলফনামায় সে সবের উল্লেখ নেই।

দেশের অন্য মুখ্যমন্ত্রীদের মতো যোগীও সর্বক্ষণ জেড-প্লাস নিরাপত্তা পান। কমান্ডো-সহ ৫৫ জন নিরাপত্তা রক্ষী ২৪ ঘণ্টা তাঁর জীবনরক্ষার দায়িত্ব পালন করে থাকে। তারপরও ব্যক্তিগত আগ্নেয়াস্ত্রের উপর আস্থা অটুট গেরুয়া বসনধারী মুখ্যমন্ত্রীর। ২০০৪ থেকে অস্ত্র দুটি তাঁর সঙ্গী।

মোহন্তের কেন ব্যক্তিগত অস্ত্র প্রয়োজন হয়? বছর কয়েক আগে এই প্রশ্নের জবাবে যোগী বলেছিলেন, সাধুকে শাস্ত্র এবং অস্ত্র দুই ব্যাপারেই দক্ষ হতে হয়। হলফনামায় যোগী উল্লেখ করেছেন রিভলবারটির বাজার মূল্য এখন এক লাখ টাকা। আর রাইফেলটির ৮০ হাজার টাকা।

বলাইবাহুল্য, দুটি আগ্নেয়াস্ত্রর জন্যই বৈধ লাইসেন্স আছে। সরকারি নিয়ম হল, কারও ব্যক্তিগত নিরাপত্তা পদে পদে বিঘ্নিত হলে, প্রাণহানীর আশঙ্কা দেখা দিয়ে থাকলে পরিস্থিতি বিচার-বিশ্লেষণ করে তবে আগ্নেয়াস্ত্র রাখার অনুমতি দেওয়া হয়। কেন যোগী অস্ক্র ধারণ করতে চেয়েছেন, আর কেনই বা তাঁর আর্জি মঞ্জুর হয়েছিল তা জানা যায়নি।

You might also like