Latest News

শিয়ালদহ পর্যন্ত চালুর প্রহর গুনছেন নিত্যযাত্রীরা, ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর যাত্রী সংখ্যা হাতেগোনা

দ্য ওয়াল ব্যুরো: ২০ টাকা গুনলেই ফুলবাগান থেকে পৌঁছে যাওয়া যাবে সেক্টর ফাইভ! ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্পের এই পর্যায়ের কাজ শেষ হওয়ার পর থেকেই নিত্যযাত্রীদের মনে খুশির হাওয়া। কিন্তু তারপরও অনেকেই তাকিয়ে শিয়ালদহ স্টেশন শুরুর দিকে।

 

সল্টলেক থেকে সহজেই ফুলবাগান পৌঁছানো গেলেও শিয়ালদহ যেতে হয় বাস, নয় অটোর ভরসা করতে হয়। আর তাতে অতিরিক্ত ভাড়াও গুনতে হয়। অনেকটা সেই কারণেই এখনও ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর এই পর্যায়ের যাত্রী সংখ্যা হাতে গোনা।

ব্যস্ত সময়ে মেট্রোতে উঠলেও কামরায় যাত্রী তেমন চোখে পড়ে না। আর তার জেরেই প্রায় আধ ঘন্টার ব্যবধানে এই শাখায় মেট্রো চালাচ্ছে কর্তৃপক্ষ। তবে আগের থেকে এই রুটে যাত্রী সংখ্যা বাড়ছে বলে জানাচ্ছেন নিত্যযাত্রীরা।

সল্টলেকের এক বেসরকারি সংস্থায় কাজ করেন বছর ৩৫-এর স্বদেশ দাস। ফুলবাগান থেকে রোজ বাসেই যেতেন সল্টলেকে। কিন্তু কয়েকদিন মেট্রোতে যাতায়াত শুরু করেছেন। এই রুটের মেট্রো চালু হওয়ায় খুশি তিনি। ‘প্রথম প্রথম দেখেছি খুব কম মানুষ চড়তেন এই রুটের মেট্রো। তবে সেই সংখ্যাটা বাড়ছে। অন্যদিনের তুলনায় আজকে বেশি মানুষই চোখে পড়ল’, জানালেন স্বদেশ বাবু।

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার থেকেই ফের মেট্রোতে শুরু হয়েছে টোকেন সিস্টেম। স্মার্ট কার্ড না থাকলেও আগের মতই যাতায়াত করা যাবে মেট্রোতে। এই টোকেন পরিষেবা চালু হওয়াতেই বেড়েছে যাত্রী সংখ্যা, মত আরেক নিত্য যাত্রী দেবকুমার বসাকের।

তিনি বলেন, ‘এই মেট্রো পরিষেবা চালু হওয়ায় যাতায়াতে বেশ সুবিধা হয়েছে। তারওপর টোকেনও চালু হয়ে গেছে। ধীরে ধীরে এই রুটেও বাড়বে যাত্রী সংখ্যা। আগের থেকে প্রতিদিনই একটু একটু করে লোক বাড়ছে। আগামীতে আরও বাড়বে বলে আশা করছি।’

 

ফুলবাগান থেকে এই মেট্রোই জুড়বে শিয়ালদহের সঙ্গে। সেই কাজও চলছে জোর কদমে। ভারপ্রাপ্ত এক ইঞ্জিনিয়ারের কথায়, ‘কাজের ৮০ শতাংশ কাজ শেষ। আশা করা যাচ্ছে আগামী মার্চ মাসেই চালু হয়ে যাবে এই মেট্রো পরিষেবা।’ এই শিয়ালদহ মেট্রো শুরু হলে খুব সহজেই পৌঁছে যাওয়া যাবে সল্টলেক।

 

এই পরিষেবা চালু হলেই বাড়বে আরও যাত্রী সংখ্যা। হাজার হাজার মানুষ এই পথে যাতায়াত করেন। সেই যাত্রীর বেশিরভাগই এই রুটের মেট্রো ধরবেন বলে জানালেন আরেক নিত্যযাত্রী অখিল আহমেদ। তিনি বলেন, ‘প্রথম যখন এই মেট্রোতে যাতায়াত শুরু করি তখন চার-পাঁচজন থাকতেন ব্যস্ত সময়েও। কিন্তু আজ সেই সংখ্যাটাও বেড়েছে দেখছি। পরে শিয়ালদহ পর্যন্ত মেট্রো চালু হলে যেমন যাত্রীও বাড়বে, তেমন সুবিধাও হবে।’

You might also like