Latest News

মোদীকে জবাব দিয়ে কর্মীদের চাগালেন ৮২ বছরের ‘পালোয়ান’ মুলায়ম

দ্য ওয়াল ব্যুরো: রাজনীতিতে (politics) আসার আগে ছিলেন প্রথম সারির কুস্তিগীর (wrestler)। পুরোমাত্রায় মাঠে-ময়দারে রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়ার পরও কুস্তিপ্রেম কাটিয়ে উঠতে পারেননি। মাঝেমধ্যেই ছুটতেন আখড়ায়। কুস্তিই তাঁর শরীর ও মনের শক্তির উৎস, নানা সময়ে বলেছেন তিনি। উত্তরপ্রদেশের তিনবারের মুখ্যমন্ত্রী তথা দেশের প্রাক্তন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মুলায়ম সিং যাদবের () কুস্তি প্রেমের কথা সোমবার ফের আলোচনায় এল আচমকাই তাঁর লখনউয়ে সমাজবাদী পার্টির রাজ্য দফতরে হাজির হওয়াকে কেন্দ্র করে।

এদিন বিকালে বিনা নোটিসে পার্টি অফিসে হাজির হন সমাজবাদী পার্টির (samajwadi party) প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মুলায়ম। প্রথমে অনেকেই বিশ্বাস করতে পারছিলেন না। কিন্তু পরে ঘোর কাটে সকলের। সেই চেনা চেহারা এবং চেনা মেজাজে নেতা-কর্মী-সমর্থকদের উদ্দেশে হাত নাড়তে নাড়তে পার্টি অফিসে নিজের ঘরে গিয়ে বসেন প্রবীণ নেতা। স্লোগান ওঠে নেতাজি জিন্দাবাদ। সমাজবাদী পার্টির কর্মী-সমর্থকেরা তাঁকে নেতাজি বলে সম্মোধন করে। ক্রমে উত্তরপ্রদেশে নেতাজি এবং মুলায়ম সমার্থক হয়ে গিয়েছেন।
পরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সমালোচনায় সরব হয়ে নেতাজি বলেন, ‘মোদীজি সমাজবাদী পার্টির লাল টুপিকে ভয় পেয়েছেন। লাল টুপি হল বিজেপির জন্য রেড সিগন্যাল।’ করোনা পরিস্থিতির মধ্যে বৃদ্ধ নেতাজিকে দেখে কর্মী সমর্থকদের উৎসাহ চরমে ওঠে। তাঁকে এমন ফুরফুরে মেজাজে দেখার পর মুখে মুখে ঘুরছে একটাই কথা, পালোয়ানজিকে এখনও কি প্রাণ শক্তি জুগিয়ে চলেছে ছেলেবেলার কুস্তি শিক্ষা!

দিন কয়েক আগে ৮২ পূর্ণ করেছেন উত্তরপ্রদেশের এই নেতা। বয়সের কারণে বেশিরভাগ দিন বাড়িতেই কাটে। মাঝে বেশ কিছুদিন শয্যাশায়ী ছিলেন। কিন্তু এদিন দেখা যায় একেবারে অন্য মুলায়মকে। ফুরফুরে মেজাজে সমর্থকদের দিতে হাত নেড়ে অভিবাদন গ্রহণ করেছেন।

তারপর নেতাদের সঙ্গে প্রায় আধঘণ্টা বৈঠক করেন বিধানসভা ভোটের কৌশল নিয়ে। উত্তরপ্রদেশের এই যাদব নেতার রাজনীতির প্রতি নিষ্ঠা অতুলনীয়। দলের শৃঙ্খলাপরায়নতাও আদর্শস্থানীয়। দলের অফিস, সভা-সমাবেশে সব সময় মাথায় থাকে লাল টুপি। সমাজবাদী পার্টির কর্মী সমর্থকদের লাল টুপি পরা বাধ্যতামূলক। প্রতি বছর দল কয়েক লাখ টুপি বিলি করে থাকে। মুলায়ম পুত্র অখিলেশও দলীয় কর্মসূচিতে সব সময় লাল টুপি পরেন।

সম্প্রতি মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের এলাকা গোরখপুরের জনসভায় মোদী বলেন, ‘উত্তরপ্রদেশে লাল টুপি পরা লোকেদের থেকে সতর্ক থাকবেন। এরা রাজ্যের জন্য ক্ষতিকর। শুধু নিজেদের ভালো বোঝে।’ মোদীর কথার সেদিনই কড়া জবাব দেন অখিলেশ। বলেন, লাল টুপি পরা লোকেরা বিজেপির জন্য বিপজ্জনক, এটা মোদীজি বুঝে গিয়েছেন। তাই মানুষকে লাল টুপি নিয়ে বিভ্রান্ত করছেন। এদিন একই কথা বলেন মুলায়ম। কর্মীদের দিকে হাত নেড়ে মোদীকে জবাব দেন। তবে প্রধানমন্ত্রীর নাম মুখে আনেননি। বলেন, ‘বিজেপির সবচেয়ে বড় নেতা বলেছেন, লাল টুপি (red cap) বিপজ্জনক। আসলে ওরা ভয় পেয়েছে।’ কর্মীদের বলেন, ‘লাল টুপিকে আক্রমণ করা হচ্ছে মানে আপনারা সঠিক পথে চলছেন। এবার উত্তরপ্রদেশে আবার সমাজবাদী পার্টির সরকার হবে। অতীতের মতো আমাদের সরকার সব প্রতিশ্রুতি রক্ষা করবে।’

 

You might also like