Latest News

মমতার সিদ্ধান্তকে ঠিক বলেও দলের সিদ্ধান্ত নিয়ে কৌশলী সওয়াল পার্থর

দ্য ওয়াল ব্যুরো: একটা প্রশ্ন। তার তিন রকম জবাব দিলেন পার্থ চট্টোপাধ্যায় (Partha Chatterjee)। তাও আবার কয়েক সেকেন্ডের ব্যবধানে।

শুক্রবার শারীরিক পরীক্ষার জন্য সদ্য প্রাক্তন মন্ত্রী ও সাসপেন্ডেড তৃণমূল নেতাকে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল জোকা ইএসআইতে। সেখানে ঢোকার সময়ে পার্থবাবু সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেছিলেন, ‘আমি ষড়যন্ত্রের শিকার।’ কিন্তু বের হওয়ার পর এক প্রশ্নের তিন জবাব দিলেন পার্থবাবু।

এদিন জোকা ইএসআই থেকে পার্থবাবুকে যখন বের করা হচ্ছে সেই সময়ে তাঁর হুইল চেয়ারকে প্রায় বলয় করে ছিলেন ইডি অফিসারেরা। তার ঠিক পিছন থেকেই সাংবাদিকদের প্রশ্ন ধেয়ে যায়, পার্থদা, দলের সিদ্ধান্ত (Party Decision) কি ঠিক? প্রথমবার এই প্রশ্নের জবাবে পার্থ বলেন, ‘সময় বলবে।’

বেহালা পশ্চিমের বিধায়ককে যখন গাড়িতে তোলা হচ্ছে তখন ওই জায়গায় বেশ জটলা। সব সাংবাদিকই বুম বাড়িয়ে পার্থর আওয়াজ ধরতে চাইছেন। সেই সময়ে ফের তাঁকে এক সাংবাদিক প্রশ্ন ছুড়ে দেন, দলের সিদ্ধান্ত কি ঠিক পার্থদা? এবার গাড়ির পাদানিতে পা রেখে পার্থ বলেন, ‘নিরপেক্ষ তদন্তকে প্রভাবিত করতে পারে।’

বাংলা ছবিতে অভিনয় করে কত পারিশ্রমিক পেতেন অর্পিতা? জেনে নিন

এখানেই শেষ নয়। এরপর হালকা সবুজ রঙের হাফ পাঞ্জাবি পরিহিত পার্থবাবু গাড়ির মাঝখানের সিটে বসার পর তাঁর বাঁ পাশের জানলা দিয়ে আর এক সাংবাদিক সেই একই প্রশ্ন ছুড়ে দেন, পার্থদা, দলের সিদ্ধান্ত কি ঠিক? এবার পার্থর জবাব, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সিদ্ধান্ত ঠিক।’

অর্থাৎ একই প্রশ্নে কয়েক সেকেন্ডের ব্যবধানে তিনরকম জবাব দিলেন পার্থ। কখনও ঠিক-ভুল ছেড়ে দিলেন সময়ের হাতে। কখনও বললেন নিরপেক্ষ তদন্ত প্রভাবিত করবে। আর একেবারে শেষে পার্থ বোঝালেন, তিনি নেত্রীর প্রতি এখনও আস্থাশীল। সুর শুনে অনেকে বলছেন, এক্ষেত্রে দল আর নেত্রীকে পৃথক করেই দেখাতে চেয়েছেন বর্ষীয়ান এই নেতা।

আরও প্রশ্ন হল, পার্থবাবু নিরপেক্ষ তদন্তকে প্রভাবিত করার কথা কেন বললেন?

এ ব্যাপারে পর্যবেক্ষকদের অনেকে বলছেন, পার্থবাবু হয়তো মনে করছেন, মন্ত্রিসভা ও দল থেকে তাঁর অপসারণ হয়তো বিচারের আগেই শাস্তি দিয়ে দেওয়ার মতো হয়ে গেল। হয়তো তিনি বুঝতে পারছেন জনমানসে এই ধারণা তৈরি হচ্ছে যে, দোষী সাব্যস্ত হওয়ার আগে তাঁর অপসারণ আসলে রাজনৈতিক ভাবে তাঁকে সাজা দেওয়ার শামিল।

পার্থ পদ হারানোর পর মুখ খুললেন, বললেন, ‘আমি ষড়যন্ত্রের শিকার’

ভুবনেশ্বর থেকে পার্থবাবুকে যেদিন কলকাতায় আনা হল তার আগের দিন বঙ্গ সম্মানের মঞ্চে মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, মিডিয়া ট্রায়াল তিনি মানেন না। যথাযথভাবে আদালতে কেউ যদি দোষী প্রমাণিত হন তাহলে তার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হলেও মুখ্যমন্ত্রীর কিছু যায় আসে না। সেই বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় পার্থ বলেছিলেন, ‘ঠিকই তো বলেছেন।’

অনেকের মতে, পার্থ চট্টোপাধ্যায় যখন সাংবাদিক সম্মেলন করতেন তখনও অনেক বিষয় গুছিয়ে বলতে পারতেন না। ব্রিফ করার ক্ষেত্রে তাঁর সমস্যা ছিল। এ নিয়ে দলের মধ্যেও চর্চা চলত বিস্তর। সেই তিনিই এদিন একই প্রশ্নের তিন রকম জবাব দিলেন। যা তাৎপর্যপূর্ণ বৈকি।

You might also like