Latest News

সেই মোনালিসা এলেন বিশ্ববিদ্যালয়ে, বললেন, ‘আমি সৎ শিক্ষিকা’

দ্য ওয়াল ব্যুরো, পশ্চিম বর্ধমান: শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় (Teacher Recruitment Scam) পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের ঘনিষ্ঠ অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের বাড়ি থেকে বিপুল টাকা উদ্ধার ও পরে পার্থ ও অর্পিতাকে গ্রেফতারের ঘটনায় তোলপাড় রাজ্য রাজনীতি। এমন পরিস্থিতিতে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে নাম জড়িয়ে যায় কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলার অধ্যাপিকা মোনালিসা দাসের (Monalisa Das)। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের (Partha Chatterjee) সঙ্গে মোনালিসার কী ঘনিষ্ঠতা সে ব্যাপারে অবশ্য ইডি আজ পর্যন্ত একটা কথাও বলেনি। যা চাউর হওয়ার হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়াতেও। তার পর দেখা গিয়েছিল, মোনালিসা অন্তরালে চলে গিয়েছিলেন। ফোন ধরাও বন্ধ করে দিয়েছিলেন।

তার পর নদী দিয়ে অনেক জল বয়ে যায়। বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সেমিনারে মুখ্য পরামর্শদাতা হিসেবে মোনালিসার নাম থাকলেও পরে তা বাদ দেওয়া হয়। যা নিয়ে কম জল ঘোলা হয়নি। কিন্তু এতদিন সেইনিয়ে বলতে গেলে এক প্রকার নিশ্চুপই ছিলেন মোনালিসা। সোমবার হঠাৎই বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে দেখতে পাওয়া গেল তাঁকে।

আসানসোলে তাঁকে দেখতে পাওয়া যেতেই তাঁর দিকে ধেয়ে আসে একাধিক প্রশ্নবাণ। কেন বাদ দেওয়া হয়েছে তাঁর নাম? তিনি কি এই দুর্নীতির সঙ্গে যুক্ত? ইডি তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করেছে কিনা? অর্পিতাকে চিনতেন কিনা… ইত্যাদি প্রশ্ন করা হয় তাঁকে।

কাজ সেরে টোটোয় উঠতে উঠতে সব প্রশ্নের উত্তরই এদিন দিয়ে যান মোনালিসা। বলেন, ‘আমার বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগ ভিত্তিহীন। আমি একজন সৎ শিক্ষিকা। সৎ শিক্ষক পরিবারের সন্তান। আমার সঙ্গে এই বিষয়ে কোনও যোগ নেই।’ তিনি আরও বলেন, ‘অসুস্থ থাকার জন্যই আমি বিশ্ববিদ্যালয়ের থেকে অব্যহতি চেয়েছিলাম কিছুদিনের জন্য। তাই হয়তো আমার নাম বাদ দেওয়া হয়েছে। সেমিনারের সময় আমি অসুস্থ ছিলাম।’

তিনি এও জানান, অর্পিতা মুখোপাধ্যায়কে তিনি চেনেন না। তবে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে তাঁর নাম জড়ানোর পর থেকেই বিরোধীরা মোনালিসা দাসের অপসারণের দাবি জানিয়েছিল। বিজেপির দাবি ছিল, মোনালিসার নিয়োগও অবৈধ। ইডি সিবিআই যেন তাঁকে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করে। কিন্তু তদন্তকারী অফিসাররা আজ পর্যন্ত এই মামলায় মোনালিসাকে জড়াননি। ডেকেও পাঠাননি।

নারকেলডাঙ্গায় অন্তঃসত্ত্বাকে লাথির ঘটনায়, গ্রেফতার ৭

You might also like