Latest News

পাড়ায় শিক্ষালয়ে পড়াশুনার পাশাপাশি হবে খেলাধুলোও আগামী মাসে শুরু, জানুন বিস্তারিত

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পাড়ায় পাড়ায় স্কুল চালু করার ভাবনা নিয়েছে রাজ্য সরকার। মূলত প্রাথমিক ও উচ্চ প্রাথমিকের পড়ুয়াদের এখনই স্কুলে আনার ভাবনা না থাকলেও তাদের ঘরবন্দি দশা কাটানোর জন্যই এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। উন্মুক্ত জায়গায় পড়ানো হবে পড়ুয়াদের।

পড়ানোর পাশাপাশি শরীর চর্চা ও গান বাজনা শেখানোর ওপরও জোর দেওয়া হবে এই ‘পাড়ায় শিক্ষালয়’-এ। আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে এই স্কুল চালু করার কথা সোমবার জানালেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। স্কুল হতে পারে যেকোনো পার্ক-মাঠের মধ্যে।

ব্রাত্য বলেন, ‘কোভিড অতিমারীর কারণে দীর্ঘদিন স্কুল বন্ধ। যার প্রভাব পড়ুয়াদের পঠন পাঠনে পড়েছে। অনলাইনে বা বিভিন্ন মাধ্যমে পড়াশুনা চলছে। তা সত্ত্বেও বাচ্চারা স্কুলে যেতে না পারায় ক্ষতি হচ্ছে। বিশেষত প্রাক প্রাইমারি ও প্রাইমারি পড়ুয়াদের ওপর প্রতিকূল প্রভাব ফেলেছে। তাই সামাজিক মেলামেশা, শরীরচর্চা, সাংস্কৃতিক অভিব্যক্তি প্রকাশের পরিসর তৈরি করার জন্য মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে পাড়ায় শিক্ষালয় শুরু হচ্ছে।’

এই ক্লাসের সময় যে যে বিষয়গুলোর ওপর নজর দেওয়া হবে তা হল-

  • শিশুদের মনো সামাজিক সহায়তা করে শিক্ষা প্রদান করা
  • স্বাস্থ্য ও পারিপার্শ্বিক পরিছন্নতা বৃদ্ধি করা এবং ব্যক্তিগত পরিছন্নতা বজায় রাখা
  • পড়ালেখা ও সংখ্যা শিক্ষার ওপর জোর দেওয়া, সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড অর্থাৎ গান-নাচ-আবৃত্তি শেখানো
  • শিল্প নৈপুণ্যের যোগ্যতা বৃদ্ধি
  • আউটডোর ও ইনডোর খেলার প্রসার

৫০,১৫৯টি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১ লক্ষ ৮৪ হাজার প্রাথমিক শিক্ষক, ২১ হাজার প্যারা টিচার, ৩৮ হাজার সহায়ক-সহায়িকা, ৬০ লক্ষ ৫২ হাজার ৬৮২ জন ছাত্র-ছাত্রী এই উদ্যোগে সামিল হবে।

এদিন ব্রাত্য বসু আরও জানান, ‘যেসময় স্কুল হয় সেই সময়ই হবে। উন্মুক্ত স্থানে পড়ার অভ্যাস করানো, সংখ্যার ধারণা দেওয়া, প্রাথমিক স্তরে গণিত চর্চা ও শরীর চর্চার ওপর জোর দেওয়া হবে। এই উদ্যোগ কোভিড পরবর্তী সময়ে সারা ভারতের মধ্যে এই রাজ্যে প্রথম। তাই ভবিষ্যতে তা ভারতে পথ প্রদর্শকের ভূমিকা নেবে বলে আমার বিশ্বাস।’

You might also like