Latest News

পাকিস্তানে বিল পাশ, ধর্ষণকারীকে রাসায়নিক প্রয়োগ করে খোজা করে দেওয়া হবে?

দ্য ওয়াল ব্যুরো: পাকিস্তানে (pakistan) ইদানীং মহিলা, শিশু ধর্ষণ (child rape) বৃদ্ধি পাওয়ায় নানা মহল থেকে দাবি উঠছিল, পরিস্থিতি সামলাতে কার্যকর ব্যবস্থা (effective steps) চাই। মাত্র ৪ শতাংশ যৌন নিগ্রহ বা ধর্ষণ মামলায় অভিযুক্ত দোষী সাব্যস্ত হয় বলে অভিযোগ সমালোচকদের। সেকথা মাথায় রেখেই পাকিস্তানের পার্লামেন্টে নয়া আইন (law) পাশ হল যার ফলে একাধিক ধর্ষণে দোষী সাব্যস্ত যৌন অপরাধীদের রাসায়নিক প্রয়োগ করে (chemical castration)খোজা করে দেওয়া হতে পারে।  এব্যাপারে পাক পার্লামেন্টে আনা বিলে অপরাধের দ্রুত বিচার ও আগের চেয়ে  কঠোর সাজার বন্দোবস্ত রয়েছে।

পাক প্রেসিডেন্ট আরিফ আলভি পাক ক্যাবিনেটে সম্মতি পাওয়া নয়া ধর্ষণ বিরোধী অর্ডিন্যান্সে (ordinance) ছাড়পত্র দেওয়ার বছরখানেক বাদে বিলটি পাশ  হল। সেই অর্ডিন্যান্সেই বলা হয়েছিল, ধর্ষণকারীদের রাসায়নিক ইঞ্জেকশন দিয়ে খোজা করে দেওয়া ও দ্রুত বিচারের জন্য বিশেষ আদালত গঠন করা হোক।

দি ডন সংবাদপত্রের খবর, বুধবার পাকিস্তান পার্লামেন্টের যৌথ অধিবেশনে অন্য ৩৩টি বিলের সঙ্গেই ছাড়পত্র পায় ক্রিমিনাল ল (অ্যামেন্ডমেন্ট) বিল ২০২১। ১৮৬০ সালের পাকিস্তানের পেনাল কোড ও ১৮৯৮ য়ের কোড অব ক্রিমিনাল প্রসিডিওর সংশোধনই এই বিলের উদ্দেশ্য। বিলে বলা হয়েছে, রাসায়নিক প্রয়োগ করে খোজা করে দেওয়া একটা প্রক্রিয়া, যা প্রধানমন্ত্রীর নির্দিষ্ট করে দেওয়া  বিধিনিয়ম মেনে চালানো হবে।  জীবনের যে কোনও পর্বে যৌন সঙ্গমের ক্ষমতা হারাবেন একজন। নোটিফায়েড মেডিকেল বোর্ডের মাধ্যমে রাসায়নিক প্রয়োগ করা হবে তার ওপর।

এদিকে শরিয়তে খোজা করে দেওয়ার বিধি নেই বলে দাবি করে বিলের বিরোধিতা করেছেন জামাত-ই-ইসলামির সেনেটর মুস্তাক আহমেদ। বলেছেন,  বিলটি ইসলাম-বিরোধী। ধর্ষণকারীর প্রকাশ্যে ফাঁসি চাই, বলেছেন তিনি।

প্রসঙ্গত, রাসায়নিক প্রয়োগ করে যৌন ক্ষমতা কমিয়ে দেওয়া হয়। দক্ষিণ কোরিয়া, পোল্যান্ড, চেক প্রজাতন্ত্র, আমেরিকার কয়েকটি প্রদেশে এটি বৈধ, আইনি পদ্ধতি।

 

You might also like