Latest News

Organ Donation: গুলি মাথা ফুঁড়ে দিয়েছিল, ৬ বছরের সেই বাচ্চাটার অঙ্গেই প্রাণ বাঁচল পাঁচ জনের

দ্য ওয়াল ব্যুরো: জেল পালানো এক বন্দির গুলি এফোঁড় ওফোঁড় করে দিয়েছিল মাথা। সরাসরি ব্রেনে গিয়ে বিঁধেছিল গুলি। ৬ বছরের বাচ্চাটাকে বাঁচাতে পারেননি দিল্লি এইমসের ডাক্তাররা। কিন্তু তাঁর অঙ্গেই (Organ Donation) প্রাণ পেল আরও পাঁচ জন। মেয়েকেও হারালেও তাঁর অঙ্গদান করতে রাজি হয়েছিলেন বাবা-মা। শিশুটির হার্ট, কিডনি, ত্বক, লিভার নিয়ে প্রাণ বাঁচল পাঁচ মৃত্যুপথযাত্রীর।

মাথায় গুলি লেগে কোমায় চলে গিয়েছিল রোহি প্রজাপতি। শত চেষ্টা করেও তাকে ফিরিয়ে আনতে পারেননি এইমসের ডাক্তারবাবুরা। ব্রেন ডেত হয়ে যাওয়ার পরে মেয়েটার অঙ্গদানের (Organ Donation) সিদ্ধান্ত নেন বাবা-মা। এইমসের নিউরোসার্জন ডক্টর দীপক গুপ্ত বলছেন, সাড়ে ৬ বছরের মেয়েকে হারিয়ে সোকে পাথর বাবা-মা। ওই অবস্থাতেও এতটুকু বাচ্চার অঙ্গদানের সিদ্ধান্ত নেওয়া সহজ ব্যাপার নয়। বাচ্চাটার বাবা-মা মানবিকতার নজির গড়েছেন। মহৎ মনের পরিচয় দিয়েছেন যা আজকালকার দিনে বিরল।

ছোট্ট মেয়েটা হাসপাতালে বর্তি হয়েছিল ২৭ এপ্রিল। এইমসের ডাক্তাররা বলছেন, গুলি এমনভাবে তার মাথায় বিঁধেছিল যে বাঁচানো সম্ভব ছিল না। ব্রেন ডেথ হওয়ার পরেই মেয়েটির বাবা-মায়ের অনুমতি নিয়ে তার লিভার, দুটি কিডনি, দুই চোখের কর্নিয়া, হার্ট তুলে নেওয়া হয় (Organ Donation) । এই অঙ্গগুলি প্রতিস্থাপন করা হয়েছে আরও পাঁচ জনের শরীরে। তাঁরাও সুস্থ আছেন। দিল্লি এইমসের ইতিহাসে রোহিই এখনও অবধি সবচেয়ে কমবয়সী অঙ্গদাতা।

শিশুটির মা পুনম দেবী বলেছেন, মেয়ে আর নেই। তবে রোহি বেঁচে থাকবে আরও পাঁচ জনের মধ্য়ে। তার অঙ্গেই নতুন জীবন পেয়েছেন মৃত্যুপথযাত্রীরা।

Monkeypox: ব্রিটেন, কানাডার পরে আমেরিকায় ছড়াল মাঙ্কিপক্স, করোনার পরে নতুন আতঙ্ক বিশ্বজুড়ে

You might also like